১৭, আগস্ট, ২০১৯, শনিবার | | ১৫ জ্বিলহজ্জ ১৪৪০


৬৮ বছরের রুশিয়া বেগম এখন চতুর্থ শ্রেণির ছাত্রী

রিপোর্টার নামঃ আরাফাতুজ্জামান | আপডেট: ২৩ জুলাই ২০১৯, ০১:১৩ পিএম

৬৮ বছরের রুশিয়া বেগম এখন চতুর্থ শ্রেণির ছাত্রী
৬৮ বছরের রুশিয়া বেগম এখন চতুর্থ শ্রেণির ছাত্রী

ঝিনাইদহের হরিনাকুন্ডু উপজেলার শিশুকলি সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের ৪র্থ শ্রেণির নিয়মিত ছাত্রী রুশিয়া বেগম। বয়স ৬৮ বছর। তিন সন্তানের জননী রুশিয়া বেগম উপজেলার চটকাবাড়িয়া গ্রামের অবসর প্রাপ্ত সরকারি চাকুরীজীবি আবুল হোসেনের স্ত্রী।

বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক আব্দুল মজিদ জানান, রুশিয়া বেগম ২০১৬ সালে ক্লাস ওয়ানে ভর্তি হয়ে আজ পর্যন্ত নিয়মিতভাবে ক্লাস করে আসছে। ক্লাসে প্রথম হয়ে ৪র্থ শ্রেণিতে উঠেছে। পড়ালেখার প্রতি ব্যাপক আগ্রহ তার।

এ ব্যাপারে রুশিয়া বেগম বলেন, আমার ছেলের মেয়ে জ্যোতি ৩য় শ্রেণির ছাত্রী আমার পড়ার সাথি। একসাথে স্কুলে আসতে আসতে আমার পড়ালেখার প্রতি আগ্রহ জন্মায় তার পর থেকে আমি এই স্কুলের নিয়মিত ছাত্রী হয়ে যায়। আমার স্বামী আমার পড়ালেখায় ব্যাপক সহযোগিতা করে। আমার ইচ্ছে আছে এভাবে পড়ালেখা করে এসএসসি পাশ করবো। ক্লাসের সবাই তাকে দাদি বলে ডাকে।

৬৮ বছরের রুশিয়া বেগম এখন চতুর্থ শ্রেণির ছাত্রী

প্রতিবেদক নাম: আরাফাতুজ্জামান ,

প্রকাশের সময়ঃ ২৩ জুলাই ২০১৯, ০১:১৩ পিএম

ঝিনাইদহের হরিনাকুন্ডু উপজেলার শিশুকলি সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের ৪র্থ শ্রেণির নিয়মিত ছাত্রী রুশিয়া বেগম। বয়স ৬৮ বছর। তিন সন্তানের জননী রুশিয়া বেগম উপজেলার চটকাবাড়িয়া গ্রামের অবসর প্রাপ্ত সরকারি চাকুরীজীবি আবুল হোসেনের স্ত্রী।

বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক আব্দুল মজিদ জানান, রুশিয়া বেগম ২০১৬ সালে ক্লাস ওয়ানে ভর্তি হয়ে আজ পর্যন্ত নিয়মিতভাবে ক্লাস করে আসছে। ক্লাসে প্রথম হয়ে ৪র্থ শ্রেণিতে উঠেছে। পড়ালেখার প্রতি ব্যাপক আগ্রহ তার।

এ ব্যাপারে রুশিয়া বেগম বলেন, আমার ছেলের মেয়ে জ্যোতি ৩য় শ্রেণির ছাত্রী আমার পড়ার সাথি। একসাথে স্কুলে আসতে আসতে আমার পড়ালেখার প্রতি আগ্রহ জন্মায় তার পর থেকে আমি এই স্কুলের নিয়মিত ছাত্রী হয়ে যায়। আমার স্বামী আমার পড়ালেখায় ব্যাপক সহযোগিতা করে। আমার ইচ্ছে আছে এভাবে পড়ালেখা করে এসএসসি পাশ করবো। ক্লাসের সবাই তাকে দাদি বলে ডাকে।