শুক্রবার, ৫ জুন ২০২০, ৩:৪৬ এএম

বিশ্ব মা দিবসে চিত্রনায়িকা আন্নার আকুতি

তাসফিয়া মাহমুদ অর্পা:
প্রকাশিত: ২:৩০ পূর্বাহ্ন, ১০ মে ২০২০, রোববার


পৃথিবীর বিশুদ্ধতম শব্দ মা। বিশুদ্ধতম ভালোবাসা মায়ের ভালোবাসা। মায়ের ভালোবাসা পেতে প্রয়োজন হয় না ভালোবাসি বলার। সুখে, দুখে প্রতিটি সময় মায়ায়, স্নেহে, ভালোবাসায় যিনি জড়িয়ে রাখেন, তিনিই মা।
মা দিবসের উদ্যোগতা আনা জার্ভিস। তারিখ যাই হোক সারা বিশ্বে মে মাসের দ্বিতীয় রোববার বিশ্ব মা দিবস হিসেবে পালিত হয়। সে হিসেবে আজ মা দিবস। সারা বিশ্বের সঙ্গে বাংলাদেশেও দিবসটি পালিত হয়। মাকে যথাযথ সম্মান ও ভালোবাসা দেয়াই দিবসটির মূল উদ্দেশ্য। যদিও মায়েদের জন্য নির্দিষ্ট কোনো দিন হয় নাকি? বা বিশেষ একটা দিনই শুধু মায়েদের জন্য? এ নিয়ে বিশেষ তর্কবিতর্ক রয়েছে। বিশেষ করে বাঙালিদের কাছে প্রতিটি দিনই মা দিবস। আজ ১০ মে। বিশ্ব মা দিবস। ‘মধুর আমার মায়ের হাসি চাঁদের মত লাগে’ ঠিক তাই, মায়ের মুখে চাঁদের মত হাসি দেখতে ভাল লাগে পৃথিবীর সকল সন্তানের। মায়ের প্রতি শ্রদ্ধা, ভালোবাসার জন্য কোনো আলাদা দিন, ক্ষণের প্রয়োজন না হলেও বিশ্বব্যাপী আজকের দিনটি পালিত হচ্ছে বিশ্ব মা দিবস হিসেবে।
প্রাচীন গ্রিসে বিশ্ব মা দিবসের পালন করা হলেও আধুনিক কালে এর প্রবর্তন করেন অ্যানা জার্ভিস নামে এক মার্কিন নারী। ১৯১৪ সালে মার্কিন কংগ্রেসে প্রথম দিবসটি স্বীকৃতি পায়। বর্তমানে বিশ্বব্যাপী এ দিনটি পালন করা হয়। বর্তমানে সারা বিশ্বের মত বাংলাদেশেও এ দিনটি উদযাপন করা হয়।
আর এই মা দিবেসে নিজের আকুতি প্রকাশ করে বাংলা চলচ্চিত্রের সোনালী দিনের জনপ্রিয় চিত্রনায়িকা নাহিদা আশরাফ আন্না প্রতিদিনের কাগজ-কে বলেন, জন্মের পর থেকে কোনদিন এমন হয়নি যে আম্মুর কাছ থেকে এতটা দূরে ছিলাম বড় জোর তিনদিন চারদিন বা এক সপ্তাহ। বিয়ের পরও কখনো এমন হয়নি যে আম্মুকে এতটা দিন না দেখে থেকেছি। কারণ আমি মা পাগল এটা সবাই বলে, এই প্রথম করোনার কারণে আম্মুর থেকে ৫০ দিন যাবত দূরে, এ ব্যথা শুধু সেই সন্তানরাই বুঝবে যারা মায়ের থেকে দূরে আছে, আমরাই করোনা মুক্ত পৃথিবী চাই আল্লাহ পাকের কাছে, যেন আমরা আমাদের মাদেরকে কাছে পাই, বাধা থাকবে না যেখানে। পৃথিবীর সকল মায়েরা ভালো থাকুক। হ্যাপি মাদার্স ডে। আম্মু অনেক মিস করছি আপনাকে অনেক ভালোবাসি।
উল্লেখ্য বিগত ৫০ দিন যাবত করোনার কারনে লকডাউন মেনে আন্নার মা তার বড় বোন ওয়াহিদা আশরাফ ঝর্নার বেইলী রোডের বাসায় অবস্থান করায় মিস করছে মাকে আন্না। এইদিকে আন্না থাকেন সিদ্ধেশ্বরী রোডে তার স্মামীর বাসায়।
২০১১ তে তাদের বাবার মৃত্যুর পর তাদের মিরপুরের বাসায় থাকতো, বোন এর কাছে বেড়াতে আসত মাঝে মাঝে। এর ২০১৬ তে ওপেন হার্ট সার্জারী হওয়ার পর মাকে তার বড় বোন নিয়ে গেছে তাদের বাসায়। এইভাবে তাদের মা ১৫ দিন করে ২ বোনের বাসায় থাকবে। আম্মু ১৫ দিন আমার কাছে ১৫ দিন আপুর কাছে থাকে, লকডাউনের আগে প্রতিদিন দেখা হত। লকডাউনের কারনে দীর্ঘদিন মায়ের সাথে দেখা না হওয়ায় আন্না মাকে খুব মিস করছেন। বিশ্ব মা দিবসে মায়ের প্রতি শ্রদ্ধা ও ভালোবাসার আকুতি প্রকাশ করেন নাহিদা আশরাফ আন্না।

মন্তব্য করুন

সর্বশেষ নিউজ

আরো পড়ুন