১৮, আগস্ট, ২০১৯, রোববার | | ১৬ জ্বিলহজ্জ ১৪৪০


নরসিংদীতে পাসপোর্ট করতে এসে রোহিঙ্গা নারীসহ দালাল আটক

রিপোর্টার নামঃ জেলা প্রতিনিধি ।। প্রতিদিনের কাগজ' | আপডেট: ২৪ জুন ২০১৯, ০২:০৬ পিএম

নরসিংদীতে পাসপোর্ট করতে এসে রোহিঙ্গা নারীসহ দালাল আটক
ভূয়া পরিচয় ও জাল কাগজপত্র দিয়ে পাসপোর্ট করার সময় দালাল ইমান আলী (৪০) ও ইয়াছমিন আক্তার (২০) নামে এক রোহিঙ্গা তরুনীকে আটক করা হয়।

নরসিংদীতে ভুয়া ঠিকানা ও নকল কাগজপত্র ব্যবহার করে পাসপোর্ট করার সময় এক রোহিঙ্গা নারীসহ দালালকে আটক করা হয়েছে। 

রোববার (২৩ জুন) বিকেলে জেলা আঞ্চলিক পাসপোর্ট অফিস থেকে তাদের আটক করে পুলিশে সোপর্দ করা হয়। 

আটকরা হলেন- দালাল ইমান আলী ও রোহিঙ্গা নারী ইয়াসমিন আক্তার (২০)। নরসিংদী আঞ্চলিক পাসপোর্ট অফিসের সহকারী পরিচালক শাজাহান কবির বাংলানিউজকে বলেন, রোহিঙ্গা ক্যাম্প থেকে ওই নারীকে নিয়ে আসা হয়েছে। বেলা ১২টার দিকে নারায়ণগঞ্জের সাইনবোর্ড এলাকায় শাহ আলম নামে একজন ওই নারীকে দালাল আলীর কাছে হস্তান্তর করেন। এরপর তারা দুইজন কাগজপত্র নিয়ে পাসপোর্ট অফিসে আসেন। তাদের গতিবিধি সন্দেহ হলে কাগজপত্র যাচাই করা হয়। সেখানে জাতীয় পরিচয়পত্রের কার্ড নেই। অন্যান্য যেসব কাগজপত্র যুক্ত করা হয়েছিল তা বেশির ভাগই জাল। পরে তাদের আটক করে পুলিশে সোপর্দ করা হয়।

নরসিংদী মডেল থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা সৈয়দজ্জামান বাংলানিউজকে বিষয়টি নিশ্চিত করে বলেন, প্রাথমিক জিজ্ঞাসাবাদে ইমান স্বীকার করেন ইয়াসমিন আক্তার রোহিঙ্গা নাগরিক। তাদের বিরুদ্ধে আইনানুগ ব্যবস্থা নেওয়ার প্রক্রিয়া চলছে।

নরসিংদীতে পাসপোর্ট করতে এসে রোহিঙ্গা নারীসহ দালাল আটক

প্রতিবেদক নাম: জেলা প্রতিনিধি ।। প্রতিদিনের কাগজ' ,

প্রকাশের সময়ঃ ২৪ জুন ২০১৯, ০২:০৬ পিএম

নরসিংদীতে ভুয়া ঠিকানা ও নকল কাগজপত্র ব্যবহার করে পাসপোর্ট করার সময় এক রোহিঙ্গা নারীসহ দালালকে আটক করা হয়েছে। 

রোববার (২৩ জুন) বিকেলে জেলা আঞ্চলিক পাসপোর্ট অফিস থেকে তাদের আটক করে পুলিশে সোপর্দ করা হয়। 

আটকরা হলেন- দালাল ইমান আলী ও রোহিঙ্গা নারী ইয়াসমিন আক্তার (২০)। নরসিংদী আঞ্চলিক পাসপোর্ট অফিসের সহকারী পরিচালক শাজাহান কবির বাংলানিউজকে বলেন, রোহিঙ্গা ক্যাম্প থেকে ওই নারীকে নিয়ে আসা হয়েছে। বেলা ১২টার দিকে নারায়ণগঞ্জের সাইনবোর্ড এলাকায় শাহ আলম নামে একজন ওই নারীকে দালাল আলীর কাছে হস্তান্তর করেন। এরপর তারা দুইজন কাগজপত্র নিয়ে পাসপোর্ট অফিসে আসেন। তাদের গতিবিধি সন্দেহ হলে কাগজপত্র যাচাই করা হয়। সেখানে জাতীয় পরিচয়পত্রের কার্ড নেই। অন্যান্য যেসব কাগজপত্র যুক্ত করা হয়েছিল তা বেশির ভাগই জাল। পরে তাদের আটক করে পুলিশে সোপর্দ করা হয়।

নরসিংদী মডেল থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা সৈয়দজ্জামান বাংলানিউজকে বিষয়টি নিশ্চিত করে বলেন, প্রাথমিক জিজ্ঞাসাবাদে ইমান স্বীকার করেন ইয়াসমিন আক্তার রোহিঙ্গা নাগরিক। তাদের বিরুদ্ধে আইনানুগ ব্যবস্থা নেওয়ার প্রক্রিয়া চলছে।