বুধবার, ২৩ সেপ্টেম্বর ২০২০, ২:৩২ এএম

সালমান শাহ স্মরণে এফডিসিতে বিশেষ আয়োজন

বিনোদন ডেস্ক :
প্রকাশিত: ৭:০৯ অপরাহ্ন, ৬ সেপ্টেম্বর ২০২০, রোববার


সালমান শাহ স্মরণে এফডিসিতে বিশেষ আয়োজন

পুরনো ছবি

বাংলা চলচ্চিত্রের কিংবদন্তি নায়ক সালমান শাহ। ১৯৯৬ সালের আজকের এই দিনে না ফেরার দেশে পাড়ি জমান স্বপ্নের এই নায়ক। মৃত্যুর দুই যুগ পর এখনো তার অভাব অনুভব করেন ফিল্ম ইন্ডাস্ট্রির পরিচালক-প্রযোজক ও অভিনয় শিল্পীরা। তাই তো প্রতি বছর অমর নায়কের জন্ম বা মৃত্যুদিন এলেই তার স্মরণে কোনো না কোনো আয়োজন থাকবেই।

প্রয়াত নায়ক সালমান শাহ’র প্রয়াণ দিবস উপলক্ষে তার রুহের মাগফেরাত কামনায় আজ এফডিসিতে বিশেষ দোয়ার আয়োজন করা হয়েছে। বাদ আসর বাংলাদেশ চলচ্চিত্র শিল্পী সমিতির আর্টিস্ট স্টাডি রুমে মিলাদ মাহফিলের আয়োজন করেছে শিল্পী সমিতি।

জায়েদ খান বলেন, ‘সালমান শাহ আমাদের ইন্ডাস্ট্রির কিংবদন্তি নায়ক। আমিও তার ভক্ত। বাংলা চলচ্চিত্রে তার অবদান চির স্মরণীয়। দায়িত্ববোধের জায়গা থেকেই সালমান ভাইয়ের আত্মার মাগফেরাত কমনায় শিল্পী সমিতিতে দোয়ার আয়োজন করা হয়েছে।’

সালমান শাহর জন্ম ১৯৭১ সালের ১৯ সেপ্টেম্বর সিলেটে। পারিবারিক নাম শাহরিয়ার চৌধুরী ইমন। কিন্তু পর্দায় তিনি সালমান শাহ নামেই পরিচিত ছিলেন। ১৯৯৩ সালে সোহানুর রহমান সোহানের ‘কেয়ামত থেকে কেয়ামত’ ছবির মধ্যদিয়ে অমর এই নায়কের অভিনয়ে অভিষেক। এরপর তাকে আর পেছন ফিরে তাকাতে হয়নি। মাত্র চার বছরে বাংলা চলচ্চিত্র তিনি দিয়ে গেছে অসংখ্য ব্যবসা সফল ছবি। শুধু তাই নয়, ইন্ডাস্ট্রিতে তার অবদান, সত্যিই অকল্পনীয়।

দেশের সেরা এই নক্ষত্রটিরই পতন হয় ১৯৯৬ সালের ৬ সেপ্টেম্বর। এদিন সালমান শাহর ঝুলন্ত দেহ তার শোয়ার ঘর থেকে উদ্ধার করেছিলেন পরিবারের লোকেরা। সেসময় তিনি ‘মন মানে মানে’, ‘কে অপরাধী’, ‘তুমি শুধু তুমি’, ‘প্রেমের বাজি’সহ কয়েকটি ছবির কাজ করছিলেন। সেগুলোর কাজ অসমাপ্ত রেখেই চলে যান না ফেরার দেশে।

সালমানের মৃত্যু নিয়ে রয়েছে ধোয়াসা। যা আজও কাটেনি। ডাক্তারি রিপোর্ট অনুযায়ী এই নায়ক আত্মহত্যা করেছেন বলা হলেও তার পরিবারের দাবি, সালমানকে পরিকল্পিতভাবে হত্যা করা হয়েছে। অভিযোগের আঙুল উঠে তার স্ত্রী সামিরার দিকে। দুই যুগেও উদঘাটিত হয়নি অমর নায়কের মৃত্যু-রহস্য।

মন্তব্য করুন

সর্বশেষ নিউজ

আরো পড়ুন