শনিবার, ১৫ আগস্ট ২০২০, ১:৩৭ এএম

মিশা-জায়েদের পক্ষে ডিপজলের হুঁশিয়ারি

বিনোদন প্রতিবেদক:
প্রকাশিত: ৭:২৯ অপরাহ্ন, ২০ জুলাই ২০২০, সোমবার


সংগঠনের সভাপতি-সাধারণ সম্পাদক মিশা সওদাগর-জায়েদ খানকে বয়কটের প্রতিবাদে রোববার (১৯ জুলাই) সন্ধ্যায় চলচ্চিত্র শিল্পী সমিতি বিএফডিসির জহির রায়হান কালার ল্যাব অডিটোরিয়ামে সংবাদ সম্মেলন করে।
এ সময় অভিনেতা মনোয়ার হোসেন ডিপজল হুঁশিয়ারি দেন, তিনি বেঁচে থাকতে কেউ সমিতিকে একটি টোকাও দিতে পারবে না। চলচ্চিত্রের ১৮ সংগঠনকে সাত দিনের আলটিমেটাম দেন সমিতির সভাপতি মিশা সওদাগর। অন্যদিকে প্রযোজক-পরিচালকদের এমন অবস্থান দেখে কান্নায় ভেঙে পড়েন অভিনেত্রী অঞ্জনা।
গত ১৫ জুলাই বিএফডিসিতে সংবাদ সম্মেলন করে চলচ্চিত্রের ‘স্বার্থবিরোধী কর্মকাণ্ড’র অভিযোগে অভিনেতা মিশা সওদাগর ও জায়েদ খানকে অনির্দিষ্টকালের জন্য বয়কটের ঘোষণা দেয় চলচ্চিত্র সংশ্লিষ্ট ১৮টি সংগঠন। ঘোষণায় বলা হয়, যদি এই দুই অভিনেতাকে নিয়ে কোনো পরিচালক বা প্রযোজক কাজ করেন, তাহলে তাঁদেরও সদস্যপদ বাতিল করা হবে। এরই প্রতিবাদে গতকাল এফডিসিতে সংবাদ সম্মেলন করে চলচ্চিত্র শিল্পী সমিতি। অন্যদিকে শিল্পী সমিতির সাধারণ সম্পাদক জায়েদ খান ও সভাপতি মিশা সওদাগরের পদত্যাগ চেয়ে গতকাল রাস্তায় নামেন সদস্যপদ হারানো শিল্পীরা। তাঁদের দাবি, ক্ষমতার অপব্যবহার করে ১৮৪ জনের সদস্যপদ বাতিল করেছেন জায়েদ খান। এই কাজে তাঁকে সহায়তা করেছেন মিশা সওদাগর। তাই এ দুজনের পদত্যাগ চেয়ে একত্রিত হন তাঁরা।
রোববার সকাল ১১টার দিকে শতাধিক সদস্যপদ হারানো শিল্পী বিএফডিসির গেটের সামনে মানববন্ধন করেন। যে নেতারা শিল্পীদের সম্মান করেন না, তাঁদের পদত্যাগ চান বলে স্লোগান তোলেন তাঁরা। পাশাপাশি ভোটাধিকার ফিরে পাওয়ার দাবিও জানান। এ সময় অভিনেত্রী সাদিয়া মির্জা, ফিরোজ সাঁই, শান, সাজিদ প্রিন্স, রমিজউদ্দিন, হিরো আলমসহ আরো অনেকে উপস্থিত ছিলেন।
সন্ধ্যায় শিল্পী সমিতির সংবাদ সম্মেলনে হুঁশিয়ার করে মনোয়ার হোসেন ডিপজল বলেন, ‘শিল্পী সমিতি ভাঙবে, বাংলাদেশে এমন কেউ জন্মায়নি। আমি ডিপজল জীবিত থাকা অবস্থায় শিল্পী সমিতিতে টোকা দেবে, তেমন কেউ বাংলাদেশে জন্মায়নি।’ মিশা-জায়েদ তাঁদের দায়িত্ব ঠিকভাবে পালন করছেন বলেও জানান তিনি। এ ছাড়া আগামীতে বেশ কিছু চলচ্চিত্র নির্মাণ করবেন বলেও ঘোষণা দেন।
সংবাদ সম্মেলনে সাত দিনের আলটিমেটাম দিয়ে মিশা সওদাগর বলেন, ‘কার্যনির্বাহী পরিষদের সিদ্ধান্ত অনুযায়ী আগামী সাত দিনের মধ্যে বয়কটের বিষয়ে সম্মানজনক সমাধান না হলে আমরা চলচ্চিত্রের শিল্পী সমিতির সব সদস্য অনির্দিষ্টকালের জন্য কর্মবিরতিতে যাব।’ তিনি সবাইকে সঙ্গে নিয়ে চলচ্চিত্রশিল্পকে বাঁচানোর আহ্বানও জানান। এ সময় মিশা সওদাগর ‘স্বার্থবিরোধী’ কর্মকাণ্ডে জড়িত থাকার অভিযোগ অস্বীকার করেন।
জায়েদ খান বলেন, ‘আমি কী এমন করেছি, যে কারণে আমাকে হেয় করা হচ্ছে। এখানে অন্য কাউকে নয়, আমাদের দুজনকে (মিশা-জায়েদ) ছোট করা হচ্ছে। শিল্পীকে কেউ এভাবে বয়কট করতে পারেন না। কেন চলচ্চিত্র অঙ্গনকে তাঁরা সার্কাসে পরিণত করছেন?
সংবাদ সম্মেলনে জনপ্রিয় অভিনেত্রী অঞ্জনা অভিনেতা আশীষ কুমার লৌহের একটি কথা স্মরণ করে বলেন, ‘তিনি আমাকে বলেছিলেন, অভিনয় তো করতে এসেছিস। সব সময় মনে রাখবি, প্রযোজকরা হচ্ছে বাবা আর পরিচালকরা হচ্ছে মা। তাদের সব সময় বাবা-মায়ের মতো সম্মান করেছি। আজ মিশা-জায়েদকে বয়কট করা হলো। কে করেছে, বাবা-মায়েরা? বাবা-মা সন্তানের সঙ্গে এমন কাণ্ড করতে পারেন?’ এ সময় চলচ্চিত্রের নানান বিষয় তুলে ধরে কান্নায় ভেঙে পড়েন অঞ্জনা।
সংবাদ সম্মেলনে উপস্থিত ছিলেন চিত্রনায়ক ইলিয়াস কাঞ্চন, ডিপজল, অঞ্জনা, মাসুম বাবুল, আলেকজান্ডার বো, জ্যাকি আলমগীর, আজিজ রেজা, আমির সিরাজী, ফরহাদ হোসেন, ইমদাদুল হক খোকন, আব্দুল আজিজ, আসিফ ইকবাল, মারুফ আকিব, শাহনূর, জাকির হোসেন, রিনা খান, জেসমিন, হায়দার আলী, হাসমত, আন্না, সাগর, জয় চৌধুরীসহ অনেকে। অনুষ্ঠান সঞ্চালনায় ছিলেন চিত্রনায়ক রুবেল।

মন্তব্য করুন

সর্বশেষ নিউজ

আরো পড়ুন