১৮, আগস্ট, ২০১৯, রোববার | | ১৬ জ্বিলহজ্জ ১৪৪০


দেশের নির্বাচন ব্যবস্থাকে বিদায় করে দিয়েছে সরকার ও ইসি: জয়নুল আবেদীন

রিপোর্টার নামঃ স্টাফ রিপোর্টার: | আপডেট: ১০ মার্চ ২০১৯, ০১:২৮ পিএম

দেশের নির্বাচন ব্যবস্থাকে বিদায় করে দিয়েছে সরকার ও ইসি: জয়নুল আবেদীন
সংগৃহীত

বাংলাদেশের নির্বাচন ব্যবস্থাকে বর্তমান সরকার এবং নির্বাচন কমিশন (ইসি) যৌথভাবে বিদায় করে দিয়েছে বলে মন্তব্য করেছেন সুপ্রিম কোর্ট বার অ্যাসোসিয়েশনের সাবেক সভাপতি অ্যাডভোকেট জয়নুল আবেদীন।

তিনি বলেন, আগে মানুষের মুখে শুনতাম জনগণের ক্ষমতা অনুযায়ী দেশ চলবে এবং তাদের অধিকার আদায় করতে পাঁচ বছর পর স্বাধীনভাবে ভোট দিয়ে সরকার গঠন করবে। কিন্তু বর্তমানে সেই অবস্থার ঠিক উল্টোটা ঘটছে। এখন আর কাউকে কষ্ট করে কেন্দ্রে যেতে হয় না। রাতের আধারেই বাক্স ভরাট হয়ে যায়। এটা নির্বাচন কমিশনের কথায় পরিষ্কার হয়েছে জনগণ।

শুক্রবার (৮ মার্চ) রাতে বেসরকারি একটি টেলিভিশনের টকশো অনুষ্ঠানে উপস্থিত হয়ে তিনি এসব কথা বলেন।

জয়নুল আবেদীন বলেন, ২০০৮ সালে তারা তত্বাবধায়ক সরকারের আন্ডারে জয়লাভ করলেন। নির্বাচনের পরেই তারা প্রধান বিচারপতিকে দিয়ে সংবিধান থেকে তত্বাবধায়ক সরকারের অধীনে নির্বাচনী সিস্টেম পরিবর্তন করেন।

তিনি আরও বলেন, আমরা দেশের জাতীয় নির্বাচনে আমেজ না দেখলেও কিন্তু স্থানীয় সরকার নির্বাচনগুলোকে বেশ উৎসবমুখর দেখেছি। কিন্তু সেই স্থানীয় উৎসবমুখর নির্বাচনগুলোকেও তারা দলীয় মার্কা দিয়ে ধ্বংস করে দিয়েছে।

ঢাকা বারের সাবেক সভাপতি অভিযোগ করে বলেন, গত একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনের আগেই অনেক বুদ্ধিজীবীরা বলেছিলেন কোন দলীয় সরকারের অধীনে সুষ্ঠু নির্বাচন সম্ভব না। এমনকি প্রধান নির্বাচন কমিশনও বলেছিলেন সরকার যদি সুষ্ঠু নির্বাচন না দিতে পারে তাহলে আমাদের দ্বারা কোনদিনও সম্ভব না।

তিনি আরও বলেন, এই সরকার টানা তিন বার ক্ষমাতায় থাকার পরেও একটা সুষ্ঠু নির্বাচনের ব্যবস্থা করতে পারেনি। এটা সরকারেরই চরম ব্যর্থতা বলে আমি মনে করি।

আওয়ামী লীগের অভিযোগ বিএনপি একাদশ নির্বাচনের জন্য প্রস্তুত ছিল না তাই তারা এক তৃতীয়াংশ আসনও পাইনি, এমন প্রশ্নের জবাবে সাবেক সুপ্রিম কোর্ট বারের সভাপতি জয়নুল আবেদীন বলেন, বিএনপি নির্বাচনে প্রস্তুত ছিল না, তাই বলে কি জনগণ ভোট দিতেও প্রস্তুত ছিল না? আর তারা (আওয়ামী লীগ) প্রস্তুত ছিল ভোটের রাতে ব্যালট বাক্স ভরাট করার জন্য তাই তাদের ভোটারবিহীন নিরস্কুশ জয় হয়েছে।

ইসি সম্পর্কে জয়নুল আবেদীন বলেন, ভোটের আগের রাতে ব্যালট বাক্স ভরাটের জন্য ইসি এবং সরকার দায়ী। আদর্শগত শূন্যতার কারণে আপনি (সিইসি) এই অন্যায়টি সারাদেশের জনগণের বিরুদ্ধে করেছেন। এটি অবৈধ সরকারের ক্ষমতা চিরস্থায়ী করার নীতি বাস্তবায়ন করতেই আপনি (সিইসি) মহাভোট কেলেঙ্কারির মাধ্যমে দেশের ভবিষ্যৎ রাজনীতিকে অন্ধকারাচ্ছন্ন করেছেন।

দেশের নির্বাচন ব্যবস্থাকে বিদায় করে দিয়েছে সরকার ও ইসি: জয়নুল

প্রতিবেদক নাম: স্টাফ রিপোর্টার: ,

প্রকাশের সময়ঃ ১০ মার্চ ২০১৯, ০১:২৮ পিএম

বাংলাদেশের নির্বাচন ব্যবস্থাকে বর্তমান সরকার এবং নির্বাচন কমিশন (ইসি) যৌথভাবে বিদায় করে দিয়েছে বলে মন্তব্য করেছেন সুপ্রিম কোর্ট বার অ্যাসোসিয়েশনের সাবেক সভাপতি অ্যাডভোকেট জয়নুল আবেদীন।

তিনি বলেন, আগে মানুষের মুখে শুনতাম জনগণের ক্ষমতা অনুযায়ী দেশ চলবে এবং তাদের অধিকার আদায় করতে পাঁচ বছর পর স্বাধীনভাবে ভোট দিয়ে সরকার গঠন করবে। কিন্তু বর্তমানে সেই অবস্থার ঠিক উল্টোটা ঘটছে। এখন আর কাউকে কষ্ট করে কেন্দ্রে যেতে হয় না। রাতের আধারেই বাক্স ভরাট হয়ে যায়। এটা নির্বাচন কমিশনের কথায় পরিষ্কার হয়েছে জনগণ।

শুক্রবার (৮ মার্চ) রাতে বেসরকারি একটি টেলিভিশনের টকশো অনুষ্ঠানে উপস্থিত হয়ে তিনি এসব কথা বলেন।

জয়নুল আবেদীন বলেন, ২০০৮ সালে তারা তত্বাবধায়ক সরকারের আন্ডারে জয়লাভ করলেন। নির্বাচনের পরেই তারা প্রধান বিচারপতিকে দিয়ে সংবিধান থেকে তত্বাবধায়ক সরকারের অধীনে নির্বাচনী সিস্টেম পরিবর্তন করেন।

তিনি আরও বলেন, আমরা দেশের জাতীয় নির্বাচনে আমেজ না দেখলেও কিন্তু স্থানীয় সরকার নির্বাচনগুলোকে বেশ উৎসবমুখর দেখেছি। কিন্তু সেই স্থানীয় উৎসবমুখর নির্বাচনগুলোকেও তারা দলীয় মার্কা দিয়ে ধ্বংস করে দিয়েছে।

ঢাকা বারের সাবেক সভাপতি অভিযোগ করে বলেন, গত একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনের আগেই অনেক বুদ্ধিজীবীরা বলেছিলেন কোন দলীয় সরকারের অধীনে সুষ্ঠু নির্বাচন সম্ভব না। এমনকি প্রধান নির্বাচন কমিশনও বলেছিলেন সরকার যদি সুষ্ঠু নির্বাচন না দিতে পারে তাহলে আমাদের দ্বারা কোনদিনও সম্ভব না।

তিনি আরও বলেন, এই সরকার টানা তিন বার ক্ষমাতায় থাকার পরেও একটা সুষ্ঠু নির্বাচনের ব্যবস্থা করতে পারেনি। এটা সরকারেরই চরম ব্যর্থতা বলে আমি মনে করি।

আওয়ামী লীগের অভিযোগ বিএনপি একাদশ নির্বাচনের জন্য প্রস্তুত ছিল না তাই তারা এক তৃতীয়াংশ আসনও পাইনি, এমন প্রশ্নের জবাবে সাবেক সুপ্রিম কোর্ট বারের সভাপতি জয়নুল আবেদীন বলেন, বিএনপি নির্বাচনে প্রস্তুত ছিল না, তাই বলে কি জনগণ ভোট দিতেও প্রস্তুত ছিল না? আর তারা (আওয়ামী লীগ) প্রস্তুত ছিল ভোটের রাতে ব্যালট বাক্স ভরাট করার জন্য তাই তাদের ভোটারবিহীন নিরস্কুশ জয় হয়েছে।

ইসি সম্পর্কে জয়নুল আবেদীন বলেন, ভোটের আগের রাতে ব্যালট বাক্স ভরাটের জন্য ইসি এবং সরকার দায়ী। আদর্শগত শূন্যতার কারণে আপনি (সিইসি) এই অন্যায়টি সারাদেশের জনগণের বিরুদ্ধে করেছেন। এটি অবৈধ সরকারের ক্ষমতা চিরস্থায়ী করার নীতি বাস্তবায়ন করতেই আপনি (সিইসি) মহাভোট কেলেঙ্কারির মাধ্যমে দেশের ভবিষ্যৎ রাজনীতিকে অন্ধকারাচ্ছন্ন করেছেন।