২৩, সেপ্টেম্বর, ২০১৯, সোমবার | | ২৩ মুহররম ১৪৪১


পুত্রবধূকে জোরপূর্বক ধর্ষণ, শ্বশুর গ্রেপ্তার

এলাকায় চাঞ্চল্যের সৃষ্টি

রিপোর্টার নামঃ মোঃ ইউনুস আলী, লালমনিরহাট প্রতিনিধি: | আপডেট: ১৯ আগস্ট ২০১৯, ০৮:৩৪ পিএম

পুত্রবধূকে জোরপূর্বক ধর্ষণ, শ্বশুর গ্রেপ্তার
পুত্রবধূকে জোরপূর্বক ধর্ষণ, শ্বশুর গ্রেপ্তার

লালমনিরহাটের আদিতমারী উপজেলায় জোরপূর্বক পুত্রবধূকে ধর্ষণের সময় ইউনুস আলী (৪২) নামে এক লম্পট শ্বশুরকে হাতেনাতে আটক করে থানায় দিয়েছে এলাকাবাসী। এ ঘটনায় এলাকায় চাঞ্চল্যের সৃষ্টি হয়েছে।     

সোমবার (১৯ আগস্ট) ধর্ষককে আদালতের মাধ্যমে জেলহাজতে প্রেরণ করেন পুলিশ। এর আগে রবিবার (১৮ আগস্ট) রাতে ঐ উপজেলার মহিষখোচা ইউনিয়নের বারঘড়িয়া শেখেরদীঘি নামক গ্রামে এ ঘটনাটি ঘরে। শ্বশুর ইউনুস আলী ঐ গ্রামের মৃত সহিদার রহমানের ছেলে।

পুলিশ ও এলাকাবাসী জানান, প্রথম স্ত্রী থাকার পরেও এক ছেলে সন্তানসহ দ্বিতীয় স্ত্রীকে বিয়ে করেন কাঠমিস্ত্রী ইউনুস আলী। ৫ মাস পূর্বে সেই ছেলের বিয়ে দেন তিনি। স্ত্রীকে বাবার কাছে রেখে ছেলে (সৎ) কাজের সন্ধানে ঢাকায় চলে যান। এদিকে পুত্রবধূ ও স্ত্রীকে নিয়ে বাড়িতে থাকতেন শ্বশুর ইউনুস।

রবিবার (১৮ আগস্ট) রাতে ঘুমন্ত পুত্রবধূর ঘরে কৌশলে প্রবেশ করে তাকে ধর্ষণ করেন শ্বশুর। পুত্রবধূর চিৎকারে স্থানীয়রা এসে ধর্ষক শ্বশুরকে হাতে নাতে আটক করে পুলিশে সোপর্দ করেন।

এ ঘটনায় সোমবার (১৯ আগস্ট) ওই পুত্রবধূ বাদী হয়ে ধর্ষক শ্বশুর ইউনুস আলীর বিরুদ্ধে একটি মামলা দায়ের করেন। এ মামলায় থানা পুলিশ তাকে গ্রেফতার দেখিয়ে আদালতে পাঠান। আর ধর্ষিতা পুত্রবধূকে ডাক্তারি পরীক্ষার জন্য লালমনিরহাট সদর হাসপাতালে পাঠানো হয়েছে।

ওই পুত্রবধূ জানান, বিয়ের পর থেকে বেড়াতে যাওয়ার কথা বলে বিভিন্ন স্থানে ভয়ভিতি দেখিয়ে তাকে ধর্ষণ করেন লম্পট শ্বশুর ইউনুস আলী। প্রতিবাদ করলে ছেলের সঙ্গে সম্পর্ক ছিন্ন করার হুমকি দেন। রোববার রাতে ঘরে ঢুকে তাকে ধর্ষণ করেন বলে দাবি করেন তিনি।

আদিতমারী থানার অফিসার ইনচার্জ (ওসি তদন্ত) সাইফুল ইসলাম ঘটনার সত্যতা নিশ্চিত করে বলেন, ধর্ষিতার অভিযোগটি আমলে নিয়ে আটক ইউনুস আলীকে গ্রেফতার দেখিয়ে আদালতে পাঠানো হয়েছে।

পুত্রবধূকে জোরপূর্বক ধর্ষণ, শ্বশুর গ্রেপ্তার

প্রতিবেদক নাম: মোঃ ইউনুস আলী, লালমনিরহাট প্রতিনিধি: ,

প্রকাশের সময়ঃ ১৯ আগস্ট ২০১৯, ০৮:৩৪ পিএম

লালমনিরহাটের আদিতমারী উপজেলায় জোরপূর্বক পুত্রবধূকে ধর্ষণের সময় ইউনুস আলী (৪২) নামে এক লম্পট শ্বশুরকে হাতেনাতে আটক করে থানায় দিয়েছে এলাকাবাসী। এ ঘটনায় এলাকায় চাঞ্চল্যের সৃষ্টি হয়েছে।     

সোমবার (১৯ আগস্ট) ধর্ষককে আদালতের মাধ্যমে জেলহাজতে প্রেরণ করেন পুলিশ। এর আগে রবিবার (১৮ আগস্ট) রাতে ঐ উপজেলার মহিষখোচা ইউনিয়নের বারঘড়িয়া শেখেরদীঘি নামক গ্রামে এ ঘটনাটি ঘরে। শ্বশুর ইউনুস আলী ঐ গ্রামের মৃত সহিদার রহমানের ছেলে।

পুলিশ ও এলাকাবাসী জানান, প্রথম স্ত্রী থাকার পরেও এক ছেলে সন্তানসহ দ্বিতীয় স্ত্রীকে বিয়ে করেন কাঠমিস্ত্রী ইউনুস আলী। ৫ মাস পূর্বে সেই ছেলের বিয়ে দেন তিনি। স্ত্রীকে বাবার কাছে রেখে ছেলে (সৎ) কাজের সন্ধানে ঢাকায় চলে যান। এদিকে পুত্রবধূ ও স্ত্রীকে নিয়ে বাড়িতে থাকতেন শ্বশুর ইউনুস।

রবিবার (১৮ আগস্ট) রাতে ঘুমন্ত পুত্রবধূর ঘরে কৌশলে প্রবেশ করে তাকে ধর্ষণ করেন শ্বশুর। পুত্রবধূর চিৎকারে স্থানীয়রা এসে ধর্ষক শ্বশুরকে হাতে নাতে আটক করে পুলিশে সোপর্দ করেন।

এ ঘটনায় সোমবার (১৯ আগস্ট) ওই পুত্রবধূ বাদী হয়ে ধর্ষক শ্বশুর ইউনুস আলীর বিরুদ্ধে একটি মামলা দায়ের করেন। এ মামলায় থানা পুলিশ তাকে গ্রেফতার দেখিয়ে আদালতে পাঠান। আর ধর্ষিতা পুত্রবধূকে ডাক্তারি পরীক্ষার জন্য লালমনিরহাট সদর হাসপাতালে পাঠানো হয়েছে।

ওই পুত্রবধূ জানান, বিয়ের পর থেকে বেড়াতে যাওয়ার কথা বলে বিভিন্ন স্থানে ভয়ভিতি দেখিয়ে তাকে ধর্ষণ করেন লম্পট শ্বশুর ইউনুস আলী। প্রতিবাদ করলে ছেলের সঙ্গে সম্পর্ক ছিন্ন করার হুমকি দেন। রোববার রাতে ঘরে ঢুকে তাকে ধর্ষণ করেন বলে দাবি করেন তিনি।

আদিতমারী থানার অফিসার ইনচার্জ (ওসি তদন্ত) সাইফুল ইসলাম ঘটনার সত্যতা নিশ্চিত করে বলেন, ধর্ষিতার অভিযোগটি আমলে নিয়ে আটক ইউনুস আলীকে গ্রেফতার দেখিয়ে আদালতে পাঠানো হয়েছে।