২২, সেপ্টেম্বর, ২০১৯, রোববার | | ২২ মুহররম ১৪৪১


দেশ ভয়াবহ সংকটে, উত্তরণে দরকার বৃহত্তর ঐক্য: ফখরুল

রিপোর্টার নামঃ নিজস্ব প্রতিনিধি | আপডেট: ১১ সেপ্টেম্বর ২০১৯, ০১:৪৬ পিএম

দেশ ভয়াবহ সংকটে, উত্তরণে দরকার বৃহত্তর ঐক্য: ফখরুল
দেশ ভয়াবহ সংকটে, উত্তরণে দরকার বৃহত্তর ঐক্য: ফখরুল

দেশে এক ভয়াবহ সংকটে রয়েছে বলে মন্তব্য করেছেন বিএনপির মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর। তিনি বলেছেন, দেশে একদলীয় শাসন ভর করেছে। জনগণের গণতান্ত্রিক অধিকার কেড়ে নেয়া হয়েছে। বিচারব্যবস্থা ভেঙে পড়েছে। সবমিলিয়ে বিপর্যয়ের মুখে মাতৃভূমি। এই সংকট থেকে উত্তরণে দল-মত, ধর্ম-বর্ণ নির্বিশেষে একটি বৃহত্তর জাতীয় ঐক্য দরকার।

বুধবার রাজধানীর জাতীয় প্রেস ক্লাবের সামনে এক মানববন্ধন কর্মসূচিতে একথা বলেন তিনি। খালেদা জিয়ার সুচিকিৎসা নিশ্চিত ও মুক্তির দাবিতে এ মানববন্ধনের আয়োজন করে বিএনপি।

খালেদা জিয়ার মুক্তির দাবি করে মির্জা ফখরুল বলেন, সাবেক প্রধানমন্ত্রী দেশনেত্রী খালেদা জিয়া খুবই অসুস্থ। তাকে মিথ্যা মামলায় সাজা দিয়ে আটকে রাখা হয়েছে। অবিলম্বে তার মুক্তি দিতে হবে।

সরকার প্রশাসনকে দখল করে ক্ষমতায় টিকে আছে মন্তব্য করে মির্জা ফখরুল বলেন, ৩০ ডিসেম্বর এদেশে কোনো ভোট হয়নি। আগের রাতেই ভোট হয়ে গেছে। সরকার জোরজবরদস্তি করে টিকে আছে। প্রশাসনকে ব্যবহার করে মসনদ সুদৃঢ় করার চেষ্টা করছে।

সরকার দেশে একদলীয় শাসন কায়েম করেছে মন্তব্য করে বিএনপি মহাসচিব বলেন, গণতান্ত্রিক প্রতিষ্ঠানগুলো ধ্বংস করা হয়েছে। জনগণের কাছ থেকে দেশের মালিকানা কেড়ে নেয়া হয়েছে। বিচারব্যবস্থাকে শেষ করে দেয়া হয়েছে। দেশ এক মহাবিপর্যয়ের মুখে।

এই বিপর্যয়ের হাত থেকে মাতৃভূমিকে রক্ষায় দল-মত, ধর্ম-বর্ণ নির্বিশেষ বৃহত্তর ঐক্য দরকার। এটি ছাড়া জনগণের মুক্তি সম্ভব নয়। খালেদা জিয়ার মুক্তিও সম্ভব নয়।

খালেদা জিয়ার মুক্তির জন্য আরও কর্মসূচি দেয়া হবে জানিয়ে মির্জা ফখরুল বলেন, আজকে সবার চাওয়া একটি, সেটি হচ্ছে গণতন্ত্রের নেত্রী খালেদা জিয়ার মুক্তি। সেজন্য সবাইকে ঐক্যবদ্ধ হতে হবে। মাঠে নামতে হবে। আন্দোলন করতে হবে।

মানবন্ধনে বিএনপির কেন্দ্রীয় ও মহানগর নেতারা উপস্থিত ছিলেন।

দেশ ভয়াবহ সংকটে, উত্তরণে দরকার বৃহত্তর ঐক্য: ফখরুল

প্রতিবেদক নাম: নিজস্ব প্রতিনিধি ,

প্রকাশের সময়ঃ ১১ সেপ্টেম্বর ২০১৯, ০১:৪৬ পিএম

দেশে এক ভয়াবহ সংকটে রয়েছে বলে মন্তব্য করেছেন বিএনপির মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর। তিনি বলেছেন, দেশে একদলীয় শাসন ভর করেছে। জনগণের গণতান্ত্রিক অধিকার কেড়ে নেয়া হয়েছে। বিচারব্যবস্থা ভেঙে পড়েছে। সবমিলিয়ে বিপর্যয়ের মুখে মাতৃভূমি। এই সংকট থেকে উত্তরণে দল-মত, ধর্ম-বর্ণ নির্বিশেষে একটি বৃহত্তর জাতীয় ঐক্য দরকার।

বুধবার রাজধানীর জাতীয় প্রেস ক্লাবের সামনে এক মানববন্ধন কর্মসূচিতে একথা বলেন তিনি। খালেদা জিয়ার সুচিকিৎসা নিশ্চিত ও মুক্তির দাবিতে এ মানববন্ধনের আয়োজন করে বিএনপি।

খালেদা জিয়ার মুক্তির দাবি করে মির্জা ফখরুল বলেন, সাবেক প্রধানমন্ত্রী দেশনেত্রী খালেদা জিয়া খুবই অসুস্থ। তাকে মিথ্যা মামলায় সাজা দিয়ে আটকে রাখা হয়েছে। অবিলম্বে তার মুক্তি দিতে হবে।

সরকার প্রশাসনকে দখল করে ক্ষমতায় টিকে আছে মন্তব্য করে মির্জা ফখরুল বলেন, ৩০ ডিসেম্বর এদেশে কোনো ভোট হয়নি। আগের রাতেই ভোট হয়ে গেছে। সরকার জোরজবরদস্তি করে টিকে আছে। প্রশাসনকে ব্যবহার করে মসনদ সুদৃঢ় করার চেষ্টা করছে।

সরকার দেশে একদলীয় শাসন কায়েম করেছে মন্তব্য করে বিএনপি মহাসচিব বলেন, গণতান্ত্রিক প্রতিষ্ঠানগুলো ধ্বংস করা হয়েছে। জনগণের কাছ থেকে দেশের মালিকানা কেড়ে নেয়া হয়েছে। বিচারব্যবস্থাকে শেষ করে দেয়া হয়েছে। দেশ এক মহাবিপর্যয়ের মুখে।

এই বিপর্যয়ের হাত থেকে মাতৃভূমিকে রক্ষায় দল-মত, ধর্ম-বর্ণ নির্বিশেষ বৃহত্তর ঐক্য দরকার। এটি ছাড়া জনগণের মুক্তি সম্ভব নয়। খালেদা জিয়ার মুক্তিও সম্ভব নয়।

খালেদা জিয়ার মুক্তির জন্য আরও কর্মসূচি দেয়া হবে জানিয়ে মির্জা ফখরুল বলেন, আজকে সবার চাওয়া একটি, সেটি হচ্ছে গণতন্ত্রের নেত্রী খালেদা জিয়ার মুক্তি। সেজন্য সবাইকে ঐক্যবদ্ধ হতে হবে। মাঠে নামতে হবে। আন্দোলন করতে হবে।

মানবন্ধনে বিএনপির কেন্দ্রীয় ও মহানগর নেতারা উপস্থিত ছিলেন।