বৃহস্পতিবার, ২৪ সেপ্টেম্বর ২০২০, ৫:১৮ এএম

ঠাকুরগাঁওয়ে শিক্ষককে বই দিতে গিয়ে ধর্ষণের শিকার ছাত্রী

ঠাকুরগাঁও প্রতিনিধি:
প্রকাশিত: ৭:৪১ অপরাহ্ন, ১৬ মার্চ ২০২০, সোমবার


ঠাকুরগাঁওয়ে শিক্ষককে বই দিতে গিয়ে ধর্ষণের শিকার ছাত্রী

ছবি- সংগৃহীত

ঠাকুরগাঁওয়ে শিক্ষককে বই দিতে গিয়ে ধর্ষণের শিকার হয়েছেন এক এসএসসি পরীক্ষার্থী। ধর্ষণের শিকার ওই পরীক্ষার্থী বর্তমানে ঠাকুরগাঁও আধুনিক সদর হাসপাতালে মৃত্যুর সঙ্গে লড়াই করছে।

রবিবার (১৫ মার্চ) সকালে জেলার হরিপুর উপজেলার বকুয়া ইউনিয়ন পরিষদের পরিত্যক্ত একটি ভবনে এ ধর্ষণের ঘটনা ঘটে। এ ঘটনায় ওই রাতেই পরীক্ষার্থীর বাবা বাদী হয়ে ধর্ষক ও তার সহযোগীর বিরুদ্ধে থানায় মামলা দায়ের করেন।

আসামিরা হলো- হরিপুর উপজেলার সকল ভিটা গ্রামের ভেটকু শিংয়ের ছেলে ধর্ষক প্রভাত চন্দ্র (২৫) এবং তার সহযোগী একই উপজেলার বজরুক গ্রামের উদ্র মোহনের ছেলে লিটন দাস।

জানা গেছে, ধর্ষক প্রভাত চন্দ্রের কাছে ইউনিয়ন পরিষদের পাশেই একটি ঘরে প্রাইভেট পড়ত ধর্ষণের শিকার এসএসসি পরীক্ষার্থী। রবিবার সকালে মুঠোফোনে পরীক্ষার্থীর কাছে থাকা পুরাতন বই পৌঁছে দেওয়ার কথা বলেন প্রাইভেট শিক্ষক। বই পৌঁছে দিতে গেলে পরীক্ষার্থীকে একা পেয়ে চেতনানাশক ওষুধ রুমালে নিয়ে অজ্ঞান করেন ওই স্কুল শিক্ষক। পরে পাশের একটি পরিত্যক্ত ঘরে নিয়ে তাকে ধর্ষণ করে।

ধর্ষণের পর প্রচণ্ড রক্তক্ষরণ হয়ে পরীক্ষার্থী অজ্ঞান হয়ে পড়লে সহযোগী লিটনের ওষুধের দোকানে দিয়ে পালিয়ে যায় ধর্ষক প্রভাত। পরে ওষুধ বিক্রেতা লিটন ধর্ষণের ঘটনাকে সড়ক দুর্ঘটনা বলে চালিয়ে দেওয়ার চেষ্টা করলে ছাত্রীর পরিবার তাকে উন্নত চিকিৎসার জন্য ঠাকুরগাঁও আধুনিক সদর হাসপাতালে ভর্তি করায়।

ধর্ষণের শিকার পরীক্ষার্থীর বাবা জানান, হিন্দু হয়ে আমার মেয়ের এত বড় সর্বনাশ করেছে। আমি ধর্ষকের দৃষ্টান্তমূলক শাস্তির দাবি জানাচ্ছি।

এ দিকে ধর্ষক ও তার সহযোগীর বিচারের দাবিতে বিক্ষোভ ও মানববন্ধন কর্মসূচি পালন করেছে এলাকাবাসী। সোমবার (১৬ মার্চ) দুপুরে বিদ্যালয়ের শিক্ষার্থীরাসহ এলাকাবাসী এ বিক্ষোভ ও মানববন্ধন কর্মসূচিতে অংশগ্রহণ করে।

এ ঘটনায় হরিপুর থানার ওসি আমিরুলজামান জানান, ঘটনার পর থেকে ধর্ষক ও তার সহযোগী পলাতক রয়েছে। আমরা পরীক্ষার্থীর বাবার মামলা নিয়েছি। পুলিশ ধর্ষকদের গ্রেপ্তারে অভিযান অব্যাহত রেখেছে।

মন্তব্য করুন

সর্বশেষ নিউজ

আরো পড়ুন