সোমবার, ২৫ মে ২০২০, ৪:৩৩ এএম

মুক্ত চিন্তার আধার মফস্বল সাংবাদিকতা নৈতিক স্খলনে প্রশ্নবিদ্ধ

প্রতিদিনের কাগজ রিপোর্ট :
প্রকাশিত: ৭:৪৯ অপরাহ্ন, ১৫ জানুয়ারী ২০২০, বুধবার


মুক্ত চিন্তার আধার মফস্বল সাংবাদিকতা নৈতিক স্খলনে প্রশ্নবিদ্ধ

কেউ বলে সাংবাদিক, কেউ বলে রিপোর্টার, কেউবা বিদ্রুপ করে বলে সাংঘাতিক! আবার সভা, সেমিনারে ভদ্র ভাষায় অনেকে বলে থাকেন সমাজের দর্পন।

আজকাল সুকর্ম বা কুকর্মের বিশেষণে সজ্ঞায়িত হচ্ছে এই পেশা। অথচ দেশের বরেণ্য কবি, সাহিত্যিক, লেখক, গবেষক, বুদ্ধিজীবীর সুতিকাগৃহ এই মহান পেশা।

প্রযুক্তির উৎকর্ষে তথ্য প্রাবাহ যথই গতিশীল হউক না কেন, বস্তুনিষ্ঠ সংবাদ প্রকাশের ক্ষেত্রে এখন প্রশ্ন থেকেই যাচ্ছে মফস্বল সাংবাদিকতায়। তবে যে হারে গণমাধ্যম বেড়েছে তাতে মফস্বল সাংবাদিকতা কথাটি এখন সম্পূর্ন অপ্রাসংঙ্গিক। কারণ মফস্বলে এখন সাংবাদিকের চেয়ে সম্পাদকের সংখ্যাই বেশি। সে কারণেই হয়তোবা বিভিন্ন গণমাধ্যামে মফস্বল সম্পাদকের পদটি এখন বিলুপ্তপ্রায়।

এক সময় সমাজে প্রগতিশীল ব্যক্তিরা জেনে বুঝে এ পেশায় পা বাড়াতেন। কারণ এ পেশায় যেমন আছে সম্মান, এডভেঞ্চার তেমনি ঝুকিও।

বস্তুনিষ্ঠ সংবাদ পরিবেশককে আমরা সবসময় সম্মানের চোখে দেখি। বিশেষ করে আমার দৃষ্টিতে এন্ড্রয়েড মোবাইল ফোন ব্যবহারকারী বিশ্বের শতকোটি মানুষ প্রত্যেককে আমরা সাংবাদিক হিসেবে দাবী করতে পারি। কারণ তাদের কারো না কারো মাধ্যমে প্রকাশিত হচ্ছে অনেক রোমাঞ্চকর এক্সক্লোসিভ নিউজ।

আজকাল মিটিং, মিছিল কিংবা মনববন্ধন কর্মসূচীতে অংশগ্রহণকারীর চেয়ে সাংবাদিকের সংখ্যাই থাকে বেশি। হাত বাড়লেই আমি অমুক পত্রিকার সাংবাদিক, আমি অনলাইন সম্পাদক, আমি তমুক অনলাইন টিভির সাংবাদিক। আবার কেউ কেউ উচ্চারণ বিভ্রাটের কারণে নিজেকে পরিচয় দিচ্ছেন অমুক পরতিকার সামবাদিক। বাহ! বাহ! বাহ! হিপহিপ হুররে…..যেনো বাহারি পরিচয়ের মিলনমেলা। দেশ এগিয়ে যাবে আর আমরা পিছিয়ে থাকবো তা কি হয়?

আগেই বলেছি সকল পেশার মানুষের অংশগ্রহণে সর্বজনিন সাংবাদিকতা দোষের কিছু নয়। একসময় মামলা তদবিরে দালালদের পদচারণায় মুখরিত থাকতো থানা (পুলিশ স্টেশন)। তাই থানার দেয়ালে শোভা পাচ্ছে দালালদের নামের প্লিপচার্ট। দালালী প্রথা অনেকটা বিলুপ্ত হলেও এখন আনেক তথাকথিত সাংবাদিক পুলিশের মামলা তদন্তসঙ্গী হতেও দেখা যায়। যার অর্থ সহজেই অনুমেয়।

তবে যারা এ পেশার নামভাঙিয়ে বিভিন্ন অপকর্মে লিপ্ত হয়ে সমাজকে অস্থিতিশীল করছে তাদের এখনই লাগাম টেনে না ধরলে সমাজে তথ্য সন্ত্রাস ছড়িয়ে মহামারি আকার ধারণ করবে।

লেখকঃ
জুলফিকার শাহীন, শিক্ষক, সাংবাদিক, লেখক ও গবেষক। 

মন্তব্য করুন

খবর অনুসন্ধান

সোম মঙ্গল বুধ বৃহ শুক্র শনি রবি
 
১০
১১১২১৩১৪১৫১৬১৭
১৮১৯২০২১২২২৩২৪
২৫২৬২৭২৮২৯৩০৩১

সর্বশেষ নিউজ

আরো পড়ুন

Shares