৮, এপ্রিল, ২০২০, বুধবার

ঢাকা মেডিকেলের মর্গের সামনে দুই শিশুর কান্না

প্রতিদিনের কাগজ ডেস্ক:
প্রকাশিত: ৪:১৪ অপরাহ্ন, ১ মার্চ ২০২০, রোববার


ঢাকা মেডিকেলের মর্গের সামনে দুই শিশুর কান্না

কোনো দিন ঢাকা শহর দেখেনি শাহরিয়ার ও তামিমা। সিলেটের বাড়ি থেকে ফরিদপুর বেড়াতে যাওয়ার সুযোগে তাদের ঢাকা দেখা হয়। বাবা-মাকে নিয়ে তারা ওঠে ঢাকার এক আত্মীয়ের বাসায়। শনিবার (২৯ ফেব্রুয়ারি) সকালে ট্রেনে চড়ে সিলেটে যাওয়ার কথা ছিল তাদের। তারা সিলেটে গিয়েছেন কিন্তু মাকে আর জীবিত নিয়ে যেতে পারেনি। লাশ হয়ে কফিনে যেতে হয়েছে তাদের মাকে। ঝকমকে এই ঢাকা শহরের ছিনতাইকারীরা তাকে জীবিত ফিরতে দেয়নি।

রাজধানীর কমলাপুরের টিটিপাড়া এলাকায় শনিবার ভোরে মর্মান্তিক এ ঘটনাটি ঘটে। নিহতের নাম তারিনা বেগম লিপা (৩৮)।

যে শিশুদের শনিবার সকালে ট্রেনে থাকার কথা ছিল সেই শিশুদের থাকতে হয়েছে ঢাকা মেডিকেলের মর্গের সামনে। তখন মায়ের লাশ মর্গের ভেতর। মাকে হারিয়ে মর্গের সামনে দুই শিশুর কান্নায় অন্যরকম এক পরিবেশের সৃষ্টি হয়।

শনিবার সকাল সাড়ে ১১টার দিকে ঢাকা মেডিকেলের মর্গের সামনে দেখা যায় তামিমা ও শাহরিয়ার পাশাপাশি বসে কাঁদছে। তাদের সান্ত্বনা দেওয়ার চেষ্টা করছে তাদের এক আত্মীয়। কিন্তু কোনো সান্ত্বনাই কাজে লাগছে না। আর তাদের বাবা গোলাম কিবরিয়া রক্তমাখা শার্ট গায়ে একটি দেয়ালে হেলান দিয়ে কাঁদছেন। এ সময় সেখানকার পরিবেশ ভারী হয়ে ওঠে।

শাহরিয়ার বলেন, আমার এসএসসি পরীক্ষা শেষ হওয়ায় বাবা-মা আমাদের বেড়াতে নিয়ে গিয়েছিলেন। কিন্তু মাকে আর বাড়ি নিয়ে যেতে পারলাম না। জীবনের প্রথমবার তার মা, সে ও তার বোন ঢাকায় এসেছিল। সে আরও জানায়, প্রাইভেটকারে দুইজন ছিল। একজন চালাচ্ছিল। আরেকজন টান দিয়ে তার মায়ের ব্যাগটি নিয়ে যায়।

বাবা গোলাম কিবরিয়া সিলেটের মোগলাবাজার জালালপুর এলাকার বাসিন্দা। তিনি এক সময় বিদেশে ছিলেন। কয়েক বছর আগে দেশে ফিরে ব্যবসা করছেন।

গোলাম কিবরিয়া বলেন, আমার স্ত্রী খুব ভালো মনের মানুষ ছিল। বেড়াতে এসে তাকে হারাব ভাবতেই পারছি না। নিজেকে অপরাধী লাগছে।

এ ঘটনায় মুগদা থানায় হত্যা মামলা দায়ের করেছেন তারিনার স্বামী গোলাম কিবরিয়া। এ বিষয়ে মুগদা থানার ওসি প্রলয় কুমার সাহা বলেন, ছিনতাইকারীদের ধরতে আমাদের কয়েকটি টিম কাজ করছে।

মন্তব্য করুন

খবর অনুসন্ধান

সোম মঙ্গল বুধ বৃহ শুক্র শনি রবি
 
১০১১১২
১৩১৪১৫১৬১৭১৮১৯
২০২১২২২৩২৪২৫২৬
২৭২৮২৯৩০  

সর্বশেষ নিউজ

আরো পড়ুন

Shares