২১, অক্টোবর, ২০১৯, সোমবার

এবার ‌‘বরভাত’ করে আলোচনায় সেই নবদম্পতি

: | আপডেট: ২১, অক্টোবর, ২০১৯, সোমবার

প্রচলিত নিয়ম ভেঙে বিয়ে করে আলোচনায় চুয়াডাঙ্গার মেয়ে খাদিজা আক্তার খুশি ও মেহেরপুরের ছেলে তরিকুল ইসলাম জয়। ব্যতিক্রমী আয়োজনে বিয়ের পর এবার কনের বাড়িতে বরভাত আয়োজন করে আবারও দেশ জুড়ে আলোচনায় নতুন এই দম্পতি। দেশ রূপান্তরসাধারণত বরযাত্রী নিয়ে বর কনের বাড়িতে যায় বিয়ে করতে। কিন্তু উল্টো চিত্র হয়েছে মেহেরপুরের গাংনীতে।

প্রচলিত নিয়ম ভেঙে বিয়ে করে আলোচনায় চুয়াডাঙ্গার মেয়ে খাদিজা আক্তার খুশি ও মেহেরপুরের ছেলে তরিকুল ইসলাম জয়। ব্যতিক্রমী আয়োজনে বিয়ের পর এবার কনের বাড়িতে বরভাত আয়োজন করে আবারও দেশ জুড়ে আলোচনায় নতুন এই দম্পতি। দেশ রূপান্তর

সাধারণত বরযাত্রী নিয়ে বর কনের বাড়িতে যায় বিয়ে করতে। কিন্তু উল্টো চিত্র হয়েছে মেহেরপুরের গাংনীতে। সেখানে কনে প্রায় শতাধিক যাত্রী নিয়ে বিয়ে করেছে বরের বাড়িতে গিয়ে।

গত শনিবার ব্যতিক্রমী এই বিয়ে নিয়ে রীতিমতো আলোচনায় চুয়াডাঙ্গার মেয়ে খাদিজা আক্তার খুশি ও মেহেরপুর গাংনীর ছেলে তরিকুল ইসলাম জয়।

শুধু ব্যতিক্রমী বিয়ে করেই থেমে থাকেনি এই নবদম্পতি। রোববার আবারও ব্যতিক্রমী আয়োজনে করেছে ‌‘বরভাত’।

প্রায় অর্ধ শতাধিক লোকজন নিয়ে বর আসেন চুয়াডাঙ্গার হাজরাহাটি গ্রামে কনের বাড়িতে নিমন্ত্রণ খেতে। এমন খবর ছড়িয়ে পড়লে উৎসুক জনতার ভিড় নামে কনের বাড়িতে।

যুগ যুগ ধরে চলে আসা বিয়ের প্রথা ভেঙে ব্যতিক্রমী আয়োজনে বিয়ে প্রসঙ্গে কথা বলেন বর কনে দুই জনেই।

কনে খাদিজা আক্তারের মতে সমাজে নারী পুরুষের ব্যবধান কমাতে তাদের এই আয়োজন। এমন আয়োজনে পুরুষ শাসিত এ সমাজে নারীর সম অধিকার কিছুটা হলেও নিশ্চিত হবে বলে মত।

একেবারে ভিন্ন আয়োজনে বিয়ের পর ও বরভাত বর তরিকুল ইসলাম জয় বলেন, দেশে প্রথমবারের মত ব্যতিক্রমী বিয়ের পর একই ভাবে বরভাত। আয়োজনটি ছিল চমৎকার। বহু লোকজন আমাদেরকে দেখতে আসছে। দোয়া করছেন। এ এক অন্যরকম অনুভূতি।

চিরাচরিত নিয়ম ভেঙে ভিন্ন এক বিয়ের আয়োজনে দারুণ খুশি বর কনে দুই জনের পরিবারের লোকজনও।

কনের বাবা চুয়াডাঙ্গা জেলার হাজরাহাটি গ্রামের কামরুজ্জামান বলেন, ছেলে মেয়ের এমন বিয়ের আয়োজন ভালই লাগছে। শুধু নিজ গ্রাম নয় ছেলে মেয়ের বিয়ে ও বৌ ভাতের পরিবর্তে বরভাত আয়োজন দেখতে জেলার বিভিন্ন স্থান থেকেও লোকজন এসেছে ব্যতিক্রমী আয়োজন দেখতে। তাদেরও আমরা সম্মান দেখিয়ে আপ্যায়ন করেছি সাধ্যমতো।

ছেলের বাবা আব্দুল মাবুদ বলেন, ব্যতিক্রম সব সময়ই চমকের হয়। আমার ছেলে- বৌ ব্যতিক্রমী বিয়েতে গর্ববোধ হচ্ছে আমার। এটি একটি ইতিহাস হয়ে থাকবে।

প্রসঙ্গত, বিয়ে করতে সাধারণত কনের বাড়িতে যান বরযাত্রী। কিন্তু বিয়ের এই প্রথা ভেঙে মেহেরপুরের ছেলে আর চুয়াডাঙ্গার এক মেয়ে গড়েছেন ব্যতিক্রমী ইতিহাস।

শনিবার ঢাকঢোল পিটিয়ে, গানের তালে তালে গাড়ির সামনে কনে বেশে বসে বরের বাড়িতে গিয়ে বিয়ে করেন চুয়াডাঙ্গার মেয়ে খাদিজা আক্তার খুশি। বরের বাড়িতে কনেপক্ষের শতাধিক অতিথির সঙ্গে বরপক্ষের তিন শতাধিক আমন্ত্রিত অতিথি ছিল। আর এই বিয়ে দেখতে হাজির হয়েছিলেন বিভিন্ন বয়সের প্রায় দুই হাজার নারী পুরুষ।

আরো পড়ুন

%d bloggers like this: