৮, এপ্রিল, ২০২০, বুধবার

পাপিয়া কাণ্ডে সাবেক এমপি তুহিনকে জিজ্ঞাসাবাদ করতে চায় পুলিশ

নিজস্ব প্রতিবেদক:
প্রকাশিত: ৪:৩০ অপরাহ্ন, ১ মার্চ ২০২০, রোববার


পাপিয়া কাণ্ডে সাবেক এমপি তুহিনকে জিজ্ঞাসাবাদ করতে চায় পুলিশ

শামীমা নুর পাপিয়া ও সাবেক সাংসদ সাবিনা আক্তার তুহিন (ছবি : সংগৃহীত)

রিমান্ডে জিজ্ঞাসাবাদে চাঞ্চল্যকর তথ্য দিচ্ছেন যুব মহিলা লীগ থেকে বহিষ্কৃত নেত্রী শামীমা নুর পাপিয়া ও তার স্বামী মফিজুর রহমান ওরফে সুমন চৌধুরী। এতে, রাজনীতিতে তাকে আশ্রয়-প্রশ্রয় দেওয়ার পেছনে নরসিংদী, ঢাকার বর্তমান ও সাবেক তিন সাংসদের নাম এসেছে। তাদের মধ্যে ঢাকার সংরক্ষিত নারী আসনের সাবেক সাংসদ সাবিনা আক্তারের (তুহিন) সঙ্গে পাপিয়ার ঘনিষ্ঠতার কথা প্রকাশ্যেই বলছেন যুব মহিলা লীগের বিভিন্ন পর্যায়ের নেতা–কর্মীরা। তাই পাপিয়ার অপরাধজগৎ সম্পর্কে জানতে সাবেক এই নারী সাংসদকে জিজ্ঞাসাবাদ করতে চায় পুলিশ।

ঢাকা মহানগর পুলিশের গোয়েন্দা বিভাগ পাপিয়ার তিন মামলার তদন্ত করছে। তবে এসব মামলা তদন্ত করার অনুমতি চেয়ে স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ে আবেদন করেছে র‍্যাব। এ অবস্থায় এখনই ওই নারী সাংসদকে জিজ্ঞাসাবাদ করা নিয়ে কিছুটা দ্বিধাদ্বন্দ্বে রয়েছেন তদন্তে যুক্ত কর্মকর্তারা। তারা বলছেন, সাবেক নারী সাংসদের সঙ্গে ঘনিষ্ঠ সম্পর্ক থাকার কথা জিজ্ঞাসাবাদে স্বীকার করেছেন পাপিয়া।

জানা যায়, সাবিনা আক্তারের আশ্রয়–প্রশ্রয়ে ক্ষমতার দাপট দেখানোর পাশাপাশি বেপরোয়া জীবন যাপন করতেন পাপিয়া। তার মাধ্যমেই আওয়ামী লীগের কেন্দ্রীয় নেতা ও কয়েকজন সাংসদের সঙ্গে পরিচয় ও সুসম্পর্ক গড়ে তোলেন পাপিয়া। ইতোমধ্যে, নরসিংদীর একটি পোশাক কারখানায় গ্যাস সংযোগ এনে দেওয়ার আশ্বাস দিয়ে কারখানা মালিকের কাছ থেকে কোটি টাকা নেওয়ার তথ্য দিয়েছেন পাপিয়া। এ ছাড়া পুলিশের উপপরিদর্শক (এসআই) পদে নিয়োগ দেওয়ার কথা বলে কিছু প্রার্থীর কাছ থেকে কয়েক লাখ টাকা নেন পাপিয়া ও তার স্বামী। সেই নিয়োগের ব্যাপারে তদবির করেছিলেন ওই সাংসদ।

এ বিষয়ে সাবেক এই সাংসদ বলেন, পাপিয়ার অপরাধজগতের সঙ্গে তার কোনো সম্পর্ক নেই। এমনকি পাপিয়ার সঙ্গে কোনো ধরনের ব্যবসাও নেই। একটি মহলের প্রভাবিত হয়ে পাপিয়া আইনশৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনীকে মিথ্যা তথ্য দিচ্ছেন।

তিনি আরও বলেন, ১৪ মাস ধরে পাপিয়ার সঙ্গে তার কোনো যোগাযোগ নেই। জিজ্ঞাসাবাদে পাপিয়ার মুখোমুখি হয়ে এসব প্রশ্নের জবাব দিতে চান তিনি। তবে দলের বিভিন্ন লোকজনের সঙ্গে পাপিয়াকে পরিচয় করিয়ে দিয়েছিলেন তিনি, এটি অপরাধ হয় কীভাবে?

পাপিয়া প্রসঙ্গে ডিবির (উত্তর) উপকমিশনার মশিউর রহমান বলেন, অনেকের সঙ্গেই পাপিয়া ছবি তুলেছেন, ফোনে কথা বলেছেন। তাই বলে তারা সবাই অপরাধী হবেন, এমনটা নয়। পাপিয়ার অপরাধ কর্মকাণ্ডের নেপথ্যে কারা, আসল সত্য কী তা উদঘাটনের চেষ্টা চলছে।

মন্তব্য করুন

খবর অনুসন্ধান

সোম মঙ্গল বুধ বৃহ শুক্র শনি রবি
 
১০১১১২
১৩১৪১৫১৬১৭১৮১৯
২০২১২২২৩২৪২৫২৬
২৭২৮২৯৩০  

সর্বশেষ নিউজ

আরো পড়ুন

Shares