৯, এপ্রিল, ২০২০, বৃহস্পতিবার

“সময়মতো শিক্ষার্থীরা স্কুলে এলেও দেখা নেই শিক্ষকের”

মোঃ ইউনুস আলী, লালমনিরহাট প্রতিনিধি:
প্রকাশিত: ৮:২১ অপরাহ্ন, ২৩ জানুয়ারী ২০২০, বৃহস্পতিবার


“সময়মতো শিক্ষার্থীরা স্কুলে এলেও দেখা নেই শিক্ষকের” ১০ শিক্ষককে শোকজ

“সময়মতো শিক্ষার্থীরা স্কুলে এলেও দেখা নেই শিক্ষকের” ১০ শিক্ষককে শোকজ

লালমনিরহাটে সদর উপজেলায় যথাসময়ে বিদ্যালয়ে উপস্থিত না হওয়ার অপরাধে দুই সরকারী প্রাথমিক বিদ্যালয়ের সকল শিক্ষককে কারন দর্শানোর নোটিশ (শোকজ) দেয়া হয়েছে।

জেলা প্রাথমিক শিক্ষা অফিস কর্তৃক ওই দুইটি বিদ্যালয়ের ১০জন শিক্ষককে ৭ কর্মদিবসের মধ্যে জবাব চেয়ে বৃহস্পতিবার এ নোটিশ প্রদান করা হয় বলে জানিয়েছেন সদর উপজেলা প্রাথমিক শিক্ষা অফিসার মোঃ আনোয়ারুল ইসলাম। নোটিশের জবাবের পর তাদের বিরুদ্ধে বিধি মোতাবেক প্রয়োজনীয় ব্যাবস্থা নেয়া হবে বলে জানান উপজেলা শিক্ষা অফিসার।লালমনিরহাটে সদর উপজেলায় যথাসময়ে বিদ্যালয়ে উপস্থিত না হওয়ার অপরাধে দুই সরকারী প্রাথমিক বিদ্যালয়ের সকল শিক্ষককে কারন দর্শানোর নোটিশ (শোকজ) দেয়া হয়েছে। জেলা প্রাথমিক শিক্ষা অফিস কর্তৃক ওই দুইটি বিদ্যালয়ের ১০জন শিক্ষককে ৭ কর্মদিবসের মধ্যে জবাব চেয়ে বৃহস্পতিবার এ নোটিশ প্রদান করা হয় বলে জানিয়েছেন সদর উপজেলা প্রাথমিক শিক্ষা অফিসার মোঃ আনোয়ারুল ইসলাম। নোটিশের জবাবের পর তাদের বিরুদ্ধে বিধি মোতাবেক প্রয়োজনীয় ব্যাবস্থা নেয়া হবে বলে জানান উপজেলা শিক্ষা অফিসার। জানা গেছে, লালমনিরহাট সদর উপজেলার কুলাঘাট ইউনিয়নের চর খাটামারী সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয় ও চর কুলাঘাট সরকারী প্রাথমিক বিদ্যালয়ের কোনো শিক্ষকই যথাসময় বিদ্যালয়ে উপস্থিত হচ্ছেন না। এ সংক্রান্ত একটি সংবাদ সম্প্রতি বিভিন্ন গণ মাধ্যমে প্রকাশিত হয়। সংবাদটি প্রকাশিত হওয়ার পর জেলা শিক্ষা অফিসার গোলাম নবী ওই দুই বিদ্যালয়ের শিক্ষকদের কাছ থেকে কারণ দর্শানোর জবাব চেয়েছেন। লালমনিরহাট জেলা প্রাথমিক শিক্ষা অফিসার গোলাম নবী বলেন, পত্রিকার খবরগুলো আমার দৃষ্টিগোচর হওয়ায় শিক্ষকদের কৈফিয়ত তলব করা হয়েছে এবং বিষয়টি তদন্তের জন্য উপজেলা শিক্ষা অফিসারকে নির্দেশ দেয়া হয়েছে ।

জানা গেছে, লালমনিরহাট সদর উপজেলার কুলাঘাট ইউনিয়নের চর খাটামারী সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয় ও চর কুলাঘাট সরকারী প্রাথমিক বিদ্যালয়ের কোনো শিক্ষকই যথাসময় বিদ্যালয়ে উপস্থিত হচ্ছেন না। এ সংক্রান্ত একটি সংবাদ সম্প্রতি বিভিন্ন গণ মাধ্যমে প্রকাশিত হয়। সংবাদটি প্রকাশিত হওয়ার পর জেলা শিক্ষা অফিসার গোলাম নবী ওই দুই বিদ্যালয়ের শিক্ষকদের কাছ থেকে কারণ দর্শানোর জবাব চেয়েছেন।
লালমনিরহাট জেলা প্রাথমিক শিক্ষা অফিসার গোলাম নবী বলেন, পত্রিকার খবরগুলো আমার দৃষ্টিগোচর হওয়ায় শিক্ষকদের কৈফিয়ত তলব করা হয়েছে এবং বিষয়টি তদন্তের জন্য উপজেলা শিক্ষা অফিসারকে নির্দেশ দেয়া হয়েছে ।“সময়মতো শিক্ষার্থীরা স্কুলে এলেও দেখা নেই শিক্ষকের” ১০ শিক্ষককে শোকজ

প্রতিদিনের কাগজ/আর এন

মন্তব্য করুন

খবর অনুসন্ধান

সোম মঙ্গল বুধ বৃহ শুক্র শনি রবি
 
১০১১১২
১৩১৪১৫১৬১৭১৮১৯
২০২১২২২৩২৪২৫২৬
২৭২৮২৯৩০  

সর্বশেষ নিউজ

আরো পড়ুন

Shares