২১, অক্টোবর, ২০১৯, সোমবার

পুলিশের পোশাক পরে স্বর্ণের দোকান লুট

জেলা প্রতিনিধি : | আপডেট: ২১, অক্টোবর, ২০১৯, সোমবার

তিনটি স্বর্ণের দোকান থেকে ১০০ ভরি স্বর্ণালঙ্কার, ৭৫ কেজি রুপা, নগদ টাকা ও একটি মোবাইলের দোকান থেকে ৫০টি মোবাইল লুট করে নিয়ে যায় ডাকাত দল।

নারায়ণগঞ্জের আড়াইহাজার উপজেলায় পুলিশের পোশাক পরে নৈশপ্রহরীর হাত-পা বেঁধে ৩টি স্বর্ণের দোকানে দুর্ধর্ষ ডাকাতির ঘটনা ঘটেছে। সোমবার রাত আড়াইটার দিকে উপজেলার কালাপাহাড়িয়া ইউনিয়নের রাধানগর এলাকায় এ ডাকাতির ঘটনা ঘটে। মঙ্গলবার সকালে ঘটনাস্থল পরিদর্শন করে পুলিশ।

ঘটনাস্থল থেকে মাত্র একশ গজ দূরে স্থানীয় পুলিশ ফাঁড়ি হওয়া সত্ত্বেও ডাকাতির সময় পুলিশ না আসায় উদ্বেগ প্রকাশ করেছে স্থানীয়রা।

ভুক্তভোগী এক দোকানদার বলেন, রাতে দোকান বন্ধ করে বাড়িতে চলে যাই। গভীর রাতে মার্কেটের নৈশপ্রহরী আব্দুল ও হাশেমের হাত-পা বেঁধে অস্ত্রের মুখে জিম্মি করে তিনটি স্বর্ণের দোকান ও একটি মোবাইলের দোকানের তালা ভেঙে ডাকাতি করে ২৫-৩০ জনের ডাকাত দল। আমার দোকান থেকে ৭০ ভরি স্বর্ণালঙ্কার, ৪০ কেজি রুপা ও নগদ ৭ লাখ টাকা লুট করে নিয়ে যায় ডাকাতরা। সকালে নৈশপ্রহরীর কাছে জানতে পারি ডাকাত দল পুলিশের পোশাক পরে এসেছে। মুখোশ পরে ডাকাতি করেছে তারা।

নৈশপ্রহরী হাশেম বলেন, পুলিশের পোশাক পরে একদল ডাকাত অস্ত্র হাতে প্রথমে আমার হাত-পা বেঁধে মাটিতে ফেলে রাখে। পরে আব্দুলের হাত-পা বেঁধে আমার সামনে ফেলে রাখে। ডাকাতরা অস্ত্রের ভয় দেখিয়ে বলে শব্দ করলে মেরে ফেলব। এ অবস্থায় আমাদের চোখের সামনে মার্কেটের তিনটি স্বর্ণের দোকান ও একটি মোবাইলের দোকানের তালা ভেঙে ভেতরে প্রবেশ করে তারা। পরে দুটি বস্তায় মালামাল লুট করে নিয়ে যায়। ডাকাতরা মুখোশধারী ছিল। কাউকে চিনতে পারিনি আমরা।

পুলিশ জানায়, খবর পেয়ে সকালে ঘটনাস্থল পরিদর্শন করা হয়। উপজেলার রাধানগর এলাকার তিনটি স্বর্ণের দোকান ও একটি মোবাইলের দোকানের মালামাল লুটে নিয়ে গেছে ডাকাতরা। ঘটনায় জড়িতদের চিহ্নিত করে গ্রেপ্তার করা হবে। সেই সঙ্গে মালামাল উদ্ধার করা হবে। পুলিশের পোশাক পরে ঘটনাটি ঘটানো হয়েছে বলে লোকজন জানিয়েছে। বিষয়টি গুরুত্ব দিয়ে তদন্ত করছি আমরা।

আরো পড়ুন

%d bloggers like this: