১৭, আগস্ট, ২০১৯, শনিবার | | ১৫ জ্বিলহজ্জ ১৪৪০


ঈদের শুভেচ্ছা জানিয়েছেন লালমনিরহাট পুলিশ সুপার

“মনের পশুরে কর জবাই, পশুরাও বাঁচে, বাঁচে সবাই”

রিপোর্টার নামঃ মোঃ ইউনুস আলী, লালমনিরহাট প্রতিনিধি: | আপডেট: ১১ আগস্ট ২০১৯, ১২:৪৮ এএম

ঈদের শুভেচ্ছা জানিয়েছেন লালমনিরহাট পুলিশ সুপার
ঈদের শুভেচ্ছা জানিয়েছেন লালমনিরহাট পুলিশ সুপার

পবিত্র ঈদুল আজহা উপলক্ষে লালমনিরহাট জেলাবাসীকে শুভেচ্ছা ও অভিনন্দন জানিয়েছেন পুলিশ সুপার এসএম রশিদুল হক। ঈদ-উল-আযহার অন্যতম শিক্ষা হচ্ছে, জাতীয় কবির ভাষায় “মনের পশুরে কর জবাই, পশুরাও বাঁচে, বাঁচে সবাই”। শনিবার এক বাণীতে তিনি এ শুভেচ্ছা জানান।

ঐ বাণীতে পুলিশ সুপার বলেন, হিজরি দিনপঞ্জি পরিক্রমায় মুসলিম উম্মাহর আনন্দময় দিন ঈদুল আজহা সমাগত। পবিত্র ঈদুল আজহা উপলক্ষে লালমনিরহাট জেলাবাসী, দেশবিদেশের সকল শুভাকাঙ্ক্ষীসহ সকল মুসলিম ভাইবোনদের জানাই আন্তরিক শুভেচ্ছা ও মোবারকবাদ। ঈদ মোবারক।

বাণীতে তিনি আরো উল্লেখ করেন, ‘মহান আল্লাহর প্রতি গভীর আনুগত্য ও সর্বোচ্চ ত্যাগের মহিমায় ভাস্বর পবিত্র ঈদুল আযহা। মহান আল্লাহর নির্দেশে স্বীয় পুত্র হযরত ইসমাইল (আ.) কে কোরবানি করতে উদ্যত হয়ে হযরত ইব্রাহিম (আ.) আল্লাহর প্রতি অবিচল আনুগত্য, অকুণ্ঠ আত্মত্যাগ ও অগাধ ভালোবাসার যে সুমহান দৃষ্টান্ত স্থাপন করেছেন, তা চিরকাল অনুকরণীয় ও অনুসরণীয়। তাঁরই নিদর্শন স্বরুপ আমরা প্রতি বছর আল্লাহতায়ালার সন্তুুষ্টির উদ্দেশ্যে পশু কোরবানী করি।’

ঈদুল আজহার প্রকৃত শিক্ষা ও ত্যাগের আদর্শ ব্যক্তি ও সমাজ জীবনে প্রতিফলিত করার আহ্বান জানিয়ে পুলিশ সুপার এসএম রশিদুল হক বলেন, এই উৎসবের মধ্য দিয়ে সামর্থ্যবান মুসলমানগণ কুরবানিকৃত পশুর মাংস আত্মীয় ও প্রতিবেশীদের মধ্যে বিলিয়ে দেন এবং সমাজে সাম্যের বাণী প্রতিষ্ঠিত করেন। পবিত্র ঈদুল আজহার প্রকৃত শিক্ষা ও ত্যাগের আদর্শ ব্যক্তি ও সমাজ জীবনে প্রতিফলিত হোক-এই কামনা করছি।

ঈদুল আজহার শিক্ষা আমাদের একটি সুন্দর ও সমৃদ্ধ সমাজ গঠনে উদ্ধৃদ্ধ করবে বলে তিনি আশা প্রকাশ করেন। ঈদ আনন্দে সবার জীবন  ভরে উঠুক এই প্রত্যাশায় সকলকে ঈদ উল আজহার শুভেচ্ছা জানিয়েছেন এবং সকলের দোয়া ও সহযোগিতা কামনা করেছেন জেলার পুলিশ সুপার।

ঈদের শুভেচ্ছা জানিয়েছেন লালমনিরহাট পুলিশ সুপার

প্রতিবেদক নাম: মোঃ ইউনুস আলী, লালমনিরহাট প্রতিনিধি: ,

প্রকাশের সময়ঃ ১১ আগস্ট ২০১৯, ১২:৪৮ এএম

পবিত্র ঈদুল আজহা উপলক্ষে লালমনিরহাট জেলাবাসীকে শুভেচ্ছা ও অভিনন্দন জানিয়েছেন পুলিশ সুপার এসএম রশিদুল হক। ঈদ-উল-আযহার অন্যতম শিক্ষা হচ্ছে, জাতীয় কবির ভাষায় “মনের পশুরে কর জবাই, পশুরাও বাঁচে, বাঁচে সবাই”। শনিবার এক বাণীতে তিনি এ শুভেচ্ছা জানান।

ঐ বাণীতে পুলিশ সুপার বলেন, হিজরি দিনপঞ্জি পরিক্রমায় মুসলিম উম্মাহর আনন্দময় দিন ঈদুল আজহা সমাগত। পবিত্র ঈদুল আজহা উপলক্ষে লালমনিরহাট জেলাবাসী, দেশবিদেশের সকল শুভাকাঙ্ক্ষীসহ সকল মুসলিম ভাইবোনদের জানাই আন্তরিক শুভেচ্ছা ও মোবারকবাদ। ঈদ মোবারক।

বাণীতে তিনি আরো উল্লেখ করেন, ‘মহান আল্লাহর প্রতি গভীর আনুগত্য ও সর্বোচ্চ ত্যাগের মহিমায় ভাস্বর পবিত্র ঈদুল আযহা। মহান আল্লাহর নির্দেশে স্বীয় পুত্র হযরত ইসমাইল (আ.) কে কোরবানি করতে উদ্যত হয়ে হযরত ইব্রাহিম (আ.) আল্লাহর প্রতি অবিচল আনুগত্য, অকুণ্ঠ আত্মত্যাগ ও অগাধ ভালোবাসার যে সুমহান দৃষ্টান্ত স্থাপন করেছেন, তা চিরকাল অনুকরণীয় ও অনুসরণীয়। তাঁরই নিদর্শন স্বরুপ আমরা প্রতি বছর আল্লাহতায়ালার সন্তুুষ্টির উদ্দেশ্যে পশু কোরবানী করি।’

ঈদুল আজহার প্রকৃত শিক্ষা ও ত্যাগের আদর্শ ব্যক্তি ও সমাজ জীবনে প্রতিফলিত করার আহ্বান জানিয়ে পুলিশ সুপার এসএম রশিদুল হক বলেন, এই উৎসবের মধ্য দিয়ে সামর্থ্যবান মুসলমানগণ কুরবানিকৃত পশুর মাংস আত্মীয় ও প্রতিবেশীদের মধ্যে বিলিয়ে দেন এবং সমাজে সাম্যের বাণী প্রতিষ্ঠিত করেন। পবিত্র ঈদুল আজহার প্রকৃত শিক্ষা ও ত্যাগের আদর্শ ব্যক্তি ও সমাজ জীবনে প্রতিফলিত হোক-এই কামনা করছি।

ঈদুল আজহার শিক্ষা আমাদের একটি সুন্দর ও সমৃদ্ধ সমাজ গঠনে উদ্ধৃদ্ধ করবে বলে তিনি আশা প্রকাশ করেন। ঈদ আনন্দে সবার জীবন  ভরে উঠুক এই প্রত্যাশায় সকলকে ঈদ উল আজহার শুভেচ্ছা জানিয়েছেন এবং সকলের দোয়া ও সহযোগিতা কামনা করেছেন জেলার পুলিশ সুপার।