১৮, আগস্ট, ২০১৯, রোববার | | ১৬ জ্বিলহজ্জ ১৪৪০


মেয়েরা কি আখলাক অনুযায়ী স্বামী পাবে?

রিপোর্টার নামঃ ধর্ম ডেস্ক: | আপডেট: ০৫ জুলাই ২০১৯, ০৮:৪৪ পিএম

মেয়েরা কি আখলাক অনুযায়ী স্বামী পাবে?
মেয়েরা কি আখলাক অনুযায়ী স্বামী পাবে?

নামাজ, রোজা, হজ, জাকাত, পরিবার, সমাজসহ জীবনঘনিষ্ঠ ইসলামবিষয়ক প্রশ্নোত্তর অনুষ্ঠান ‘আপনার জিজ্ঞাসা’। জয়নুল আবেদীন আজাদের উপস্থাপনায় বেসরকারি একটি টেলিভিশনের জনপ্রিয় এ অনুষ্ঠানে দ‍র্শকের বিভিন্ন প্রশ্নের উত্তর দেন বিশিষ্ট আলেম ড. মুহাম্মাদ মতিউল ইসলাম।

আপনার জিজ্ঞাসার ২২৮৮তম পর্বে মেয়েরা আখলাক অনুযায়ী স্বামী পাবে কি না, সে বিষয়ে ঢাকা থেকে চিঠির মাধ্যমে জানতে চেয়েছেন একজন দর্শক। অনুলিখন করেছেন জান্নাত আরা পাপিয়া।

প্রশ্ন: একটি মেয়ের আখলাক যেমন হবে, পৃথিবীর যে মেরুতেই থাকুক, তাঁর জীবনসঙ্গীর চরিত্রও একই রকম হবে, কারণ একজন মুমিনের জন্য একজন মুমিন, একজন ব্যভিচারীর জন্য একজন ব্যভিচারী, এ কথার কি কোনো ভিত্তি আছে?

উত্তর: সুরা নুরের মধ্যে আল্লাহ বলেছেন, ‘পবিত্রের জন্য পবিত্র এবং অপবিত্রের জন্য অপবিত্র তিনি মিলিয়ে দেন।’ আমরা পবিত্র জীবনযাপন করার চেষ্টা করব এবং সন্তানদের বিবাহের সময় দ্বীনদারিকে অগ্রাধিকার দেব। এই জন্য বিবাহের প্রস্তাব যখন আসবে, তখন সাধ্যমতো চেষ্টা করে দেখা যে ওই পরিবারে দ্বীনদারি আছে কি না। ছেলের মধ্যে দ্বীনদারি আছে কি না বা মেয়ের মধ্যে দ্বীনদারি আছে কি না।

হাদিসের মধ্যে এসেছে, কোনো দ্বীনদার ছেলের সঙ্গে যদি তোমাদের মেয়ের জন্য প্রস্তাব আসে, যদি তোমরা সেই প্রস্তাবে রাজি না হও, তাহলে দুনিয়াতে ফেতনা ফাসাদের সৃষ্টি হবে।

মেয়েরা কি আখলাক অনুযায়ী স্বামী পাবে?

প্রতিবেদক নাম: ধর্ম ডেস্ক: ,

প্রকাশের সময়ঃ ০৫ জুলাই ২০১৯, ০৮:৪৪ পিএম

নামাজ, রোজা, হজ, জাকাত, পরিবার, সমাজসহ জীবনঘনিষ্ঠ ইসলামবিষয়ক প্রশ্নোত্তর অনুষ্ঠান ‘আপনার জিজ্ঞাসা’। জয়নুল আবেদীন আজাদের উপস্থাপনায় বেসরকারি একটি টেলিভিশনের জনপ্রিয় এ অনুষ্ঠানে দ‍র্শকের বিভিন্ন প্রশ্নের উত্তর দেন বিশিষ্ট আলেম ড. মুহাম্মাদ মতিউল ইসলাম।

আপনার জিজ্ঞাসার ২২৮৮তম পর্বে মেয়েরা আখলাক অনুযায়ী স্বামী পাবে কি না, সে বিষয়ে ঢাকা থেকে চিঠির মাধ্যমে জানতে চেয়েছেন একজন দর্শক। অনুলিখন করেছেন জান্নাত আরা পাপিয়া।

প্রশ্ন: একটি মেয়ের আখলাক যেমন হবে, পৃথিবীর যে মেরুতেই থাকুক, তাঁর জীবনসঙ্গীর চরিত্রও একই রকম হবে, কারণ একজন মুমিনের জন্য একজন মুমিন, একজন ব্যভিচারীর জন্য একজন ব্যভিচারী, এ কথার কি কোনো ভিত্তি আছে?

উত্তর: সুরা নুরের মধ্যে আল্লাহ বলেছেন, ‘পবিত্রের জন্য পবিত্র এবং অপবিত্রের জন্য অপবিত্র তিনি মিলিয়ে দেন।’ আমরা পবিত্র জীবনযাপন করার চেষ্টা করব এবং সন্তানদের বিবাহের সময় দ্বীনদারিকে অগ্রাধিকার দেব। এই জন্য বিবাহের প্রস্তাব যখন আসবে, তখন সাধ্যমতো চেষ্টা করে দেখা যে ওই পরিবারে দ্বীনদারি আছে কি না। ছেলের মধ্যে দ্বীনদারি আছে কি না বা মেয়ের মধ্যে দ্বীনদারি আছে কি না।

হাদিসের মধ্যে এসেছে, কোনো দ্বীনদার ছেলের সঙ্গে যদি তোমাদের মেয়ের জন্য প্রস্তাব আসে, যদি তোমরা সেই প্রস্তাবে রাজি না হও, তাহলে দুনিয়াতে ফেতনা ফাসাদের সৃষ্টি হবে।