রোববার, ২০ সেপ্টেম্বর ২০২০, ১২:২৭ এএম

নারায়ণগঞ্জে মসজিদে এসি বিস্ফোরণ: চিকিৎসাধীন অবস্থায় শিশুর মৃত্যু

নিজস্ব প্রতিবেদক :
প্রকাশিত: ৯:২৮ পূর্বাহ্ন, ৫ সেপ্টেম্বর ২০২০, শনিবার


নারায়ণগঞ্জে মসজিদে এসি বিস্ফোরণ চিকিৎসাধীন অবস্থায় শিশুর মৃত্যু

ছবি : সংগৃহীত

নারায়ণগঞ্জের পশ্চিম তল্লা এলাকার পশ্চিম তল্লা বায়তুস সালাত জামে মসজিদে একসঙ্গে ছয়টি এসির এসি বিস্ফোরণের ঘটনায় আহত জুয়েল নামের এক শিশু চিকিৎসাধীন অবস্থায় মারা গেছে। সে রাজধানীর শেখ হাসিনা বার্ন অ্যান্ড প্লাস্টিক সার্জারি ইনস্টিটিউটে চিকিৎসাধীন ছিল।

গতকাল শুক্রবার রাত সাড়ে ১২টার দিকে মারা যায় জুয়েল। তার বয়স আনুমানিক ৮ বছর।

শেখ হাসিনা জাতীয় বার্ন অ্যান্ড প্লাস্টিক সার্জারি ইনস্টিটিউটের প্রধান সমন্বয়ক ডা. সামন্ত লাল সেন শিশুর মৃত্যুর বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন।

তিনি জানান, মারা যাওয়া জুয়েলের শরীরের ৯৫ শতাংশ পোড়া ছিল।

ঢাকা মেডিকেল কলেজ (ঢামেক) হাসপাতালের পুলিশ ফাঁড়ির ইনচার্জ পরিদর্শক বাচ্চু মিয়াও বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন।

তিনি জানান, নিহতের মরদেহ হাসপাতালেই রয়েছে। এ পর্যন্ত এসি বিস্ফোরণে অগ্নিদগ্ধ ৩৭ জন শেখ হাসিনা জাতীয় বার্ন অ্যান্ড প্লাস্টিক সার্জারি ইনস্টিটিউটের ভর্তি হয়েছেন।

উল্লেখ্য, গতকাল শুক্রবার রাত সাড়ে আটটার দিকে নারায়ণগঞ্জ শহরের খানপুর তল্লা এলাকার বায়তুস সালাত জামে মসজিদে এশার নামাজের সময় এসি বিস্ফোরণের ঘটনা ঘটে। এ ঘটনায় অর্ধ-শতাধিক মুসল্লি আহত হন। দুর্ঘটনায় মসজিদটির ইমাম আবদুল মালেক (৬০) এবং মুয়াজ্জিন দেলোয়ার হোসেনও (৫০) আহত হয়েছেন।

মসজিদে এসি বিস্ফোরণের খবর পেয়ে ফায়ার সার্ভিসের পাঁচটি ইউনিট ঘটনাস্থলে গিয়ে আগুন নিয়ন্ত্রণে আনে। এ বিষয়ে ফায়ার সার্ভিস ও সিভিল ডিফেন্স নারায়ণগঞ্জ অফিসের উপ-সহকারী পরিচালক আবদুল্লাহ আরেফিন বলেন, ‘মসজিদের মেঝের নিচ দিয়ে গ্যাসের লাইন গেছে। পানি দেওয়ার সময় বুদ বুদ করে গ্যাস বের হচ্ছিল। বিস্ফোরণে অনেক মানুষ দগ্ধ হয়েছেন। তাদের স্থানীয় হাসপাতাল ও ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে পাঠানো হয়েছে।’

বিস্ফোরণে মসজিদটির ছয়টি এসি পুড়ে গেছে। ফায়ার সার্ভিসের কর্মীরা প্রাথমিকভাবে ধারণা করছেন, মসজিদের সামনের গ্যাসের লাইনের লিকেজ থেকে এই বিস্ফোরণ হয়ে থাকতে পারে।

মন্তব্য করুন

সর্বশেষ নিউজ

আরো পড়ুন