২৩, সেপ্টেম্বর, ২০১৯, সোমবার | | ২৩ মুহররম ১৪৪১


জাহাঙ্গীরনগর বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রশাসনিক ভবন অবরোধ

রিপোর্টার নামঃ স্টাফ রিপোর্টার: | আপডেট: ০৩ সেপ্টেম্বর ২০১৯, ১১:৫১ এএম

জাহাঙ্গীরনগর বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রশাসনিক ভবন অবরোধ
জাহাঙ্গীরনগর বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রশাসনিক ভবন অবরোধ

জাহাঙ্গীরনগর বিশ্ববিদ্যালয়ের (জাবি) ১ হাজার ৪৪৫ কোটি টাকার অধিকতর উন্নয়ন প্রকল্পে দুর্নীতির অভিযোগের বিচার বিভাগীয় তদন্তসহ তিন দফা দাবিতে বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রশাসনিক ভবনের সামনে অবরোধ করেছে শিক্ষার্থীরা।

আজ মঙ্গলবার সকাল সাড়ে সাতটায় ‘দুর্নীতির বিরুদ্ধে জাহাঙ্গীরনগর' এর ব্যানারে প্রায় ৪০-৫০ জন আন্দোলনকারী তিনদফা দাবিতে পূর্বঘোষিত এ অবরোধ শুরু করে।

দাবিগুলো হলো- রবীন্দ্রনাথ ঠাকুর হলের পাশের তিনটা হল স্থানান্তর করে নতুন জায়গায় দ্রুত কাজ শুরু করতে হবে। মেগাপ্রজেক্টের দুইকোটি টাকা দুর্নীতি করে ছাত্রলীগকে প্রদানের ব্যাপারে বিচার বিভাগীয় তদন্ত নিশ্চিত করতে হবে। টেন্ডারের শিডিউল ছিনতাইকারীদের চিহ্নিত করে শাস্তির আওতায় আনতে হবে এবং কাজ স্থগিত রেখে সকল স্টেক হোল্ডারদের সঙ্গে আলোচনার ভিত্তিতে মাস্টারপ্লান পূর্নবিন্যস্ত করতে হবে।

মঙ্গলবার সকালে কর্মকর্তা-কর্মচারীরা আসলে তাদের ঢুকতে দেয়নি আন্দোলনকারীরা। অবরোধের ফলে বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রশাসনিক কাজে স্থবিরতা দেখা দিয়েছে। এ রিপোর্ট লেখা পর্যন্ত অবরোধ এখনো চলছে।

জাহাঙ্গীরনগর বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রশাসনিক ভবন অবরোধ

প্রতিবেদক নাম: স্টাফ রিপোর্টার: ,

প্রকাশের সময়ঃ ০৩ সেপ্টেম্বর ২০১৯, ১১:৫১ এএম

জাহাঙ্গীরনগর বিশ্ববিদ্যালয়ের (জাবি) ১ হাজার ৪৪৫ কোটি টাকার অধিকতর উন্নয়ন প্রকল্পে দুর্নীতির অভিযোগের বিচার বিভাগীয় তদন্তসহ তিন দফা দাবিতে বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রশাসনিক ভবনের সামনে অবরোধ করেছে শিক্ষার্থীরা।

আজ মঙ্গলবার সকাল সাড়ে সাতটায় ‘দুর্নীতির বিরুদ্ধে জাহাঙ্গীরনগর' এর ব্যানারে প্রায় ৪০-৫০ জন আন্দোলনকারী তিনদফা দাবিতে পূর্বঘোষিত এ অবরোধ শুরু করে।

দাবিগুলো হলো- রবীন্দ্রনাথ ঠাকুর হলের পাশের তিনটা হল স্থানান্তর করে নতুন জায়গায় দ্রুত কাজ শুরু করতে হবে। মেগাপ্রজেক্টের দুইকোটি টাকা দুর্নীতি করে ছাত্রলীগকে প্রদানের ব্যাপারে বিচার বিভাগীয় তদন্ত নিশ্চিত করতে হবে। টেন্ডারের শিডিউল ছিনতাইকারীদের চিহ্নিত করে শাস্তির আওতায় আনতে হবে এবং কাজ স্থগিত রেখে সকল স্টেক হোল্ডারদের সঙ্গে আলোচনার ভিত্তিতে মাস্টারপ্লান পূর্নবিন্যস্ত করতে হবে।

মঙ্গলবার সকালে কর্মকর্তা-কর্মচারীরা আসলে তাদের ঢুকতে দেয়নি আন্দোলনকারীরা। অবরোধের ফলে বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রশাসনিক কাজে স্থবিরতা দেখা দিয়েছে। এ রিপোর্ট লেখা পর্যন্ত অবরোধ এখনো চলছে।