২২, আগস্ট, ২০১৯, বৃহস্পতিবার | | ২০ জ্বিলহজ্জ ১৪৪০


বাগলী শুল্ক ষ্টেশনে উক্তোলন করা হয়নি জাতীয় পতাকা!

এ কেমন দৃষ্টতা?

রিপোর্টার নামঃ হাবিব সরোয়ার আজাদ | আপডেট: ২২ জুলাই ২০১৯, ০১:৩২ পিএম

বাগলী শুল্ক ষ্টেশনে উক্তোলন করা হয়নি জাতীয় পতাকা!
বাগলী শুল্ক ষ্টেশনে উক্তোলন করা হয়নি জাতীয় পতাকা!

সুনামগঞ্জের তাহিরপুরের বাগলী শুল্ক ষ্টেশনে ভারত থেকে আমদানি কার্যক্রম চলাকালীন সময়ে উক্তোলন করা হয়নি জাতীয় পতাকা!।

এ নিয়ে জাতীয় পতাকা বিধিমালা লঙ্গন ও অবমাননার অভিযোগ এনে নানা শ্রেণি পেশার লোকজন কাষ্টসমের এহেন দায় দায়িত্বহীন কর্মকান্ডে ক্ষোভ প্রকাশ করেছেন।

উপজেলার বাগলী স্থল শুল্ক ষ্টেশনের একাধিক আমদানিকারক, ব্যবসায়ী ও শ্রমিক জানান, জেলার তাহিরপুর উপজেলার বাগলী স্থল শুল্ক ষ্টেশন দিয়ে ওপারের ভারত থেকে বৃহস্পতিবার সকাল ৯টা থেকে চুনাপাথর আমদানি কার্যক্রম যথারীতি চালু থাকা অবস্থায় কাষ্টমস অফিসের স্যালুটিং ঢাইজ (সম্মান প্রদর্শন) স্থানে পতাকা টাঙ্গানোর দুটি খুটি থাকলেও তাতে টাঙ্গানো হয়নি কাষ্টমসের মনোগ্রাম খচিত নিজস্ব পতাকা এমনকি জাতীয় পতাকা।

বৃহস্পতিবার বেলা ১২টার দিকে সুনামগঞ্জের তাহিরপুরের বড়ছড়া স্থল শুল্ক ষ্টেশন নিয়ন্ত্রিত জেলার উওর-পশ্চিম সীমান্তে থাকা একই উপজেলার বাগলী স্থল শুল্ক ষ্টেশনে সরজমিনে গেলে সেখানকার ব্যবসায়ী, শ্রমিক,আমদানিকারক সহ নানা শ্রেণিপেশার লোকজন অভিযোগ করেন বৃহস্পতিবার সকাল ৯টা থেকে শুল্ক ষ্টেশন দিয়ে ভারত থেকে চুনাপাথর আমদানি কার্যক্রম চালু হলেও সকাল থেকে সম্মাননা প্রদর্শন স্থানে জাতীয় পতাকা উক্তোলন করা হয়নি।

এর সত্যতা খুজতে বেলা ০১ টা ৪৪ মিনিটে দিকে বাগলী শুল্ক ষ্টেশন অফিসের সামনে গেলে দেখা যায় সম্মাননা প্রদর্শনের নির্ধারিত স্থানে কাষ্টমসের নিজস্ব পতাকা ও জাতীয় পতাকা কোনটাই টাঙ্গানো হয়নি।

এরপর অফিসের ভেতরে গেলে সেখানে চালানপত্র (কারপাস) গ্রহনে দায়িত্বে থাকা কাষ্টমস সিপাহি বিশ্বজিৎ চক্রবতী জানান ,শুÍল্ক ষ্টেশনে আমদানি কার্যক্রম চলাকালীন সময়ে প্রতিদিন সকাল সাড়ে ০৮টা থেকে বিকেল অবধি জাতীয় পতাকার সাথে কাষ্টমসের নিজস্ব মনোগ্রাম খচিত পতাকা টাঙ্গিয়ে রাখার নিয়ম রয়েছে।

বৃহস্পতিবার সকাল থেকে জাতীয় পতাকা না টাঙ্গানোর কারন জানতে চাইলে তিনি বলেন, আসলে (আজ বৃহস্পতিবার) ইন্সপেক্টর মোয়াজ্জেম হোসেন সিলেটের বাহিরে থাকায় তিনি আসেননি, তাই আমি নিজেও পতাকা টাঙ্গানোর বিষয়টি খেয়াল করিনি।,

সুনামগঞ্জের তাহিরপুরের বড়ছড়া স্থল শুল্ক ষ্টেশনের সুপারিনটেনডেন্ট নুরুল ইসলামের নিকট এ বিষয়ে অবহিত করে বক্তব্য জানতে চাইলে তিনি বলেন, কেন বাগলী শুল্ক ষ্টেশন কার্যালয়ের সামনে  জাতীয় পতাকা  ও কাস্টমসের নিজস্ব পতাকা টাঙ্গানো হয়নি সেটি খোজ নিয়ে দেখব।

মুক্তিযুদ্ধের ৫নং সেক্টরের ৪ নং সাব সেক্টরে শহীদ সিরাজ স্মৃতি সংসদের সিনিয়র সদস্য নজরুল ইসলাম শিকদার জানান, শুল্ক ষ্টেশনে আমদানি কার্যক্রম চালু থাকা অবস্থায় কাষ্টমসের দায়িত্বশীলরা একটি আন্তর্জাতিক ব্যবসা পয়েন্টে জাতীয় পতাকা উক্তোলন না করে যে অবহেলা বা অবমাননা করেছেন তার জন্য তদন্ত সাপেক্ষ প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা নেয়ার দাবি জানাচ্ছি প্রশাসন ও কাষ্টমস কতৃপক্ষের প্রতি।  

সুনামগঞ্জের ভারপ্রাপ্ত জেলা প্রশাসক ( রাজস্ব) মো. শরিফুল ইসলাম বলেন, অফিস চলাকালীন সময়ে  (ছুটির দিন ব্যাতিত ) যদি কোন প্রতিষ্টান বা দপ্তর জাতীয় পতাকা উক্তোলন না করে থাকেন তবে সেক্ষেত্রে জাতীয় পতাকা বিধিমালা ১৯৭২ সালের আইন অনুযায়ী এটি শাস্তিযোগ্য অপরাধ বলে বিবেচিত হবে।, তিনি আরো বলেন, বাগলী স্থল শুল্ক ষ্টেশনে কেন বৃহস্পতিবার জাতীয় পতাকা টাঙ্গানো হয়নি সে ব্যাপারে জেলা প্রশাসন খোজ নিয়ে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা নেবে। 

নোট: ছবিগুলো র্শুখ ষ্টেশন চালু থাকা অবস্থায় বৃহস্পতিবার বেলা দেড়টা থেকে ১.৪৪ মিসিনটের সময় তোলা হয়েছে। 


বাগলী শুল্ক ষ্টেশনে উক্তোলন করা হয়নি জাতীয় পতাকা!

প্রতিবেদক নাম: হাবিব সরোয়ার আজাদ ,

প্রকাশের সময়ঃ ২২ জুলাই ২০১৯, ০১:৩২ পিএম

সুনামগঞ্জের তাহিরপুরের বাগলী শুল্ক ষ্টেশনে ভারত থেকে আমদানি কার্যক্রম চলাকালীন সময়ে উক্তোলন করা হয়নি জাতীয় পতাকা!।

এ নিয়ে জাতীয় পতাকা বিধিমালা লঙ্গন ও অবমাননার অভিযোগ এনে নানা শ্রেণি পেশার লোকজন কাষ্টসমের এহেন দায় দায়িত্বহীন কর্মকান্ডে ক্ষোভ প্রকাশ করেছেন।

উপজেলার বাগলী স্থল শুল্ক ষ্টেশনের একাধিক আমদানিকারক, ব্যবসায়ী ও শ্রমিক জানান, জেলার তাহিরপুর উপজেলার বাগলী স্থল শুল্ক ষ্টেশন দিয়ে ওপারের ভারত থেকে বৃহস্পতিবার সকাল ৯টা থেকে চুনাপাথর আমদানি কার্যক্রম যথারীতি চালু থাকা অবস্থায় কাষ্টমস অফিসের স্যালুটিং ঢাইজ (সম্মান প্রদর্শন) স্থানে পতাকা টাঙ্গানোর দুটি খুটি থাকলেও তাতে টাঙ্গানো হয়নি কাষ্টমসের মনোগ্রাম খচিত নিজস্ব পতাকা এমনকি জাতীয় পতাকা।

বৃহস্পতিবার বেলা ১২টার দিকে সুনামগঞ্জের তাহিরপুরের বড়ছড়া স্থল শুল্ক ষ্টেশন নিয়ন্ত্রিত জেলার উওর-পশ্চিম সীমান্তে থাকা একই উপজেলার বাগলী স্থল শুল্ক ষ্টেশনে সরজমিনে গেলে সেখানকার ব্যবসায়ী, শ্রমিক,আমদানিকারক সহ নানা শ্রেণিপেশার লোকজন অভিযোগ করেন বৃহস্পতিবার সকাল ৯টা থেকে শুল্ক ষ্টেশন দিয়ে ভারত থেকে চুনাপাথর আমদানি কার্যক্রম চালু হলেও সকাল থেকে সম্মাননা প্রদর্শন স্থানে জাতীয় পতাকা উক্তোলন করা হয়নি।

এর সত্যতা খুজতে বেলা ০১ টা ৪৪ মিনিটে দিকে বাগলী শুল্ক ষ্টেশন অফিসের সামনে গেলে দেখা যায় সম্মাননা প্রদর্শনের নির্ধারিত স্থানে কাষ্টমসের নিজস্ব পতাকা ও জাতীয় পতাকা কোনটাই টাঙ্গানো হয়নি।

এরপর অফিসের ভেতরে গেলে সেখানে চালানপত্র (কারপাস) গ্রহনে দায়িত্বে থাকা কাষ্টমস সিপাহি বিশ্বজিৎ চক্রবতী জানান ,শুÍল্ক ষ্টেশনে আমদানি কার্যক্রম চলাকালীন সময়ে প্রতিদিন সকাল সাড়ে ০৮টা থেকে বিকেল অবধি জাতীয় পতাকার সাথে কাষ্টমসের নিজস্ব মনোগ্রাম খচিত পতাকা টাঙ্গিয়ে রাখার নিয়ম রয়েছে।

বৃহস্পতিবার সকাল থেকে জাতীয় পতাকা না টাঙ্গানোর কারন জানতে চাইলে তিনি বলেন, আসলে (আজ বৃহস্পতিবার) ইন্সপেক্টর মোয়াজ্জেম হোসেন সিলেটের বাহিরে থাকায় তিনি আসেননি, তাই আমি নিজেও পতাকা টাঙ্গানোর বিষয়টি খেয়াল করিনি।,

সুনামগঞ্জের তাহিরপুরের বড়ছড়া স্থল শুল্ক ষ্টেশনের সুপারিনটেনডেন্ট নুরুল ইসলামের নিকট এ বিষয়ে অবহিত করে বক্তব্য জানতে চাইলে তিনি বলেন, কেন বাগলী শুল্ক ষ্টেশন কার্যালয়ের সামনে  জাতীয় পতাকা  ও কাস্টমসের নিজস্ব পতাকা টাঙ্গানো হয়নি সেটি খোজ নিয়ে দেখব।

মুক্তিযুদ্ধের ৫নং সেক্টরের ৪ নং সাব সেক্টরে শহীদ সিরাজ স্মৃতি সংসদের সিনিয়র সদস্য নজরুল ইসলাম শিকদার জানান, শুল্ক ষ্টেশনে আমদানি কার্যক্রম চালু থাকা অবস্থায় কাষ্টমসের দায়িত্বশীলরা একটি আন্তর্জাতিক ব্যবসা পয়েন্টে জাতীয় পতাকা উক্তোলন না করে যে অবহেলা বা অবমাননা করেছেন তার জন্য তদন্ত সাপেক্ষ প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা নেয়ার দাবি জানাচ্ছি প্রশাসন ও কাষ্টমস কতৃপক্ষের প্রতি।  

সুনামগঞ্জের ভারপ্রাপ্ত জেলা প্রশাসক ( রাজস্ব) মো. শরিফুল ইসলাম বলেন, অফিস চলাকালীন সময়ে  (ছুটির দিন ব্যাতিত ) যদি কোন প্রতিষ্টান বা দপ্তর জাতীয় পতাকা উক্তোলন না করে থাকেন তবে সেক্ষেত্রে জাতীয় পতাকা বিধিমালা ১৯৭২ সালের আইন অনুযায়ী এটি শাস্তিযোগ্য অপরাধ বলে বিবেচিত হবে।, তিনি আরো বলেন, বাগলী স্থল শুল্ক ষ্টেশনে কেন বৃহস্পতিবার জাতীয় পতাকা টাঙ্গানো হয়নি সে ব্যাপারে জেলা প্রশাসন খোজ নিয়ে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা নেবে। 

নোট: ছবিগুলো র্শুখ ষ্টেশন চালু থাকা অবস্থায় বৃহস্পতিবার বেলা দেড়টা থেকে ১.৪৪ মিসিনটের সময় তোলা হয়েছে।