১৭, আগস্ট, ২০১৯, শনিবার | | ১৫ জ্বিলহজ্জ ১৪৪০


‘কাশ্মীর চায় আজাদী’ স্লোগানে উত্তাপ ঢাবি

রিপোর্টার নামঃ স্টাফ রিপোর্টার: | আপডেট: ০৬ আগস্ট ২০১৯, ০১:৩৪ এএম

‘কাশ্মীর চায় আজাদী’ স্লোগানে উত্তাপ ঢাবি
‘কাশ্মীর চায় আজাদী’ স্লোগানে উত্তাপ ঢাবি

ভারতীয় সংবিধানের ৩৭০ ও ৩৫ এর (ক) ধারা বাতিল করে মোদি সরকার কাশ্মীরীদের স্বায়ত্তশাসন কেড়ে নেয়ার প্রতিবাদে বিক্ষোভ করেছে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষার্থীরা। এ সময় বিক্ষোভকারীরা কাশ্মীরের স্বাধীনতা দাবি করে বিভিন্ন স্লোগান দিতে থাকে।

সোমবার রাতে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষার্থীরা এ বিক্ষোভ করে। এ সময় তারা ‘কাশ্মীর চায় আজাদী’; ‘কাশ্মীরের বীর জনতা লও লও লও সালাম’; ‘কাশ্মীরের বীর জনতা আমরা আছি তোমার সাথে’ ইত্যাদি স্লোগান দেয়।

বিক্ষোভ মিছিলটি টিএসসি থেকে শুরু হয়ে বিশ্ববিদ্যালয়ের মধুর ক্যান্টিন, কেন্দ্রীয় লাইব্রেরিসহ বিভিন্ন গুরুত্বপূর্ণ স্থান প্রদক্ষিণ করে সন্ত্রাস বিরোধী রাজু ভাস্কর্যের সামনে এসে শেষ হয়।

মিছিলে অংশগ্রহণকারী এক শিক্ষার্থী বলেন, কাশ্মীরে আমাদের ভাই-বোনেরা বছরের পর বছর অত্যাচারিত হয়ে যাচ্ছে। ভারত সরকার প্রতিনিয়ত তাদের উপর অবিচার করছে। এসবের শেষ চাই। চাই আজাদ কাশ্মীর। চাই আমার ভাইবোনের নিরাপত্তা, বেঁচে থাকার অধিকার।

মিছিলে অংশগ্রহণকারী আরেক শিক্ষার্থী বলেন, আমরা কাশ্মীর সমস্যার স্থায়ী সমাধান চাই। এটা বিশ্বের সবচেয়ে দীর্ঘদিনের সমস্যা। কাশ্মীর নিয়ে আর কোনো টালবাহানা চলবে না। যখনই কোনো দেশের মানুষের উপর হামলা হয়, জাতিসংঘের গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা লক্ষ্য করা যায়। কিন্তু কাশ্মীর সমস্যা নিয়ে জাতিসংঘ চুপ কেন! জবাব চায়।

‘কাশ্মীর চায় আজাদী’ স্লোগানে উত্তাপ ঢাবি

প্রতিবেদক নাম: স্টাফ রিপোর্টার: ,

প্রকাশের সময়ঃ ০৬ আগস্ট ২০১৯, ০১:৩৪ এএম

ভারতীয় সংবিধানের ৩৭০ ও ৩৫ এর (ক) ধারা বাতিল করে মোদি সরকার কাশ্মীরীদের স্বায়ত্তশাসন কেড়ে নেয়ার প্রতিবাদে বিক্ষোভ করেছে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষার্থীরা। এ সময় বিক্ষোভকারীরা কাশ্মীরের স্বাধীনতা দাবি করে বিভিন্ন স্লোগান দিতে থাকে।

সোমবার রাতে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষার্থীরা এ বিক্ষোভ করে। এ সময় তারা ‘কাশ্মীর চায় আজাদী’; ‘কাশ্মীরের বীর জনতা লও লও লও সালাম’; ‘কাশ্মীরের বীর জনতা আমরা আছি তোমার সাথে’ ইত্যাদি স্লোগান দেয়।

বিক্ষোভ মিছিলটি টিএসসি থেকে শুরু হয়ে বিশ্ববিদ্যালয়ের মধুর ক্যান্টিন, কেন্দ্রীয় লাইব্রেরিসহ বিভিন্ন গুরুত্বপূর্ণ স্থান প্রদক্ষিণ করে সন্ত্রাস বিরোধী রাজু ভাস্কর্যের সামনে এসে শেষ হয়।

মিছিলে অংশগ্রহণকারী এক শিক্ষার্থী বলেন, কাশ্মীরে আমাদের ভাই-বোনেরা বছরের পর বছর অত্যাচারিত হয়ে যাচ্ছে। ভারত সরকার প্রতিনিয়ত তাদের উপর অবিচার করছে। এসবের শেষ চাই। চাই আজাদ কাশ্মীর। চাই আমার ভাইবোনের নিরাপত্তা, বেঁচে থাকার অধিকার।

মিছিলে অংশগ্রহণকারী আরেক শিক্ষার্থী বলেন, আমরা কাশ্মীর সমস্যার স্থায়ী সমাধান চাই। এটা বিশ্বের সবচেয়ে দীর্ঘদিনের সমস্যা। কাশ্মীর নিয়ে আর কোনো টালবাহানা চলবে না। যখনই কোনো দেশের মানুষের উপর হামলা হয়, জাতিসংঘের গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা লক্ষ্য করা যায়। কিন্তু কাশ্মীর সমস্যা নিয়ে জাতিসংঘ চুপ কেন! জবাব চায়।