২৭, জানুয়ারী, ২০২০, সোমবার

ঢাকা উত্তর সিটি কর্পোরেশন ২২নং ওয়ার্ডে জনপ্রিয়তার শীর্ষে সাজ্জাদ চিশতী

বিশেষ প্রতিবেদক :
প্রকাশিত: ৭:১৩ অপরাহ্ন, ৬ জানুয়ারী ২০২০, সোমবার


ঢাকা উত্তর সিটি কর্পোরেশন ২২নং ওয়ার্ডে জনপ্রিয়তার শীর্ষে সাজ্জাদ চিশতী

আসন্ন ঢাকা সিটি করপোরেশন উত্তর ২২ নং ওয়াডে সৎ, শিক্ষিত চিশতী, এবার সবচেয়ে জনপ্রিয়। তিনি পিএইচডি করেছেন। ১৯৮২ সালে২৫ মে জন্ম নিয়েছেন এই ঢাকায়।তার পিতা বীর মুক্তিযোদ্ধা মরহুম প্রিন্সিপাল আবু তাহের ভূঁইয়ার তিনি ছিলেন ফেনী কলেজের ভিপি, ফেনী জেলা ছাত্রলীগের সভাপতি, ফেনী জেলা শ্রমিক লীগের সভাপতি, স্বাধীন বাংলাদেশ ছাত্র সংগ্রাম পরিষদ ফেনী জেলার আহ্বায়ক, ফেনী জেলা জাসদ (ইনু) আহ্বায়ক, নতুন প্রজন্ম পরিষদ কেন্দ্রীয় কমিটির সভাপতি, ঢাকাস্থ ফেনী গুণীজন ও মুক্তিযোদ্ধা মূল্যায়ন পরিষদের সভাপতি, সাংবাদিক, কলামিস্ট, সমাজসেবক ও শিক্ষাবিদ।তার মাতা আঞ্জুমান আরা বেগম একজন সুগৃহিণী।

তারা দুই ভাই ও এক বোনের মধ্যে তিনি বড়।তার ছোট ভাই নটরডেম ইউনিভার্সিটির ইংরেজির প্রভাষক ও বোন সরকারি স্কুলের শিক্ষিকা।তারা তিন ভাই-বোনই ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় থেকে পড়াশোনা করেছে। ব্যক্তিজীবনে তিনি বিবাহিত এবং এক পুত্র সন্তানের জনক ছিলেন, ২০১৭ সালে ডেঙ্গুজ্বরে আক্রান্ত হয়ে তার একমাত্র ছেলে ইউশা মারা যায়।

তিনি বলেন আমার চাওয়া-পাওয়ার কিছুই নেই। আমি শুধু আপনাদের ভালোবাসা, দোয়া চাই। বাংলাদেশের স্থপতি, হাজার বছরের শ্রেষ্ঠ

বাঙালি, বাংলার রাখাল রাজা, শতাব্দীর মহানায়ক, জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের আদর্শের আমি একজন নগণ্য সৈনিক। বঙ্গবন্ধুর স্বপ্নের সোনার বাংলার রূপদানকারী,ডিজিটাল বাংলাদেশের স্বপ্নদ্রষ্টা, মাদার অব হিউম্যানিটি, বিশ্বনেত্রী, বিশ্বের অন্যতম প্রভাবশালী প্রধানমন্ত্রী, গণপ্রজাতন্ত্রী বাংলাদেশ সরকারের মাননীয় প্রধানমন্ত্রী, বাংলাদেশ আওয়ামীলীগের সভানেত্রী, দেশরত্ন, গণতন্ত্রের মানসকন্যা, জননেত্রী শেখ হাসিনার আদর্শে সুখী, সমৃদ্ধশালী, দারিদ্র্যমুক্ত ও ডিজিটাল বাংলাদেশ গড়ার লক্ষ্যে একজন নগণ্য কর্মী হিসেবে কাজ করে যাওয়াই আমার লক্ষ্য ও উদ্দেশ্য। ‘এগিয়ে যাচ্ছে বাংলাদেশ, আসুন বদলে দেই রামপুরাকে’ এটাই আমার একমাত্র মনোবাসনা।

সুপ্রিয় রামপুরাবাসী, সে লক্ষ্যে সব ধরনের সন্ত্রাস ও চাঁদাবাজি রোধে আগামী দিনগুলোতে কাজ করে যেতে চাই, আর আপনাদের সঙ্গে নিয়ে ব্যক্তি, পরিবার তথা সমাজ ধ্বংসকারী সর্বনাশা মাদকের বিরুদ্ধে দৃঢ় অবস্থানকে কাজে লাগিয়ে দুর্বার সামাজিক আন্দোলনের রূপ দিতে চাই।

সব নাগরিক সমস্যা ও জনভোগান্তির অবসান ঘটিয়ে রাজধানীর প্রাণকেন্দ্র রামপুরাকে গড়ে তুলতে চাই একবিংশ শতাব্দীর

বসবাসযোগ্য করে। সে সঙ্গে নাগরিক জীবনের যান্ত্রিকতা থেকে সয়িষ্ণু ও ভঙ্গুর সামাজিক বন্ধনকে শক্তিশালী করতে রামপুরাবাসীকে নিয়ে আসতে চাই এক সুদৃঢ় পারিবারিক বন্ধনে।

মন্তব্য করুন

খবর অনুসন্ধান

সোম মঙ্গল বুধ বৃহ শুক্র শনি রবি
 
১০১১১২
১৩১৪১৫১৬১৭১৮১৯
২০২১২২২৩২৪২৫২৬
২৭২৮২৯৩০৩১  

সর্বশেষ নিউজ

আরো পড়ুন

Shares