২৩, সেপ্টেম্বর, ২০১৯, সোমবার | | ২৩ মুহররম ১৪৪১


গড্ডিমারী দ্বি-মুখী উচ্চ বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক সাময়িক বরখাস্ত

রিপোর্টার নামঃ মোঃ ইউনুস আলী, লালমনিরহাট প্রতিনিধি: | আপডেট: ২৮ আগস্ট ২০১৯, ১১:১৯ পিএম

গড্ডিমারী দ্বি-মুখী উচ্চ বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক সাময়িক বরখাস্ত
গড্ডিমারী দ্বি-মুখী উচ্চ বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক সাময়িক বরখাস্ত

সহকারী প্রধান শিক্ষক নিয়োগ দানের কথা বলে প্রার্থীর কাছে মোটা অংকের টাকা উৎকোচ গ্রহণ করার অভিযোগে লালমনিরহাটের হাতীবান্ধা উপজেলার গড্ডিমারী দ্বি-মুখী উচ্চ বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক আতাউর রহমানকে সাময়িক ভাবে বরখাস্ত করেন ঐ স্কুল পরিচালনা কমিটি।

বুধবার ( ২৮ আগষ্ট) বিকালে ঐ উপজেলার গড্ডিমারী দ্বি-মুখী উচ্চ বিদ্যালয়ের পরিচালনা কমিটি’র সভায় প্রধান শিক্ষক আতাউর রহমানের বিরুদ্ধে এ অভিযোগ উঠলে তাকে সাময়িক ভাবে বরখাস্ত করা হয়। সভার রেজুলেশনে ১০ জন সদস্যের মধ্যে সভাপতিসহ ৭ জন সদস্য স্বাক্ষর করেছেন।

ঐ বিদ্যালয়ের পরিচালনা কমিটি’র সভাপতি অধ্যক্ষ আবু বক্কর সিদ্দিক শ্যামল জানান, বুধবার বিকালে সহকারী প্রধান শিক্ষক নিয়োগ নিয়ে পরিচালনা কমিটির সভা চলছিলো। এ সময় আব্দুল হাকিম নামে এক প্রার্থী এসে দাবী করেন, প্রধান শিক্ষক আতাউর রহমান তাকে সহকারী প্রধান শিক্ষক হিসেবে নিয়োগ দেয়ার কথা বলে তার কাছ থেকে ৮ লক্ষ ৮০ হাজার টাকা নিয়েছেন। সভায় উপস্থিত সদস্যরা প্রধান শিক্ষক আতাউর রহমানের কাছে এ বিষয়ে জানতে চাইলে তিনি কোনো উওর দিতে পারেনি।

ফলে সভায় উপস্থিত সদস্যরা ওই প্রধান শিক্ষক আতাউর রহমানকে সাময়িক বরখাস্ত করে পুরো বিষয়টি তদন্তের দাবী জানান। সভায় সকলের সিদ্ধান্ত নিয়ে প্রধান শিক্ষককে সাময়িক বরখাস্ত করা হয়েছে।

এবিষয়ে জানতে চাইলে ঐ স্কুলের প্রধান শিক্ষক আতাউর রহমান জানান, তাকে সাময়িকভাবে বরখাস্ত করা হয়েছে কিনা এবিষয়ে তিনি কিছুই জানেন না এবং কোনো নোটিশ পাননি। অপর এক প্রশ্নে, শিক্ষক নিয়োগ দানের জন্য জনৈক প্রার্থীর কাছে ৮ লক্ষ ৮০ হাজার টাকা উৎকোচ নিয়েছেন কিনা এবিষয়ে জানতে চাইলে তিনি বলেন, আল্লাহকে স্বাক্ষী রেখে বলছি আমি শিক্ষক নিয়োগ দানের জন্য কোন প্রার্থীর কাছে একটি টাকাও নেইনি।

হাতীবান্ধা উপজেলা মাধ্যমিক শিক্ষা কর্মকর্তা কর্ন্দপ নারায়ন রায় জানান, দীর্ঘদিন যাবত ঐ বিদ্যালয়ে সহকারী প্রধান শিক্ষক নিয়োগ নিয়ে জটিলতা দেখা যাচ্ছে। সেই আলোকেই আজ সহকারী শিক্ষক নিয়োগ নিয়ে পরিচালনা কমিটি’র সভা ছিলো। তবে প্রধান শিক্ষককে সাময়িক ভাবে বরখাস্ত করা হয়েছে কিনা এবিষয়ে স্কুল পরিচালনা কমিটির রেজুলেশনসহ অভিযোগপত্র এখনও তিনি পাননি।

গড্ডিমারী দ্বি-মুখী উচ্চ বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক সাময়িক বরখাস্ত

প্রতিবেদক নাম: মোঃ ইউনুস আলী, লালমনিরহাট প্রতিনিধি: ,

প্রকাশের সময়ঃ ২৮ আগস্ট ২০১৯, ১১:১৯ পিএম

সহকারী প্রধান শিক্ষক নিয়োগ দানের কথা বলে প্রার্থীর কাছে মোটা অংকের টাকা উৎকোচ গ্রহণ করার অভিযোগে লালমনিরহাটের হাতীবান্ধা উপজেলার গড্ডিমারী দ্বি-মুখী উচ্চ বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক আতাউর রহমানকে সাময়িক ভাবে বরখাস্ত করেন ঐ স্কুল পরিচালনা কমিটি।

বুধবার ( ২৮ আগষ্ট) বিকালে ঐ উপজেলার গড্ডিমারী দ্বি-মুখী উচ্চ বিদ্যালয়ের পরিচালনা কমিটি’র সভায় প্রধান শিক্ষক আতাউর রহমানের বিরুদ্ধে এ অভিযোগ উঠলে তাকে সাময়িক ভাবে বরখাস্ত করা হয়। সভার রেজুলেশনে ১০ জন সদস্যের মধ্যে সভাপতিসহ ৭ জন সদস্য স্বাক্ষর করেছেন।

ঐ বিদ্যালয়ের পরিচালনা কমিটি’র সভাপতি অধ্যক্ষ আবু বক্কর সিদ্দিক শ্যামল জানান, বুধবার বিকালে সহকারী প্রধান শিক্ষক নিয়োগ নিয়ে পরিচালনা কমিটির সভা চলছিলো। এ সময় আব্দুল হাকিম নামে এক প্রার্থী এসে দাবী করেন, প্রধান শিক্ষক আতাউর রহমান তাকে সহকারী প্রধান শিক্ষক হিসেবে নিয়োগ দেয়ার কথা বলে তার কাছ থেকে ৮ লক্ষ ৮০ হাজার টাকা নিয়েছেন। সভায় উপস্থিত সদস্যরা প্রধান শিক্ষক আতাউর রহমানের কাছে এ বিষয়ে জানতে চাইলে তিনি কোনো উওর দিতে পারেনি।

ফলে সভায় উপস্থিত সদস্যরা ওই প্রধান শিক্ষক আতাউর রহমানকে সাময়িক বরখাস্ত করে পুরো বিষয়টি তদন্তের দাবী জানান। সভায় সকলের সিদ্ধান্ত নিয়ে প্রধান শিক্ষককে সাময়িক বরখাস্ত করা হয়েছে।

এবিষয়ে জানতে চাইলে ঐ স্কুলের প্রধান শিক্ষক আতাউর রহমান জানান, তাকে সাময়িকভাবে বরখাস্ত করা হয়েছে কিনা এবিষয়ে তিনি কিছুই জানেন না এবং কোনো নোটিশ পাননি। অপর এক প্রশ্নে, শিক্ষক নিয়োগ দানের জন্য জনৈক প্রার্থীর কাছে ৮ লক্ষ ৮০ হাজার টাকা উৎকোচ নিয়েছেন কিনা এবিষয়ে জানতে চাইলে তিনি বলেন, আল্লাহকে স্বাক্ষী রেখে বলছি আমি শিক্ষক নিয়োগ দানের জন্য কোন প্রার্থীর কাছে একটি টাকাও নেইনি।

হাতীবান্ধা উপজেলা মাধ্যমিক শিক্ষা কর্মকর্তা কর্ন্দপ নারায়ন রায় জানান, দীর্ঘদিন যাবত ঐ বিদ্যালয়ে সহকারী প্রধান শিক্ষক নিয়োগ নিয়ে জটিলতা দেখা যাচ্ছে। সেই আলোকেই আজ সহকারী শিক্ষক নিয়োগ নিয়ে পরিচালনা কমিটি’র সভা ছিলো। তবে প্রধান শিক্ষককে সাময়িক ভাবে বরখাস্ত করা হয়েছে কিনা এবিষয়ে স্কুল পরিচালনা কমিটির রেজুলেশনসহ অভিযোগপত্র এখনও তিনি পাননি।