২২, আগস্ট, ২০১৯, বৃহস্পতিবার | | ২০ জ্বিলহজ্জ ১৪৪০


তাজমহলকে মন্দির বানিয়ে পূজা করতে চায় শিবসেনা!

রিপোর্টার নামঃ আন্তর্জাতিক ডেস্ক: | আপডেট: ২১ জুলাই ২০১৯, ০৪:১৭ পিএম

তাজমহলকে মন্দির বানিয়ে পূজা করতে চায় শিবসেনা!
তাজমহলকে মন্দির বানিয়ে পূজা করতে চায় শিবসেনা!

ভারতীয় উপমহাদেশের অন্যতম শ্রেষ্ঠ মুসলিম স্থাপত্য তাজমহলকে মন্দির বানিয়ে পূজা করতে চায় বলে হুমকি দিয়েছে উগ্র হিন্দুত্ববাদী সংগঠন শিবসেনা। শিবসেনার এ হুমকির ফলে আগ্রায় অবস্থিত তাজমহলের নিরাপত্তা বৃদ্ধি ও যথাযথ পদক্ষেপ নিতে সরকারকে চিঠি দিয়েছে ভারতের পুরাতত্ত্ব বিভাগ।

ভারতের অন্যতম পর্যটন কেন্দ্র ও ঐতিহাসিক মুসলিম স্থাপত্য তাজমহল। এ তাজমহলে কখনও পূজা অনুষ্ঠিত হয়নি। আর্কিওলজিক্যাল সার্ভে অব ইন্ডিয়া জানিয়েছে, ১৯৫৮ সালের প্রত্নতত্ত্ব আইন অনুযায়ী কোনো পুরাতাত্ত্বিক সৌধে পূজা কিংবা যে কোনো ধর্মীয় আচরণই নিষিদ্ধ। এই চিঠির পরই যোগী সরকার তাজমহলের নিরাপত্তা বাড়িয়েছে।

দেশটির হিন্দুত্ববাদীদের দাবি হলো- 'তাজমহল আসলে তাজমহল নয়। ওটা শিবের মন্দির। যার আসল নাম তেজো মহালায়া। আর তা মুসলিমদের তৈরি সৌধও নয় বরং প্রাচীনকালে হিন্দুদের তৈরি শিব মন্দির।'

শিবসেনার পাশাপাশি ভারতের নানা হিন্দুত্ববাদী সংগঠনগুলো এ মর্মে জোটবদ্ধ হয়েছে যে, ‌তাজমহল কোনোও মুসলিম সৌধ নয়, হিন্দু মন্দির। তাই তাজমহলে শিবের ভক্তরা প্রত্যেক সোমবার পূজা ও যজ্ঞের আয়োজন করতে চাই। কট্টর হিন্দুত্ববাদীদের সঙ্গে সুর মিলিয়েছেন রাজনৈতিক দল শিবসেনা।

শিবসেনার আগ্রা শহর কমিটির সভাপতি ভিনু লাভানিয়া হুমকি দিয়ে বলেছেন, ‘তাজমহল কোনও মুসলিম সৌধ নয়। এটা তেজো মহালয়া, ভগবান শিবের মন্দির। পুরো শ্রাবণ মাসজুড়ে প্রতি সোমবার তাজমহলে ঢুকে যজ্ঞ এবং পুজো করতে চাই।’ শুধু তাই নয়, সোমবার যে কোনোভাবে তারা মন্দিরে ঢুকবেনই। প্রশাসন বাঁধা দেওয়ার চেষ্টা করলে তার ফল ভালো হবে না বলেও সুর চড়িয়েছেন তিনি।

এ দিকে পুরাতত্ত্ব বিভাগের প্রধান জানিয়েছেন, ভারতের তাজমহলে কখনো পূজা করা হয়নি। আমরা সরকারের কাছে তাজমহলের বাইরে নিরাপত্তা বাড়ানোর জন্যে আবেদন জানাচ্ছি।

তাজমহলকে মন্দির বানিয়ে পূজা করতে চায় শিবসেনা!

প্রতিবেদক নাম: আন্তর্জাতিক ডেস্ক: ,

প্রকাশের সময়ঃ ২১ জুলাই ২০১৯, ০৪:১৭ পিএম

ভারতীয় উপমহাদেশের অন্যতম শ্রেষ্ঠ মুসলিম স্থাপত্য তাজমহলকে মন্দির বানিয়ে পূজা করতে চায় বলে হুমকি দিয়েছে উগ্র হিন্দুত্ববাদী সংগঠন শিবসেনা। শিবসেনার এ হুমকির ফলে আগ্রায় অবস্থিত তাজমহলের নিরাপত্তা বৃদ্ধি ও যথাযথ পদক্ষেপ নিতে সরকারকে চিঠি দিয়েছে ভারতের পুরাতত্ত্ব বিভাগ।

ভারতের অন্যতম পর্যটন কেন্দ্র ও ঐতিহাসিক মুসলিম স্থাপত্য তাজমহল। এ তাজমহলে কখনও পূজা অনুষ্ঠিত হয়নি। আর্কিওলজিক্যাল সার্ভে অব ইন্ডিয়া জানিয়েছে, ১৯৫৮ সালের প্রত্নতত্ত্ব আইন অনুযায়ী কোনো পুরাতাত্ত্বিক সৌধে পূজা কিংবা যে কোনো ধর্মীয় আচরণই নিষিদ্ধ। এই চিঠির পরই যোগী সরকার তাজমহলের নিরাপত্তা বাড়িয়েছে।

দেশটির হিন্দুত্ববাদীদের দাবি হলো- 'তাজমহল আসলে তাজমহল নয়। ওটা শিবের মন্দির। যার আসল নাম তেজো মহালায়া। আর তা মুসলিমদের তৈরি সৌধও নয় বরং প্রাচীনকালে হিন্দুদের তৈরি শিব মন্দির।'

শিবসেনার পাশাপাশি ভারতের নানা হিন্দুত্ববাদী সংগঠনগুলো এ মর্মে জোটবদ্ধ হয়েছে যে, ‌তাজমহল কোনোও মুসলিম সৌধ নয়, হিন্দু মন্দির। তাই তাজমহলে শিবের ভক্তরা প্রত্যেক সোমবার পূজা ও যজ্ঞের আয়োজন করতে চাই। কট্টর হিন্দুত্ববাদীদের সঙ্গে সুর মিলিয়েছেন রাজনৈতিক দল শিবসেনা।

শিবসেনার আগ্রা শহর কমিটির সভাপতি ভিনু লাভানিয়া হুমকি দিয়ে বলেছেন, ‘তাজমহল কোনও মুসলিম সৌধ নয়। এটা তেজো মহালয়া, ভগবান শিবের মন্দির। পুরো শ্রাবণ মাসজুড়ে প্রতি সোমবার তাজমহলে ঢুকে যজ্ঞ এবং পুজো করতে চাই।’ শুধু তাই নয়, সোমবার যে কোনোভাবে তারা মন্দিরে ঢুকবেনই। প্রশাসন বাঁধা দেওয়ার চেষ্টা করলে তার ফল ভালো হবে না বলেও সুর চড়িয়েছেন তিনি।

এ দিকে পুরাতত্ত্ব বিভাগের প্রধান জানিয়েছেন, ভারতের তাজমহলে কখনো পূজা করা হয়নি। আমরা সরকারের কাছে তাজমহলের বাইরে নিরাপত্তা বাড়ানোর জন্যে আবেদন জানাচ্ছি।