১, এপ্রিল, ২০২০, বুধবার

মেয়েদের উড়ুউড়ু মনটাকে বেঁধে রাখতে হয়- আশনা আরাফ

প্রতিদিনের কাগজ রিপোর্ট :
প্রকাশিত: ১০:৫৭ অপরাহ্ন, ১৪ নভেম্বর ২০১৯, বৃহস্পতিবার


মেয়েদের উড়ুউড়ু মনটাকে বেঁধে রাখতে হয়- আশনা আরাফ

প্রতিকী ছবি

মেয়েদের একটা বয়স থাকে এসময় তারা খুব সাজুগুজু করে। কারনে অকারনে আয়নার সামনে দাঁড়িয়ে থাকে। মায়ের বকা হাজারবার শুনলেও দাঁত কেলিয়ে প্রতিদিন শ্যাম্পু করে। ঠোঁটে হালকা গোলাপি রংয়ের লিপস্টিক দিয়ে বারবার নিজেকে আয়নার সামনে আবিষ্কার করে। সুন্দর করে বেনি করা চুলেও ইচ্ছেমত চিরুনি করে। নষ্ট ঘড়ি হাতে দিয়েও স্টাইল করে। এই সময় তারা সবাইকে বিশ্বাস করে। বন্ধুবান্ধব সবার সাথে অভিমান করে।

এই সময়ে মেয়েদেরকে সবচেয়ে মায়াবী লাগে। যে যেভাবে বুঝায় তারা সেটাকেই ঠিক বুঝে বসে থাকে। প্রতিবাদ করতে পারে না কিন্তু কোনোভাবে অভিযোগ করে ঠিকই । একটু বেশিই প্রায়োরিটি চায় এসময় তারা। যেকোনো দায়িত্ব একা হাতে সামলে নিতে চায় যদিওবা এসময় তাদেরকে কোনো দায়িত্ব দেওয়া হয়না সহজে।

কিছু হারালে কিংবা কষ্ট পেলে ঠিকভাবে প্রকাশ করতে জানেনা শুধু তাকিয়ে থাকে শুন্য শুষ্ক চোখে। যেন কিছু একটা হয়েছে। কিন্তু ধরার কোনো উপায় নেই কি হয়েছে? এই বয়সে এমনটা হয় এই মনে করে অনেকে উড়িয়ে দেয় বিষয়টা।

তারা যেচে কিছু বুঝতে চাইলে ইঁচড়েপাকা আর না চাইলে অভিনেত্রীর ট্যাগ পায়। এইসময় সে একা একা সময় কাটাতে চাইলেও সুযোগ পায়না আবার পরিবার পরিজন কিংবা আপনজনদের কাছে থাকতে চাইলেও কেউ রাখতে চায় না।

এইসময় তাদের পড়ালেখা ভালো না লাগলে কড়া শাসনে থাকতে হয় আবার ভালো লাগলে পড়ুয়া ট্যাগের পচানি খেতে হয়।

মেয়েদের জীবনের এই সময়ে সাধারণত হাই স্কুল থেকে কলেজ পিরিয়ড পর্যন্ত অঅন্তর্ভুক্ত থাকে। এটাকে অনেকটা “Life Learning Period” বলা যেতে পারে। এসময় থেকে ভালো মন্দ, অবহেলা ভালবাসা, আপন পর, ব্যবহার বুঝতে, এবং প্রয়োগ করতে শেখে। এসময় তাদেরকে খুব বেশি ভালবাসা আর একটা স্ট্রং শেডোর প্রয়োজন যা তার ভুল ত্রুটি স্ট্রিক্টলি ধরে ভালবাসা দিয়ে শুধরে দিবে। আর ভাল কিছু কর্মের জন্য দ্বিগুণ ভালবাসায় অনুপ্রেরণা যোগাবে। তাদেরকে বুঝবে এবং খুব কাছে টেনে নিয়ে বলবে আছিতো। ভয় কিসের?

তুমি একা নও!

এই সময় মেয়েরা যা চায় তা বলতে পারেনা আর বললেও তার সেই চাওয়াকে খুব একটা গুরুত্ব দেওয়া হয়না। বয়সের দোষ দিয়ে এড়িয়ে যাওয়া হয়। অথচ এই বয়সটা সবসময় বলে যে তার চাওয়াকে প্রাধান্য দেওয়া হোক। ভুল হলে অপশন রাখা হোক। নয়তো সে শিখবে না সিদ্ধান্ত গ্রহন করতে কিংবা নিজের মতামত তুলে ধরতে। প্রত্যাশা জিরো লেভেলে নেমে আসবে। উড়ুউড়ু মনটাকে বেধে রাখতে হয় তাদেরকে কোনোকিছুই বুঝতে না দিয়ে।
লেখাঃ #আশনা_আরাফ।

মন্তব্য করুন

খবর অনুসন্ধান

সোম মঙ্গল বুধ বৃহ শুক্র শনি রবি
 
১০১১১২
১৩১৪১৫১৬১৭১৮১৯
২০২১২২২৩২৪২৫২৬
২৭২৮২৯৩০  

সর্বশেষ নিউজ

আরো পড়ুন

Shares