১, এপ্রিল, ২০২০, বুধবার

এবার কসমেটিক ব্যবহারে সতর্কতা জরুরি

বিশেষ প্রতিবেদক:
প্রকাশিত: ৯:১৩ পূর্বাহ্ন, ২১ ফেব্রুয়ারী ২০২০, শুক্রবার


এবার কসমেটিক ব্যবহারে সতর্কতা জরুরি

বিভিন্ন ধরনের প্রসাধনী সামগ্রী পাওয়া যায় বাজারে। এগুলো ব্যবহারে সৃষ্টি হতে পারে ত্বকে প্রদাহ। হতে পারে অ্যালার্জি। প্রসাধনজনিত এ প্রদাহ তিনভাগে ভাগ করা যায়। যেমন-প্রাথমিক উত্তেজন সৃষ্টিকারী, সালোক সংবেদনজনিত এবং অ্যালার্জিজনিত। প্রথমেই আসা যাক নেইলপলিশে। নেইলপলিশে থাকে সালফোনোমাইড। থাকে ফরমালডিহাইড রেজিন, যা ব্যবহারে গলা এমনকি চোখের পাতায়ও প্রদাহের সৃষ্টি হতে পারে।

অনেকের অভ্যাস, নেইলপলিশ বারবার তুলে নতুন করে লাগানোর। এটি তুলতে যে পদার্থ ব্যবহার করা হয়, তাতে থাকে অ্যাসিটোন, যা থেকে নখ ক্ষয় হতে পারে। চুল পাকলে অনেকে কলপ ব্যবহার করেন। চুলের কলপে থাকে প্যারাফিনাইল ডাইঅ্যামাইন। এ থেকে অনেকের মাথা, গোঁফ বা দাড়িতে অ্যালার্জির সৃষ্টি হয়। তাই এ ধরনের কলপ ত্বকে অ্যালার্জি সৃষ্টি করবে কিনা, তা কানের লতির পেছনে ২৪ ঘণ্টা লাগিয়ে রাখতে পারেন। যদি অ্যালার্জির সৃষ্টি করে, তবে তা যেখানেই ব্যবহার করবেন, সেখানেই অ্যালার্জি সৃষ্টি করবে। এ জন্য ব্যবহার না করাই উচিত।

চুল কোঁচকানো বা সোজা করা ইদানীং ফ্যাশনে পরিণত হয়েছে। এতে যে পদার্থ ব্যবহার করা হয়, তা থেকে সাধারণত কোনো বিক্রিয়া বা প্রদাহ কিংবা অ্যালার্জির সৃষ্টি না হলেও চুল ভঙ্গুর হয়ে পড়তে পারে। চুলে ব্যবহারের জন্য নানা ধরনের স্প্রে বাজারে পাওয়া যায়। এতে থাকে ল্যানোলিন, যা অ্যালার্জি সৃষ্টি করতে পারে। বাজারে বিভিন্ন হেয়ার লোশন বা টনিকও পাওয়া যায়। এটির সিনোকানার টিংচার থেকে সৃষ্টি হতে পরে অ্যালার্জির। সুগন্ধি ব্যবহার সামগ্রীও ত্বকে অ্যালার্জি সৃষ্টি করতে পারে।

কারণ তাতে থাকতে পারে রিসর্সিন, কুইনাইন সালফেট ইত্যাদি। লিপস্টিকে থাকে বিশেষ ধরনের রঞ্জন পদার্থ। অনেক নারীর ঠোঁটে এ থেকে অ্যালার্জির সৃষ্টি হয়। কারণ এতে ডাই এবং ট্রেট্টা ব্রোমোফ্লোরোসিন ব্যবহার করা হয়ে থাকে। কাজেই যারা ঠোঁটের সমস্যায় ভোগেন, তারা লক্ষ্য করবেন, লিপস্টিক ব্যবহারের পর তা বাড়ে কিনা। মাশকারা অ্যাইশাডো বা আইলাইনারও অ্যালার্জি সৃষ্টি করতে পারে। যাদের ত্বক একটু কালো বা রোদে গেলে কালচে দেখায়, তারা সানস্ক্রিন লোশন বা ক্রিম ব্যবহারের পরামর্শ করতে পারেন। দেখা গেছে, এ থেকেও মুখে অ্যালার্জির সৃষ্টি হতে পারে।

মুখের ব্রণ বা অন্য কোনো সমস্যায় চিকিৎসকের পরামর্শে কেনা মলম জাতীয় ওষুধ মুখে ব্যবহার করলেও তা থেকে মুখে সৃষ্টি হতে পারে অ্যালার্জি। প্রযুক্তির উৎকর্ষে বাড়ছে প্রসাধনীর সংখ্যা। তাই বিভিন্ন প্রসাধনী নির্বিচার ব্যবহার না করা ভালো। বারবার প্রসাধনী পরিবর্তনও যুক্তিসঙ্গত নয়। যার যেটায় অ্যালার্জি হয় না, সেটাই ধরে রাখা ভালো। তবে মনে রাখতে হবে, একটি বিশেষ প্রসাধনী দীর্ঘদিন ব্যবহারের পরও তার দেহে ওই প্রসাধনী থেকেও অ্যালার্জির সৃষ্টি হতে পারে।

লেখক : চর্ম যৌন ও অ্যালার্জি রোগ বিশেষজ্ঞ

সিনিয়র কনসালট্যান্ট ও ব্যবস্থাপনা পরিচালক, আল-রাজি হাসপাতাল, ফার্মগেট, ঢাকা। ০১৭১৫৬১৬২০০, ০১৮১৯২১৮৩৭৮

মন্তব্য করুন

খবর অনুসন্ধান

সোম মঙ্গল বুধ বৃহ শুক্র শনি রবি
 
১০১১১২
১৩১৪১৫১৬১৭১৮১৯
২০২১২২২৩২৪২৫২৬
২৭২৮২৯৩০  

সর্বশেষ নিউজ

আরো পড়ুন

Shares