২০, আগস্ট, ২০১৯, মঙ্গলবার | | ১৮ জ্বিলহজ্জ ১৪৪০


তাহেরপুর পৌরসভায় ভিজিএফের চাল বিতরণে কারচুপির অভিযোগ

রিপোর্টার নামঃ নাজিম হাসান, রাজশাহী প্রতিনিধি: | আপডেট: ১৪ আগস্ট ২০১৮, ১০:৪৭ পিএম

তাহেরপুর পৌরসভায় ভিজিএফের চাল বিতরণে কারচুপির অভিযোগ
তাহেরপুর পৌরসভায় ভিজিএফের চাল বিতরণে কারচুপির অভিযোগ

রাজশাহীর বাগমারা উপজেলার তাহেরপুর পৌরসভায় পবিত্র ঈদ-উল-আযহা উপলক্ষে বিশেষ সহায়তা গরীব,অসহায় ও দুঃস্থদের জন্য বরাদ্দকৃত ভিজিএফ-এর চাল বিতরণে কারচুপি ও অনিয়মের অভিযোগ পাওয়া উঠেছে। ৯ টি ওয়ার্ডে ৪৬ শত ভিজিএফ কার্ডধারীর মাঝে ২০ কেজি করে চাউল বিতরন করার কথা। সে অনুযায়ী সকাল থেকে তাহেরপুর কলেজ চত্বরে বিভিন্ন ্ওয়ার্ডের লোকজন আসতে শুরু করেন।

মঙ্গলবার সকালে ড়িগ্রি কলেজ চত্বরে পৌরসভায় ৪ হাজার ৬০০ জন দুস্থের মধ্যে ভিজিএফের চাল দুই বালতি করে বিতরণ শুরু করেন মেয়র আবুল কালাম আজাদ। সে সময় গরীব,অসহায় ও দুঃস্থরা বিশ কেজি চাউল পেলেও মেয়র আবুল কালাম আজাদ সেখান থেকে চলে গেলে সংরক্ষিত মহিলা কাউন্সিলর এবং ওয়ার্ড় কাউন্সিলরা তাদের মনোনিত লোকজন এবং আনছার ভিডিপির সদস্যরে দিয়ে গরীব,অসহায় ও দুঃস্থদের ভোটার আইডি কার্ড নিয়ে চাল বিতরণ শুরু করেন।

এসময় সরকারের বরাদ্দ দেওয়া ২০ কেজি ভিজিএফ-এর চাল বিতরণের পরিবর্তনে দেওয়া হয় ১২ থেকে সাড়ে ১৩ কেজি করে চাল। পরে চাল পাওয়া দুস্থরা বাড়িতে গিয়ে চাল মেপে দেখেন,সাড়ে ছয় কেজি করে চাল ওজনে কম দেয়া হয়েছে। পরে গরীব,অসহায় ও দুঃস্থ লোকজন সরকারের বরাদ্দ দেওয়া ২০ কেজি ভিজিএফ-এর চাল বিতরণে অনিয়ম,ওজনে কম দেয়ায় সংরক্ষিত মহিলা কাউন্সিলর এবং ওয়ার্ড় কাউন্সিলদের কাছে অভিযোগ জানালে তারা তাদেরকে ধমক দিয়ে জোর পূর্বক সেখান থেকে তাড়িয়ে দেওয়া হয়েছে বলে ভুক্তভুগিরা অভিযোগ করেন।

ভূক্তভোগীদের অভিযোগ,চাল কম দেয়ার বিষয়টি আমরা তাৎক্ষনিক উপস্থিত কর্মকর্তাদের জানিয়ে এর প্রতিকার দাবি করেছি। প্রায় দু ঘন্টা বসে থাকার পরও উপস্থিত কর্মকর্তারা এ ব্যাপারে কোন কার্যকর পদক্ষেপ না নেয়ায় আমরা বাধ্য হয়ে বাড়ি ফিরে চলে এসেছি। এনিয়ে সব মিলে ভিজিএফ-এর কার্ড ও চাল বিতরণে ব্যাপক অনিয়ম দুর্নীতি ও স্বজনপ্রীতির অভিযোগ রয়েছে।

তাহেরপুর পৌরসভায় ভিজিএফের চাল বিতরণে কারচুপির অভিযোগ

প্রতিবেদক নাম: নাজিম হাসান, রাজশাহী প্রতিনিধি: ,

প্রকাশের সময়ঃ ১৪ আগস্ট ২০১৮, ১০:৪৭ পিএম

রাজশাহীর বাগমারা উপজেলার তাহেরপুর পৌরসভায় পবিত্র ঈদ-উল-আযহা উপলক্ষে বিশেষ সহায়তা গরীব,অসহায় ও দুঃস্থদের জন্য বরাদ্দকৃত ভিজিএফ-এর চাল বিতরণে কারচুপি ও অনিয়মের অভিযোগ পাওয়া উঠেছে। ৯ টি ওয়ার্ডে ৪৬ শত ভিজিএফ কার্ডধারীর মাঝে ২০ কেজি করে চাউল বিতরন করার কথা। সে অনুযায়ী সকাল থেকে তাহেরপুর কলেজ চত্বরে বিভিন্ন ্ওয়ার্ডের লোকজন আসতে শুরু করেন।

মঙ্গলবার সকালে ড়িগ্রি কলেজ চত্বরে পৌরসভায় ৪ হাজার ৬০০ জন দুস্থের মধ্যে ভিজিএফের চাল দুই বালতি করে বিতরণ শুরু করেন মেয়র আবুল কালাম আজাদ। সে সময় গরীব,অসহায় ও দুঃস্থরা বিশ কেজি চাউল পেলেও মেয়র আবুল কালাম আজাদ সেখান থেকে চলে গেলে সংরক্ষিত মহিলা কাউন্সিলর এবং ওয়ার্ড় কাউন্সিলরা তাদের মনোনিত লোকজন এবং আনছার ভিডিপির সদস্যরে দিয়ে গরীব,অসহায় ও দুঃস্থদের ভোটার আইডি কার্ড নিয়ে চাল বিতরণ শুরু করেন।

এসময় সরকারের বরাদ্দ দেওয়া ২০ কেজি ভিজিএফ-এর চাল বিতরণের পরিবর্তনে দেওয়া হয় ১২ থেকে সাড়ে ১৩ কেজি করে চাল। পরে চাল পাওয়া দুস্থরা বাড়িতে গিয়ে চাল মেপে দেখেন,সাড়ে ছয় কেজি করে চাল ওজনে কম দেয়া হয়েছে। পরে গরীব,অসহায় ও দুঃস্থ লোকজন সরকারের বরাদ্দ দেওয়া ২০ কেজি ভিজিএফ-এর চাল বিতরণে অনিয়ম,ওজনে কম দেয়ায় সংরক্ষিত মহিলা কাউন্সিলর এবং ওয়ার্ড় কাউন্সিলদের কাছে অভিযোগ জানালে তারা তাদেরকে ধমক দিয়ে জোর পূর্বক সেখান থেকে তাড়িয়ে দেওয়া হয়েছে বলে ভুক্তভুগিরা অভিযোগ করেন।

ভূক্তভোগীদের অভিযোগ,চাল কম দেয়ার বিষয়টি আমরা তাৎক্ষনিক উপস্থিত কর্মকর্তাদের জানিয়ে এর প্রতিকার দাবি করেছি। প্রায় দু ঘন্টা বসে থাকার পরও উপস্থিত কর্মকর্তারা এ ব্যাপারে কোন কার্যকর পদক্ষেপ না নেয়ায় আমরা বাধ্য হয়ে বাড়ি ফিরে চলে এসেছি। এনিয়ে সব মিলে ভিজিএফ-এর কার্ড ও চাল বিতরণে ব্যাপক অনিয়ম দুর্নীতি ও স্বজনপ্রীতির অভিযোগ রয়েছে।