সোমবার, ১০ আগস্ট ২০২০, ১০:৪৪ এএম

অশ্বদিয়ায় জাহের সদাগর বাড়িতে দুর্ভিত্তের হামলা, নগদটাকা ও স্বর্নালংকার লুট

এ আর আজাদ সোহেল, নোয়াখালী::
প্রকাশিত: ৯:১৬ অপরাহ্ন, ৮ জুলাই ২০২০, বুধবার


অশ্বদিয়ায় জাহের সদাগর বাড়িতে দুর্ভিত্তের হামলা, নগদটাকা ও স্বর্নালংকার লুট

নোয়াখালী সদর উপজেলার ১০ নং অশ্বদিয়া ইউপির পশ্চিম অশ্বদিয়া গ্রামে বুধবার গভীর রাতে জাহের সদাগর বাড়িতে দুর্ভিত্তের হামলা,ভাংচুর ,নগদ টাকা ও স¦র্নালংকার লুটপাটের ঘটনা ঘটেছে। এসময় বাড়িটি ছিল জনশুন্য।
সরজমিনে ঘটনাস্থল গেলে স্থানীয় এলাকাবাসি ও জাহের সদাগরের বড় ছেলে নোমানের স্ত্রী বৃষ্টি জানান, তার স্বামী, শশুর , শাশুড়ী, দেবরকে পার্শ্ববর্তী মোমিন উল্যাহ গং মিথ্যা মামলা দিয়ে গ্রেফতার করিয়ে জেল হাজতে প্রেরন করে। এসময় পুরো বাড়িতে সে একা হয়ে যাওয়ায় ভয়ে তিনি তাদের পুরান বাড়িতে নানি শাশুড়ীর কাছে চলে যান।

সকালে বাড়ি এসে দেখে সব লন্ডভন্ড। রাতে কে বা কারা এসে বাড়ির সব ভাংচুর ও লুটাপাট করে নিয়ে যায়। সে আরো জানায় বাড়িতে গত ৮ দিন আগে তার শশুর জাহের সদাগর দোকান ভিটি বিক্রি করে ৬ লাখ টাকা এনে আলমেরিতে রেখে ছিল। আলমেরীতে তার শাশূড়ী ও তার স্বর্ন মিলে প্রায় ৩ ভরি স্বর্ন ছিল। দুর্ভিত্তরা সব ভাংচুর করে টাকা ও স্বর্ন নিয়ে যায়। সকালে এলাকাবাসি ও আত্বীয় সজন এসে সব দেখে এবং পুলিশকে খবর দেয়।

খবর পেয়ে সদর সার্কেল এসপি, সুধারাম থানার ওসি নবীর হোসেন, স্থানীয় চেয়ারম্যান গোলাম হোসেন বাবলু, ওয়ার্ড মেম্বার সুমন, ঘটনাস্থল পরিদর্শন করেন ।

উল্যেখ্য গত কয়েকদিন আগে জাহের সদাগরের পুত্র নোভেল ও একই এলাকার মোমীন উল্যাহ’র মেয়ে মীম ভালোবাসার টানে বাড়ি থেকে পালিয়ে যায়।

এ ঘটনায় মোমিন উল্যাহ সুধারাম মডেল থানায় জাহের সদাগর সহ পরিবারের অণ্য সদস্যদের নামে মামলা করেন। পুলিশ জাহের সদাগর তার স্ত্রী,অপর ২ ছেলে নোমান ও অন্তরকে গ্রেফতার করে হাজতে প্রেরণ করে। একারনে তাদের বাড়িতে ছেলের বউ ছাড়া কেউ নেই।

বুধবার নোমানের বউ নানা শশুর বাড়িতে রাত্রীযাপন করলে বাড়িটি জনশুন্য হয়ে পড়ে। এসুযোগে দুর্ভিত্তরা বাড়ি লুট করে। এ ঘটনায় জাহেল সদাগরের পরিাবর প্রতিপক্ষ মোমিন উল্যাদের দায়ী করছেন। এ বিষয়ে মামলার প্রস্তুতি চলছে বলে ভোক্তভুগি পরিাবর   জানান।

মন্তব্য করুন

সর্বশেষ নিউজ

আরো পড়ুন