২৩, সেপ্টেম্বর, ২০১৯, সোমবার | | ২৩ মুহররম ১৪৪১


রাজশাহীতে যথাযথ ধর্মীয় গাম্ভীর্যের মধ্য দিয়ে আশুরা পালিত

রিপোর্টার নামঃ নাজিম হাসান, রাজশাহী প্রতিনিধি: | আপডেট: ১১ সেপ্টেম্বর ২০১৯, ০৭:২৩ পিএম

রাজশাহীতে যথাযথ ধর্মীয় গাম্ভীর্যের মধ্য দিয়ে আশুরা পালিত
রাজশাহীতে যথাযথ ধর্মীয় গাম্ভীর্যের মধ্য দিয়ে আশুরা পালিত

রাজশাহীতে নানা কর্মসূচির মধ্য দিয়ে ১০ই মহররম পবিত্র আশুরা পালিত হয়েছে।গতকাল মঙ্গলবার (১০ সেপ্টেম্বর) সকালে মহানগরের শহীদ কামরুজ্জামান চত্বর, সাহেব বাজার জিরোপয়েন্ট, দরগাপাড়া, শিরোইল কলোনী ও উপশহর এলাকা থেকে বিভিন্ন সাজে তাজিয়া মিছিল বের করে বিভিন্ন ধর্মীয় সংগঠন। এসময় কর্মসূচির মধ্যে রয়েছে আশুরায় শোক র‌্যালি, মিলাদ মাহফিল ও বার্ষিক ওরশ মোবারক।বাদ যোহর হযরত শাহ মখদুম (রহ.) দরগা শরীফে খিচুরি বিতরণ করা হয়।

এছাড়া আশুরার তাৎপর্য উল্লেখ করে দরগা মসজিদে আলোচনার সভার আয়োজন করা হয়েছে। এতে বক্তব্য রাখেন, দরগা মসজিদের খতিব হাফেজ মাওলানা মোস্তাফিজুর রহমান। অপরদিকে, রাতে এশার নামাজ আদায়ের পর দরগা শরীফসহ বিভিন্ন মসজিদে ধর্মপ্রাণ মুুসলমানরা নামাজ, জিকির-আজগার এবং বিভিন্ন নফল ইবাদত বন্দেগীর মধ্যদিয়ে রাত্রী যাপন করবেন। দিনটি উপলক্ষে রাজশাহী সিটি করপোরেশন প্রতিটি গোরস্থানে আলোর বিশেষ ব্যবস্থা করেছে। দিনটি উপলক্ষে রাজশাহীতে বাড়তি নিরাপত্তা নেওয়া হয়েছে।

র‌্যাব ও পুলিশ আশুরার পবিত্রতা রক্ষায় ও সহিংস ঘটনা এড়াতে নগরজুড়ে কঠোর নিরাপত্তা বলয় গড়ে তুলেছে। উল্লেখ্য, সারাবিশ্বের মুসলমানদের কাছে আশুরার দিনটি বিশেষভাবে গুরুত্বপূর্ণ ও তাৎপর্যময়। ইসলাম ধর্মমতে, মহান আল্লাহ ওই দিনেই পৃথিবী সৃষ্টি করেছেন এবং ওই দিনেই পৃথিবী ধ্বংস হবে। আশুরার দিনে বিশ্বে সংঘটিত অলৌকিক অনেক ধর্মীয় ঘটনার কারণে মুসলমানদের কাছে ১০ মহররম বিশেষভাবে মহিমান্বিত। এছাড়া ওইদিনে ঐতিহাসিক কারবালা প্রান্তরে মহানবী হযরত মুহাম্মদ (সা.)-এর দৌহিত্র হযরত ইমাম হোসাইন (রা.) সপরিবারে শাহাদাতবরণ করেন।

রাজশাহীতে যথাযথ ধর্মীয় গাম্ভীর্যের মধ্য দিয়ে আশুরা পালিত

প্রতিবেদক নাম: নাজিম হাসান, রাজশাহী প্রতিনিধি: ,

প্রকাশের সময়ঃ ১১ সেপ্টেম্বর ২০১৯, ০৭:২৩ পিএম

রাজশাহীতে নানা কর্মসূচির মধ্য দিয়ে ১০ই মহররম পবিত্র আশুরা পালিত হয়েছে।গতকাল মঙ্গলবার (১০ সেপ্টেম্বর) সকালে মহানগরের শহীদ কামরুজ্জামান চত্বর, সাহেব বাজার জিরোপয়েন্ট, দরগাপাড়া, শিরোইল কলোনী ও উপশহর এলাকা থেকে বিভিন্ন সাজে তাজিয়া মিছিল বের করে বিভিন্ন ধর্মীয় সংগঠন। এসময় কর্মসূচির মধ্যে রয়েছে আশুরায় শোক র‌্যালি, মিলাদ মাহফিল ও বার্ষিক ওরশ মোবারক।বাদ যোহর হযরত শাহ মখদুম (রহ.) দরগা শরীফে খিচুরি বিতরণ করা হয়।

এছাড়া আশুরার তাৎপর্য উল্লেখ করে দরগা মসজিদে আলোচনার সভার আয়োজন করা হয়েছে। এতে বক্তব্য রাখেন, দরগা মসজিদের খতিব হাফেজ মাওলানা মোস্তাফিজুর রহমান। অপরদিকে, রাতে এশার নামাজ আদায়ের পর দরগা শরীফসহ বিভিন্ন মসজিদে ধর্মপ্রাণ মুুসলমানরা নামাজ, জিকির-আজগার এবং বিভিন্ন নফল ইবাদত বন্দেগীর মধ্যদিয়ে রাত্রী যাপন করবেন। দিনটি উপলক্ষে রাজশাহী সিটি করপোরেশন প্রতিটি গোরস্থানে আলোর বিশেষ ব্যবস্থা করেছে। দিনটি উপলক্ষে রাজশাহীতে বাড়তি নিরাপত্তা নেওয়া হয়েছে।

র‌্যাব ও পুলিশ আশুরার পবিত্রতা রক্ষায় ও সহিংস ঘটনা এড়াতে নগরজুড়ে কঠোর নিরাপত্তা বলয় গড়ে তুলেছে। উল্লেখ্য, সারাবিশ্বের মুসলমানদের কাছে আশুরার দিনটি বিশেষভাবে গুরুত্বপূর্ণ ও তাৎপর্যময়। ইসলাম ধর্মমতে, মহান আল্লাহ ওই দিনেই পৃথিবী সৃষ্টি করেছেন এবং ওই দিনেই পৃথিবী ধ্বংস হবে। আশুরার দিনে বিশ্বে সংঘটিত অলৌকিক অনেক ধর্মীয় ঘটনার কারণে মুসলমানদের কাছে ১০ মহররম বিশেষভাবে মহিমান্বিত। এছাড়া ওইদিনে ঐতিহাসিক কারবালা প্রান্তরে মহানবী হযরত মুহাম্মদ (সা.)-এর দৌহিত্র হযরত ইমাম হোসাইন (রা.) সপরিবারে শাহাদাতবরণ করেন।