১৪, নভেম্বর, ২০১৯, বৃহস্পতিবার

অবধারিত জয় হাতছাড়া বাংলাদেশের

স্পোর্টস ডেস্ক :
প্রকাশিত: ৫:১৩ পূর্বাহ্ন, ১৪, নভেম্বর, ২০১৯, বৃহস্পতিবার

নিউজটি পড়া হয়েছে ০ বার

শক্তি, সাম্প্রতিক পরিসংখ্যান, অতীত ইতিহাস, র‌্যাংকিং সব দিক দিক দিয়েই ভারতের চেয়ে বেশ পেছনে বাংলাদেশ। মঙ্গলবার কলকাতার সল্ট লেক স্টেডিয়ামে প্রতিপক্ষের বিপক্ষে মাঠের ফুটবলে সে সবের ছিঁটে ফোঁটাও পড়তে দেয়নি লাল-সবুজ প্রতিনিধিরা। ম্যাচের শুরু থেকেই আধিপত্য ধরে রাখে জামাল ভুঁইয়ার দল। প্রথমার্ধে এগিয়েও গিয়েছিল অতিথিরা। স্বাভাবিকভাবেই জয়েই স্বপ্নই বুনছিল জেমি ডে’র শিষ্যরা। শেষ পর্যন্ত অবশ্য ম্যাচের শেষ দিকে নিজেদের ভুলে গোল হজম করে অবধারিত জয় হাতছাড়া হয়েছে লাল-সবুজ প্রতিনিধিদের।

২০২২ কাতার বিশ্বকাপ ও ২০২৩ সালের এশিয়ান কাপের বাছাইয়ের দ্বিতীয় রাউন্ডের ম্যাচে মঙ্গলবার কলকাতায় ভারতের বিপক্ষে ১-১ গোলে ড্র করেছে বাংলাদেশ। এদিন ম্যাচের ৪১তম মিনিটে সাদের গোলে এগিয়ে গিয়েছিল লাল-সবুজ প্রতিনিধিরা। কিন্তু একবারে ম্যাচের শেষ দিকে অর্থাৎ ৮৮তম মিনিটে সফরকারীরা গোল হজম করে বসে। সে সময় স্বাগতিকদের হয়ে সমতায় ফেরার গোলটি করেন আদিল খান।

মঙ্গলবার শুরু থেকেই ভারতের বিপক্ষে আধিপত্য ধরে রাখে বাংলাদেশ। সে সুবাধে লাল-সবুজ প্রতিনিধিরা একাধিকবার গোলের সুযোগ তৈরি করেছিল। এরমধ্যে আবার ভাগ্য ভালো হলে প্রথমার্ধে পেনাল্টির দেখা পেতে পারতো জেমি ডে’র শিষ্যরা। কিন্তু রেফারির ভুলে সেটা না পাওয়ার আক্ষেপে পুড়ে সফরকারীরা। তবে বিরতির আগে সাদের গোলে এগিয়ে যায় জামাল ভুঁইয়ার শিষ্যরা। পরে অবশ্য ব্যবধান ধরে রাখতে পারেনি। ম্যাচের শেষ দিকে গোল হজম করে নিশ্চিত জয় বঞ্চিত হয় লাল-সবুজ প্রতিনিধিরা।

দীর্ঘ ৩৪ বছর পর কলকাতায় আরেকটি বিশ্বকাপ বাছাইপর্বের ম্যাচ। যে কারণে মঙ্গলবার কলকাতার সল্ট লেক স্টেডিয়ামে তিল ধারণের জায়গা ছিলো না। সমর্থনও ছিল স্বাগতিকদের পক্ষে। উঠেছিল স্লোগান। কিন্তু ৪২ মিনিটে বিশ্বের অন্যতম বড় এ স্টেডিয়ামের বেশির ভাগ অংশে পিনপতন নীরবতা নামিয়ে আনেন সাদ উদ্দিন। বাংলাদেশকে এগিয়ে দেওয়া গোলটা যে এ রাইট উইঙ্গারের। সে সময়ে জামালের ফ্রি কিকে গুরপ্রিত সিং লাফিয়ে উঠে নাগাল পাননি। দুরের পোস্টে থাকা সাদউদ্দিন দারুণ হেডে এগিয়ে নেন দলকে। কিন্তু ৮৮ মিনিটে আদিলের হেডে জয় নিয়ে আর মাঠ ছাড়তে পারেনি বাংলাদেশ।

গুরুত্বপূর্ণ ম্যাচে ৪-১-৪-১ ফরমেশনে খেলেছিল বাংলাদেশ। ভারত এর জবাবে বড় পাসে খেলার চেষ্টা করে। তারপরও প্রথমার্ধের ৮ মিনিটের মধ্যেই দুই গোল ব্যবধানে এগিয়ে যেতে পারত বাংলাদেশ। ২০ সেকেন্ডের মাথায় বাঁ প্রান্ত দিয়ে আক্রমণে উঠেছিলেন লেফট উইঙ্গার ইব্রাহিম। তাকে বক্সের মধ্যে ফেলে দেন ভারতের রাহুল ভেকে। পরিষ্কার দেখা গেছে, তাঁকে বেআইনিভাবে ফাউল করেছেন ভেকে। ভিডিও অ্যাসিস্ট্যান্ট রেফারি (ভিএআর) না থাকায় সে যাত্রায় বেঁচে যায় ভারত। এরপর ৮ মিনিটে ভারতের বক্সের মধ্যে সেই ভেকেই আবারও অবৈধভাবে ফাউল করেছিলেন। এ যাত্রায়ও পেনাল্টি দেননি রেফারি। প্রথমার্ধে ৩১ মিনিটে নাবীব নেওয়াজ জীবন মিস করেন আরেকটি গোলের সুযোগ। এদিকে ৪ মিনিটের মাথায় ভারতের সেরা ফরোয়ার্ড সুনীল ছেত্রীর ভলি রুখে দেন বাংলাদেশ গোলরক্ষক আশরাফুল।

প্রতিপক্ষের মাঠে রক্ষণ বেশ গোছাল ছিল বাংলাদেশ। কিন্তু আক্রমণে এগিয়ে ছিল ভারত। তারপরও প্রতিপক্ষকে ম্যাচের ৮৮তম মিনিট পর্যন্ত খুব একটা সুযোগ দেয়নি লাল-সবুজরা। কিন্তু এরপরই ব্রেন্ডন ফেরনান্দেসের কর্নারে আদিলের বুলেট হেডে পরাস্ত হন বাংলাদেশের গোলরক্ষক রানা। যে কারণে জয়ের স্বপ্ন দেখা বাংলাদেশ শেষ পর্যন্ত ১-১ গোলের ড্র নিয়ে ফেরে।

মন্তব্য করুন

খবর অনুসন্ধান

সোম মঙ্গল বুধ বৃহ শুক্র শনি রবি
 
১০
১১১২১৩১৪১৫১৬১৭
১৮১৯২০২১২২২৩২৪
২৫২৬২৭২৮২৯৩০  

সর্বশেষ নিউজ

আরো পড়ুন

Shares