২৪, আগস্ট, ২০১৯, শনিবার | | ২২ জ্বিলহজ্জ ১৪৪০


বাসের ছাদে করে প্রিয়াঙ্কা-রাহুলের রোড-শো

রিপোর্টার নামঃ আন্তর্জাতিক ডেস্ক: | আপডেট: ১১ ফেব্রুয়ারি ২০১৯, ০৬:৪১ পিএম

বাসের ছাদে করে প্রিয়াঙ্কা-রাহুলের রোড-শো
বাসের ছাদে করে প্রিয়াঙ্কা-রাহুলের রোড-শো

রাজনীতিতে আসার পর প্রথমবারের মত ‘গোলাপি সেনা’ নিয়ে রোড-শো শুরু করেছেন প্রিয়াঙ্কা গান্ধী। সোমবার ভাই রাহুল গান্ধীকে পাশে নিয়েই উত্তরপ্রদেশ থেকে লোকসভা নির্বাচনের লড়াইটা শুরু করলেন তিনি।

সোমবার স্থানীয় সময় বেলা ১টা নাগাদ তিনি যান লক্ষৌ বিমানবন্দরে পৌঁছান। এর অল্প সময় পরেই বাসের ছাদে উঠে কংগ্রেস সভাপতি রাহুলের সঙ্গে রোডশো শুরু করেন। তাদের সঙ্গে আরো রয়েছেন জ্যোতিরাদিত্য সিন্ধিয়া, প্রদেশ কংগ্রেস সভাপতি রাজ বাব্বরের মত নেতারা। এই রোড-শোকে ঘিরে কড়া নিরাপত্তার চাদরে মুড়ে ফেলা হয়েছে পুরো রাস্তা। রোড শোয়ে রাহুল গান্ধীর হাতে রয়েছে রাফায়েল মডেল।বিমানবন্দর থেকে আলমবাগ, চারবাগ, হুসেনগঞ্জ, লালবাগ, হজরতগঞ্জ হয়ে রোড-শো যাবে কংগ্রেস দপ্তর নেহরু ভবনে। বাসের ছাদে করে সব মিলিয়ে ৩০ কিলোমিটার রাস্তা পার হবেন প্রিয়াঙ্কা। পুরো রাস্তা ছেয়ে গেছে রাহুল আর প্রিয়াঙ্কা গন্ধীর বিশাল বিশাল পোস্টারে। রাস্তায় গোলাপি জামা পরে ঘুরছে প্রিয়াঙ্কার গোলাপি সেনারা।

কংগ্রেসের কর্মী-সমর্থকদের মধ্য থেকে ৫০০ জনকে আলাদা করে বেছে নেওয়া হয়েছে যাদের পরনে রয়েছে প্রিয়াঙ্কা গান্ধীর ছবি এবং স্লোগান সম্বলিত গোলাপি জামা। তারাই প্রিয়াঙ্কার গোলাপি সেনা। তাদের পোশাকে হিন্দিতে লেখা, ‘দেশের সম্মানের জন্য, প্রিয়াঙ্কাজি ময়দানে, মনও দেব, সম্মানও দেব, প্রয়োজন পড়লে জীবনও দেব।’

রোড শো শুরু হওয়ার আগের দিন অর্থাৎ রোববার লক্ষৌর কর্মী-সমর্থকদের উদ্দেশে কংগ্রেসের শক্তি অ্যাপে প্রিয়াঙ্কা একটি অডিয়ো বার্তা দেন। তাতে তিনি বলেন, ‘নমস্কার আমি প্রিয়াঙ্কা গান্ধী ভদ্র বলছি। আমি আগামীকাল লক্ষৌ আসছি। আমার আশা আমরা সবাই মিলে একটা নতুন রাজনীতি শুরু করব, এমন একটা রাজনীতি যেখানে আপনারাও অংশীদার— আমার যুব বন্ধুরা, আমার বোনেরা এবং সবচেয়ে দুর্বল মানুষও, সকলের কথা শোনা হবে।’

রোড শোয়ে যোগ দিতে প্রচুর কংগ্রেস সমর্থকেরা রাস্তায় ভিড় জমিয়েছেন বলে জানা গেছে।

-আনন্দবাজার

বাসের ছাদে করে প্রিয়াঙ্কা-রাহুলের রোড-শো

প্রতিবেদক নাম: আন্তর্জাতিক ডেস্ক: ,

প্রকাশের সময়ঃ ১১ ফেব্রুয়ারি ২০১৯, ০৬:৪১ পিএম

রাজনীতিতে আসার পর প্রথমবারের মত ‘গোলাপি সেনা’ নিয়ে রোড-শো শুরু করেছেন প্রিয়াঙ্কা গান্ধী। সোমবার ভাই রাহুল গান্ধীকে পাশে নিয়েই উত্তরপ্রদেশ থেকে লোকসভা নির্বাচনের লড়াইটা শুরু করলেন তিনি।

সোমবার স্থানীয় সময় বেলা ১টা নাগাদ তিনি যান লক্ষৌ বিমানবন্দরে পৌঁছান। এর অল্প সময় পরেই বাসের ছাদে উঠে কংগ্রেস সভাপতি রাহুলের সঙ্গে রোডশো শুরু করেন। তাদের সঙ্গে আরো রয়েছেন জ্যোতিরাদিত্য সিন্ধিয়া, প্রদেশ কংগ্রেস সভাপতি রাজ বাব্বরের মত নেতারা। এই রোড-শোকে ঘিরে কড়া নিরাপত্তার চাদরে মুড়ে ফেলা হয়েছে পুরো রাস্তা। রোড শোয়ে রাহুল গান্ধীর হাতে রয়েছে রাফায়েল মডেল।বিমানবন্দর থেকে আলমবাগ, চারবাগ, হুসেনগঞ্জ, লালবাগ, হজরতগঞ্জ হয়ে রোড-শো যাবে কংগ্রেস দপ্তর নেহরু ভবনে। বাসের ছাদে করে সব মিলিয়ে ৩০ কিলোমিটার রাস্তা পার হবেন প্রিয়াঙ্কা। পুরো রাস্তা ছেয়ে গেছে রাহুল আর প্রিয়াঙ্কা গন্ধীর বিশাল বিশাল পোস্টারে। রাস্তায় গোলাপি জামা পরে ঘুরছে প্রিয়াঙ্কার গোলাপি সেনারা।

কংগ্রেসের কর্মী-সমর্থকদের মধ্য থেকে ৫০০ জনকে আলাদা করে বেছে নেওয়া হয়েছে যাদের পরনে রয়েছে প্রিয়াঙ্কা গান্ধীর ছবি এবং স্লোগান সম্বলিত গোলাপি জামা। তারাই প্রিয়াঙ্কার গোলাপি সেনা। তাদের পোশাকে হিন্দিতে লেখা, ‘দেশের সম্মানের জন্য, প্রিয়াঙ্কাজি ময়দানে, মনও দেব, সম্মানও দেব, প্রয়োজন পড়লে জীবনও দেব।’

রোড শো শুরু হওয়ার আগের দিন অর্থাৎ রোববার লক্ষৌর কর্মী-সমর্থকদের উদ্দেশে কংগ্রেসের শক্তি অ্যাপে প্রিয়াঙ্কা একটি অডিয়ো বার্তা দেন। তাতে তিনি বলেন, ‘নমস্কার আমি প্রিয়াঙ্কা গান্ধী ভদ্র বলছি। আমি আগামীকাল লক্ষৌ আসছি। আমার আশা আমরা সবাই মিলে একটা নতুন রাজনীতি শুরু করব, এমন একটা রাজনীতি যেখানে আপনারাও অংশীদার— আমার যুব বন্ধুরা, আমার বোনেরা এবং সবচেয়ে দুর্বল মানুষও, সকলের কথা শোনা হবে।’

রোড শোয়ে যোগ দিতে প্রচুর কংগ্রেস সমর্থকেরা রাস্তায় ভিড় জমিয়েছেন বলে জানা গেছে।

-আনন্দবাজার