১৭, আগস্ট, ২০১৯, শনিবার | | ১৫ জ্বিলহজ্জ ১৪৪০


শিশু সাম্যের কণ্ঠে একের পর এক বিস্ময় (ভিডিও)

রিপোর্টার নামঃ স্টাফ রিপোর্টার | আপডেট: ০৬ আগস্ট ২০১৯, ০১:৩৪ পিএম

শিশু সাম্যের কণ্ঠে একের পর এক বিস্ময় (ভিডিও)
শিশু সাম্যের কণ্ঠে একের পর এক বিস্ময় (ভিডিও)

সোমবার রাতে সোশ্যাল মিডিয়ায় ছড়িয়ে পড়ে শিশুর গান 'আকাশের ওই মিটি মিটি তারার সাথে কইব কথা, নাই বা তুমি এলে, তোমার স্মৃতির পরশও ভরা, অশ্রুনিয়ে গাঁথব মালা, নাই বা তুমি এলে... আকাশের ঐ মিটি মিটি তারার সাথে কইব কথা, নাই বা তুমি এলে...'

এতো সুরেলা ও ব্যকরণ সমৃদ্ধ কণ্ঠ এই শিশুর ভাবতেই বিস্ময় লাগে। খোঁজ নিয়ে জানা গেল এই বিস্ময় শিশুর নাম সাম্য। বাবার মায়ের সঙ্গে থাকে জামালপুরের মেলান্দহ উপজেলায়। আরেকটু খোঁজ নিয়েই জানা গেল, সাম্য'র আরো অনেক গান সোশ্যাল মিডিয়া ছড়িয়ে পড়েছে- যেমন, ‘সাত ভাই চম্পা জাগো’, ‘ও কি ও বন্ধু কাজল ভ্রমরা’, ‘রোদ টলমল মেঘনা নদীর কাছে’, ‘তোমরা কুঞ্জ সাজাও গো’‘মোর ঘুম ঘোরে এলে মনোহর’, ‘ভ্রমর কইও গিয়া’ এমন গানগুলো সাম্য'র কণ্ঠে এতো নিখুঁতভাবে উঠে এসেছে যা না শুনলে বিশ্বাস করাই কঠিন।

সাম্য'র পুর নাম লিউনা তাসনীম সাম্য। মা আরজুমান মোস্তারি ও বাবা আজমত আলীর ২য় সন্তান সাম্য। আজমত আলী মেলান্দহ উপজেলা সমাজসেবা অফিসের অফিস সহকারী হিসেবে কর্মরত আছেন। গান গাওয়া, ছবি আঁকা ও নাচের পাশাপাশি সাম্য পড়াশোনাও করে এবং খুব ভালোভাবে করে। সে উত্তর মেলান্দহ সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের ৩য় শ্রেণির শিক্ষার্থী।

সাম্য'র গানগুলো সোশ্যাল মিডিয়াইয় ভাইরাল হওয়ার অন্যতম কারণ সেখানকার উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা। তিনিই বেশিরভাগ সময় সাম্য'র গান ফেসবুকে আপলোড করেন। কারণ হিসেবে মেলান্দহ উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা তামিম ইয়ামীন জানালেন, মেয়ে লিলিথ আর সাম্য সারাদিন একসঙ্গেই থাকে। যার কারণে একজনের গান মোবাইল ফোনে রেকর্ড করার সময় আরেকজন পাশেই থাকে। আর নিজের টাইমলাইনে আপলোড করার কারণে অনেকেই সাম্যকে তামীম ইয়ামীনকে নিজের মেয়ে মনে করেন। অবশ্য তামিমও সাম্যকে মেয়ে-ই ভাবেন।

মেলান্দহ থেকে কীভাবে দেশব্যাপীও ছড়িয়ে পড়ল সাম্য'র কণ্ঠ? বিষয়টির ব্যাখ্যা দিয়েছেন তামিম। গণমাধ্যমকে বলেন, গানটির লাইভ দেখে সাতক্ষীরা সদরের উপজেলা নির্বাহী অফিসার আমার ব্যাচমেট দেবাশীষ চৌধুরী ফরোয়ার্ড করেন জুবায়ের আল মাহমুদ রাসেলকে। তিনি তার অ্যাকাউন্ট থেকে আপলোড করার পর ভিডিওটি ছড়িয়ে পড়তে থাকে।


শিশু সাম্যের কণ্ঠে একের পর এক বিস্ময় (ভিডিও)

প্রতিবেদক নাম: স্টাফ রিপোর্টার ,

প্রকাশের সময়ঃ ০৬ আগস্ট ২০১৯, ০১:৩৪ পিএম

সোমবার রাতে সোশ্যাল মিডিয়ায় ছড়িয়ে পড়ে শিশুর গান 'আকাশের ওই মিটি মিটি তারার সাথে কইব কথা, নাই বা তুমি এলে, তোমার স্মৃতির পরশও ভরা, অশ্রুনিয়ে গাঁথব মালা, নাই বা তুমি এলে... আকাশের ঐ মিটি মিটি তারার সাথে কইব কথা, নাই বা তুমি এলে...'

এতো সুরেলা ও ব্যকরণ সমৃদ্ধ কণ্ঠ এই শিশুর ভাবতেই বিস্ময় লাগে। খোঁজ নিয়ে জানা গেল এই বিস্ময় শিশুর নাম সাম্য। বাবার মায়ের সঙ্গে থাকে জামালপুরের মেলান্দহ উপজেলায়। আরেকটু খোঁজ নিয়েই জানা গেল, সাম্য'র আরো অনেক গান সোশ্যাল মিডিয়া ছড়িয়ে পড়েছে- যেমন, ‘সাত ভাই চম্পা জাগো’, ‘ও কি ও বন্ধু কাজল ভ্রমরা’, ‘রোদ টলমল মেঘনা নদীর কাছে’, ‘তোমরা কুঞ্জ সাজাও গো’‘মোর ঘুম ঘোরে এলে মনোহর’, ‘ভ্রমর কইও গিয়া’ এমন গানগুলো সাম্য'র কণ্ঠে এতো নিখুঁতভাবে উঠে এসেছে যা না শুনলে বিশ্বাস করাই কঠিন।

সাম্য'র পুর নাম লিউনা তাসনীম সাম্য। মা আরজুমান মোস্তারি ও বাবা আজমত আলীর ২য় সন্তান সাম্য। আজমত আলী মেলান্দহ উপজেলা সমাজসেবা অফিসের অফিস সহকারী হিসেবে কর্মরত আছেন। গান গাওয়া, ছবি আঁকা ও নাচের পাশাপাশি সাম্য পড়াশোনাও করে এবং খুব ভালোভাবে করে। সে উত্তর মেলান্দহ সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের ৩য় শ্রেণির শিক্ষার্থী।

সাম্য'র গানগুলো সোশ্যাল মিডিয়াইয় ভাইরাল হওয়ার অন্যতম কারণ সেখানকার উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা। তিনিই বেশিরভাগ সময় সাম্য'র গান ফেসবুকে আপলোড করেন। কারণ হিসেবে মেলান্দহ উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা তামিম ইয়ামীন জানালেন, মেয়ে লিলিথ আর সাম্য সারাদিন একসঙ্গেই থাকে। যার কারণে একজনের গান মোবাইল ফোনে রেকর্ড করার সময় আরেকজন পাশেই থাকে। আর নিজের টাইমলাইনে আপলোড করার কারণে অনেকেই সাম্যকে তামীম ইয়ামীনকে নিজের মেয়ে মনে করেন। অবশ্য তামিমও সাম্যকে মেয়ে-ই ভাবেন।

মেলান্দহ থেকে কীভাবে দেশব্যাপীও ছড়িয়ে পড়ল সাম্য'র কণ্ঠ? বিষয়টির ব্যাখ্যা দিয়েছেন তামিম। গণমাধ্যমকে বলেন, গানটির লাইভ দেখে সাতক্ষীরা সদরের উপজেলা নির্বাহী অফিসার আমার ব্যাচমেট দেবাশীষ চৌধুরী ফরোয়ার্ড করেন জুবায়ের আল মাহমুদ রাসেলকে। তিনি তার অ্যাকাউন্ট থেকে আপলোড করার পর ভিডিওটি ছড়িয়ে পড়তে থাকে।