৩, এপ্রিল, ২০২০, শুক্রবার

চীন ফেরত সবার শারীরিক অবস্থা স্থিতিশীল

প্রতিদিনের কাগজ রিপোর্ট:
প্রকাশিত: ১২:২৮ পূর্বাহ্ন, ৮ ফেব্রুয়ারী ২০২০, শনিবার


চীন ফেরত সবার শারীরিক অবস্থা স্থিতিশীল

ছবি : সংগৃহীত।

করোনা ভাইরাস আতঙ্কে চীন ফেরত ৩১২ বাংলাদেশির শারীরিক অবস্থা এখন পর্যন্ত স্থিতিশীল আছে। এদের মধ্যে সম্মিলিত সামরিক হাসপাতালের (সিএমএইচ) আইসোলেশন ইউনিটে ১১ জন আছেন। বাকি ৩০১ জন কোয়ারেন্টাইন অবস্থায় রাজধানীর দক্ষিণখানের আশকোনায় হাজি ক্যাম্পে রয়েছেন।

মঙ্গলবার (৪ ফেব্রুয়ারি) একটি শিশু অসুস্থ হয়ে পড়লে তার মা-বাবাসহ তাকে সিএমএইচ হাসপাতালে নেওয়া হয়। সেখানে সংগৃহীত নমুনা পরীক্ষা-নিরীক্ষা করে করোনা ভাইরাসের কোনো প্রমাণ মেলেনি। এ ছাড়া হাসপাতালটির আইসোলেশন ইউনিটে ভর্তি একজনের শারীরিক অবস্থার উন্নতি হলে বৃহস্পতিবার (৬ ফেব্রুয়ারি) রাতে তাকে আবারও আশকোনা হাজি ক্যাম্পে নিয়ে যাওয়া হয়েছে।

শুক্রবার (৭ ফেব্রুয়ারি) সরকারের রোগতত্ত্ব, রোগ নিয়ন্ত্রণ ও গবেষণা প্রতিষ্ঠানের (আইইডিসিআর) পরিচালক অধ্যাপক ডা. মীরজাদী সেব্রিনা ফ্লোরা এ তথ্য জানান।

অধ্যাপক সেব্রিনা ফ্লোরা জানান, চীনের উহান ফেরত যাত্রীদের নিয়ে আসা বিমানের পাইলট ও কেবিন ক্রুদেরও পর্যবেক্ষণে রাখা হয়েছে। তাদের ১৪ দিন নিজ বাড়িতে কোয়ারেন্টাইন অবস্থায় থাকার পরামর্শ দেওয়া হয়েছে।

করোনা ভাইরাস মূলত শ্বাসতন্ত্রে সংক্রমণ ঘটায়। এ রোগের লক্ষণ শুরু হয় জ্বর দিয়ে, একই সঙ্গে কাশি, সর্দি, গলাব্যথা, মাথাব্যথা ও শরীর ব্যথা থাকতে পারে। এখানেই শেষ নয়, সপ্তাহখানেকের মধ্যে শ্বাসকষ্টজনিত সমস্যা দেখা দিতে পারে। করোনা ভাইরাসের উপসর্গগুলো হয় অনেকটা নিউমোনিয়ার মতো।

সাম্প্রতিক সময়ে করোনা ভাইরাসের প্রাদুর্ভাবে চীনের অবরুদ্ধ শহর উহান থেকে বাংলাদেশিদের ফিরিয়ে আনতে গত ৩১ জানুয়ারি রাতে একটি বিশেষ ফ্লাইট পাঠায় বাংলাদেশ সরকার। পরদিন ৩১২ জনকে নিয়ে ফ্লাইটটি ঢাকায় পৌঁছায়। এদের মধ্যে আট জনের জ্বর থাকায় তাদের কুর্মিটোলা জেনারেল হাসপাতাল ও সম্মিলিত সামরিক হাসপাতালে বিশেষ ওয়ার্ডে নেওয়া হয়। বাকিদের ১৪ দিনের জন্য কোয়ারেন্টাইন অবস্থায় আশকোনায় হাজি ক্যাম্পে রাখা হয়েছে।

মন্তব্য করুন

খবর অনুসন্ধান

সোম মঙ্গল বুধ বৃহ শুক্র শনি রবি
 
১০১১১২
১৩১৪১৫১৬১৭১৮১৯
২০২১২২২৩২৪২৫২৬
২৭২৮২৯৩০  

সর্বশেষ নিউজ

আরো পড়ুন

Shares