২৩, আগস্ট, ২০১৯, শুক্রবার | | ২১ জ্বিলহজ্জ ১৪৪০


কানাডায় একই পরিবারের চার বাংলাদেশির মরদেহ উদ্ধার

রিপোর্টার নামঃ আন্তর্জাতিক ডেস্ক: | আপডেট: ৩০ জুলাই ২০১৯, ০৯:২২ এএম

কানাডায় একই পরিবারের চার বাংলাদেশির মরদেহ উদ্ধার
কানাডায় একই পরিবারের চার বাংলাদেশির মরদেহ উদ্ধার

কানাডার টরন্টোর মারখাম এলাকার একটি বাড়ি থেকে একই পরিবারের চার বাংলাদেশির মরদেহ উদ্ধার করা হয়েছে। রোববার রাতে ওই ঘটনা ঘটেছে বলে জানিয়েছে পুলিশ। তবে কিভাবে তাদের মৃত্যু হলো তা এখনও নিশ্চিত নয়। এই ঘটনায় ওই পরিবারেরই এক সদস্যকে আটক করেছে পুলিশ।

নিহতরা হলেন-মোহাম্মদ মনির, তার স্ত্রী মুক্তা জামান, তাদের মেয়ে এবং বয়স্ক এক নারী। তাদের বাড়ির সামনে থেকে ২০ বছর বয়সী এক যুবককে আটক করা হয়েছে। সে মনিরের ছেলে। পুলিশ এই ঘটনার তদন্ত করছে।

২০০২ সাল থেকে কানাডায় বসবাস করছিল ওই পরিবারটি। সম্প্রতি মনির ও মুক্তা জামানের ২৫তম বিবাহ বার্ষিকী উপলক্ষ্যে তাদের বাড়িতে আয়োজিত একটি ঘরোয়া অনুষ্ঠানে অনেক বাংলাদেশি অংশগ্রহণ করেন। নিহতরা টাঙ্গাইল জেলার অধিবাসী।

পুলিশের ধারণা এটি একটি হত্যাকাণ্ড। নিহত দম্পতির আটক হওয়া ছেলেটি মানসিকভাবে অসুস্থ। সে মাদকাসক্ত হয়ে এই হত্যাকাণ্ড ঘটিয়ে থাকতে পারে বলে ধারণা করা হচ্ছে। পরিবারের সদস্যদের খুনের বিষয়টি সেই প্রথম মন্ট্রিলে থাকা তার এক বন্ধুকে ফোন করে জানায়।

কানাডায় একই পরিবারের চার বাংলাদেশির মরদেহ উদ্ধার

প্রতিবেদক নাম: আন্তর্জাতিক ডেস্ক: ,

প্রকাশের সময়ঃ ৩০ জুলাই ২০১৯, ০৯:২২ এএম

কানাডার টরন্টোর মারখাম এলাকার একটি বাড়ি থেকে একই পরিবারের চার বাংলাদেশির মরদেহ উদ্ধার করা হয়েছে। রোববার রাতে ওই ঘটনা ঘটেছে বলে জানিয়েছে পুলিশ। তবে কিভাবে তাদের মৃত্যু হলো তা এখনও নিশ্চিত নয়। এই ঘটনায় ওই পরিবারেরই এক সদস্যকে আটক করেছে পুলিশ।

নিহতরা হলেন-মোহাম্মদ মনির, তার স্ত্রী মুক্তা জামান, তাদের মেয়ে এবং বয়স্ক এক নারী। তাদের বাড়ির সামনে থেকে ২০ বছর বয়সী এক যুবককে আটক করা হয়েছে। সে মনিরের ছেলে। পুলিশ এই ঘটনার তদন্ত করছে।

২০০২ সাল থেকে কানাডায় বসবাস করছিল ওই পরিবারটি। সম্প্রতি মনির ও মুক্তা জামানের ২৫তম বিবাহ বার্ষিকী উপলক্ষ্যে তাদের বাড়িতে আয়োজিত একটি ঘরোয়া অনুষ্ঠানে অনেক বাংলাদেশি অংশগ্রহণ করেন। নিহতরা টাঙ্গাইল জেলার অধিবাসী।

পুলিশের ধারণা এটি একটি হত্যাকাণ্ড। নিহত দম্পতির আটক হওয়া ছেলেটি মানসিকভাবে অসুস্থ। সে মাদকাসক্ত হয়ে এই হত্যাকাণ্ড ঘটিয়ে থাকতে পারে বলে ধারণা করা হচ্ছে। পরিবারের সদস্যদের খুনের বিষয়টি সেই প্রথম মন্ট্রিলে থাকা তার এক বন্ধুকে ফোন করে জানায়।