১৮, আগস্ট, ২০১৯, রোববার | | ১৬ জ্বিলহজ্জ ১৪৪০


কর্তৃপক্ষের আশ্বাসে ক্লাসে ফিরলেন ঢাবির আন্দোলনকারীরা

রিপোর্টার নামঃ স্টাফ রিপোর্টার: | আপডেট: ২৬ জুলাই ২০১৯, ১২:০১ এএম

কর্তৃপক্ষের আশ্বাসে ক্লাসে ফিরলেন ঢাবির আন্দোলনকারীরা
কর্তৃপক্ষের আশ্বাসে ক্লাসে ফিরলেন ঢাবির আন্দোলনকারীরা

ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের (ঢাবি) অধিভুক্ত সাত কলেজ নিয়ে সৃষ্ট সমস্যা সমাধানে ১০ সদস্য বিশিষ্ট একটি কমিটি গঠন করায় ক্লাস-পরীক্ষা বর্জন কর্মসূচি থেকে সরে এসেছেন আন্দোলনকারীরা। আজ বৃহস্পতিবার দুপুরে বিশ্ববিদ্যালয়ের অপরাজেয় বাংলার পাদদেশে আয়োজিত সংবাদ সম্মেলন থেকে এই ঘোষণা দেন তারা। এর আগে আন্দোলনকারীরা একটি বিক্ষোভ মিছিল বের করেন। মিছিলটি ক্যাম্পাসের বিভিন্ন সড়ক প্রদক্ষিণ করে।

সংবাদ সম্মেলনে আন্দোলনকারীদের মুখপাত্র শাকিল মিয়া বলেন, ‘কর্তৃপক্ষের আশ্বাসে আমরা ক্লাস-পরীক্ষা বর্জন কর্মসূচি থেকে সরে যাওয়ার সিদ্ধান্ত নিয়েছি। তবে অন্যান্য কর্মসূচি চলমান থাকবে। প্রশাসনের দেওয়া আশ্বাসকে পর্যবেক্ষণে রেখে পরবর্তী কর্মসূচি ঘোষণা করা হবে ‘

এ সময় আগামী রোববার রাষ্ট্রপতি বরারব তারা স্মারকলিপি জমা দেবেন উল্লেখ করে তিনি বলেন, ‘বিশ্ববিদ্যালয় প্রশাসন যদি সাত কলেজ অধিভুক্তি বাতিল না করে বা কালক্ষেপণ করে, তাহলে আবার কঠোর আন্দোলনে যাব আমরা।’

আন্দোলনকারীদের মুখপাত্র বলেন, ‘সাত কলেজের অধিভুক্তি ছিল একটি অপরিকল্পিত সিদ্ধান্ত। যে কারণে আমাদের শিক্ষার্থীরা স্বতঃস্ফূর্তভাবে অধিভুক্তি বাতিলের দাবিতে আন্দোলন করে আসছে। কিন্তু প্রশাসন বারবার মিথ্যা আশ্বাস দিয়েছে।’ দাবি আদায় না হওয়া পর্যন্ত শিক্ষার্থীরা আন্দোলন চালিয়ে যাবে বলে মন্তব্য করেন তিনি।

পরে তারা পুনরায় বিক্ষোভ মিছিল বের করেন। মিছিলটি ক্যাম্পাসের বিভিন্ন সড়ক প্রদক্ষিণ করে। এর আগে সাত কলেজের সংকট সমাধানের লক্ষ্যে বুধবার বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রোভাইস চ্যান্সেলর (প্রশাসন) অধ্যাপক ড. মুহাম্মদ সামাদকে আহ্বায়ক করে একটি কমিটি গঠন হয়। তাদেরকে আগামী ১৫ কার্যদিবসের মধ্যে কলেজ অধিভুক্তির বিষয়ে সুপারিশ দিতে বলা হয়েছে।

কর্তৃপক্ষের আশ্বাসে ক্লাসে ফিরলেন ঢাবির আন্দোলনকারীরা

প্রতিবেদক নাম: স্টাফ রিপোর্টার: ,

প্রকাশের সময়ঃ ২৬ জুলাই ২০১৯, ১২:০১ এএম

ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের (ঢাবি) অধিভুক্ত সাত কলেজ নিয়ে সৃষ্ট সমস্যা সমাধানে ১০ সদস্য বিশিষ্ট একটি কমিটি গঠন করায় ক্লাস-পরীক্ষা বর্জন কর্মসূচি থেকে সরে এসেছেন আন্দোলনকারীরা। আজ বৃহস্পতিবার দুপুরে বিশ্ববিদ্যালয়ের অপরাজেয় বাংলার পাদদেশে আয়োজিত সংবাদ সম্মেলন থেকে এই ঘোষণা দেন তারা। এর আগে আন্দোলনকারীরা একটি বিক্ষোভ মিছিল বের করেন। মিছিলটি ক্যাম্পাসের বিভিন্ন সড়ক প্রদক্ষিণ করে।

সংবাদ সম্মেলনে আন্দোলনকারীদের মুখপাত্র শাকিল মিয়া বলেন, ‘কর্তৃপক্ষের আশ্বাসে আমরা ক্লাস-পরীক্ষা বর্জন কর্মসূচি থেকে সরে যাওয়ার সিদ্ধান্ত নিয়েছি। তবে অন্যান্য কর্মসূচি চলমান থাকবে। প্রশাসনের দেওয়া আশ্বাসকে পর্যবেক্ষণে রেখে পরবর্তী কর্মসূচি ঘোষণা করা হবে ‘

এ সময় আগামী রোববার রাষ্ট্রপতি বরারব তারা স্মারকলিপি জমা দেবেন উল্লেখ করে তিনি বলেন, ‘বিশ্ববিদ্যালয় প্রশাসন যদি সাত কলেজ অধিভুক্তি বাতিল না করে বা কালক্ষেপণ করে, তাহলে আবার কঠোর আন্দোলনে যাব আমরা।’

আন্দোলনকারীদের মুখপাত্র বলেন, ‘সাত কলেজের অধিভুক্তি ছিল একটি অপরিকল্পিত সিদ্ধান্ত। যে কারণে আমাদের শিক্ষার্থীরা স্বতঃস্ফূর্তভাবে অধিভুক্তি বাতিলের দাবিতে আন্দোলন করে আসছে। কিন্তু প্রশাসন বারবার মিথ্যা আশ্বাস দিয়েছে।’ দাবি আদায় না হওয়া পর্যন্ত শিক্ষার্থীরা আন্দোলন চালিয়ে যাবে বলে মন্তব্য করেন তিনি।

পরে তারা পুনরায় বিক্ষোভ মিছিল বের করেন। মিছিলটি ক্যাম্পাসের বিভিন্ন সড়ক প্রদক্ষিণ করে। এর আগে সাত কলেজের সংকট সমাধানের লক্ষ্যে বুধবার বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রোভাইস চ্যান্সেলর (প্রশাসন) অধ্যাপক ড. মুহাম্মদ সামাদকে আহ্বায়ক করে একটি কমিটি গঠন হয়। তাদেরকে আগামী ১৫ কার্যদিবসের মধ্যে কলেজ অধিভুক্তির বিষয়ে সুপারিশ দিতে বলা হয়েছে।