২৪, আগস্ট, ২০১৯, শনিবার | | ২২ জ্বিলহজ্জ ১৪৪০


কুমিল্লায় বাসে আগুন: খালেদার জামিন না মঞ্জুর

রিপোর্টার নামঃ স্টাফ রিপোর্টার: | আপডেট: ০৪ ফেব্রুয়ারি ২০১৯, ০৪:৩৬ পিএম

কুমিল্লায় বাসে আগুন: খালেদার জামিন না মঞ্জুর
কুমিল্লায় বাসে আগুন: খালেদার জামিন না মঞ্জুর

কুমিল্লার চৌদ্দগ্রামের জগমোহনপুরে দুর্বৃত্তদের পেট্রোল বোমা হামলায় বাসের ৮ যাত্রী পুড়িয়ে হত্যা মামলায় বিএনপি চেয়ারপারসন খালেদা জিয়ার জামিন আবেদন নামঞ্জুর করেছে আদালত। একইসঙ্গে এ মামলার চার্জ গঠনের তারিখ আগামী ২৫ ফেব্রুয়ারি ধার্য করা হয়েছে। সোমবার দুপুরে কুমিল্লা জেলা ও দায়রা জজ আদালতের বিচারক মো. আলী আকবর এ আদেশ দেন।

এর আগে এ মামলায় খালেদা জিয়ার জামিনের আবেদনের শুনানি চারবার পিছিয়ে গেলে তা ৪ ফেব্রুয়ারির মধ্যে নিস্পত্তির নির্দেশ দেন হাইকোর্ট।

আদালতে রাষ্ট্রপক্ষে আইনজীবী ছিলেন পিপি অ্যাডভোকেট মোস্তাফিজুর রহমান লিটন এবং খালেদা জিয়ার পক্ষে আইনজীবী ছিলেন অ্যাডকোকেট কাইমুল হক রিংকু।

বেগম খালেদা জিয়ার আইনজীবী অ্যাডভোকেট কাইমুল হক রিংকু বলেন, বাসের আট যাত্রী হত্যা মামলায় গত ৭ জানুয়ারি জেলা ও দায়রা জজ আদালতে চার্জ গঠন এবং বেগম খালেদা জিয়ার জামিন শুনানির আবেদন ছিল। আদালত থেকে ১৬ জানুয়ারি পরবর্তী তারিখ ধার্য করা হয়। ওইদিন রাষ্ট্রপক্ষের সময় আবেদনের প্রেক্ষিতে তার জামিন শুনানি পিছিয়ে ৪ ফেব্রুয়ারি ধার্য করা হয়েছিল।

তিনি বলেন, দীর্ঘদিন পরে খালেদা জিয়ার এ মামলায় আমরা জামিন শুনানি করতে পেরেছি এবং আদালতে খালেদা জিয়ার পক্ষে বিস্তারিত যুক্তি উপস্থাপন করেছি। বিজ্ঞ আদালত উভয়পক্ষের শুনানি শেষে খালেদা জিয়ার জামিন আবেদন নামঞ্জুর করেছেন এবং চার্জ গঠনের জন্য ২৫ ফেব্রুয়ারি পরবর্তী তারিখ ধার্য করেছেন। আমরা এ মামলায় ন্যায় বিচার পাইনি, আমরা উচ্চ আদালতে যাব। আশা করি সেখানে ন্যায় বিচার পাব।

মামলার বিবরণে জানা যায়, বিএনপি-জামায়াতসহ ২০ দলীয় জোটের ডাকা হরতাল-অবরোধ চলাকালে ২০১৫ সালের ৩ ফেব্রুয়ারি ভোর রাতে কক্সবাজার থেকে ছেড়ে আসা ঢাকাগামী আইকন পরিবহনের একটি নৈশ কোচ চৌদ্দগ্রামের জগমোহনপুর নামক স্থানে পৌঁছালে দুর্বৃত্তরা বাসটি লক্ষ্য করে পেট্রোল বোমা নিক্ষেপ করে। এতে আগুনে পুড়ে ঘটনাস্থলে ৭ জন ও হাসপাতালে নেয়ার পর ১ জনসহ মোট ৮ যাত্রী মারা যায়। ওই ঘটনায় চৌদ্দগ্রাম থানার এসআই নুরুজ্জামান হাওলাদার বাদী হয়ে পরদিন ৩ ফেব্রুয়ারি রাতে হত্যা ও বিস্ফোরক আইনে পৃথক ২টি মামলা দায়ের করেন।

মামলায় খালেদা জিয়াসহ বিএনপির শীর্ষস্থানীয় ছয়জন নেতাকে হুকুমের আসামি করা হয়। ৭৭ জন আসামির মধ্যে তিনজন মারা যান, পাঁচজনকে চার্জশিটকে থেকে বাদ দেয়া হয়। পরে ডিবির পরিদর্শক ফিরোজ হোসেন অধিকতর তদন্ত শেষে খালেদা জিয়াসহ অপর ৬৯ জনের বিরুদ্ধে কুমিল্লার আদালতে চার্জশিট দাখিল করেন।

কুমিল্লায় বাসে আগুন: খালেদার জামিন না মঞ্জুর

প্রতিবেদক নাম: স্টাফ রিপোর্টার: ,

প্রকাশের সময়ঃ ০৪ ফেব্রুয়ারি ২০১৯, ০৪:৩৬ পিএম

কুমিল্লার চৌদ্দগ্রামের জগমোহনপুরে দুর্বৃত্তদের পেট্রোল বোমা হামলায় বাসের ৮ যাত্রী পুড়িয়ে হত্যা মামলায় বিএনপি চেয়ারপারসন খালেদা জিয়ার জামিন আবেদন নামঞ্জুর করেছে আদালত। একইসঙ্গে এ মামলার চার্জ গঠনের তারিখ আগামী ২৫ ফেব্রুয়ারি ধার্য করা হয়েছে। সোমবার দুপুরে কুমিল্লা জেলা ও দায়রা জজ আদালতের বিচারক মো. আলী আকবর এ আদেশ দেন।

এর আগে এ মামলায় খালেদা জিয়ার জামিনের আবেদনের শুনানি চারবার পিছিয়ে গেলে তা ৪ ফেব্রুয়ারির মধ্যে নিস্পত্তির নির্দেশ দেন হাইকোর্ট।

আদালতে রাষ্ট্রপক্ষে আইনজীবী ছিলেন পিপি অ্যাডভোকেট মোস্তাফিজুর রহমান লিটন এবং খালেদা জিয়ার পক্ষে আইনজীবী ছিলেন অ্যাডকোকেট কাইমুল হক রিংকু।

বেগম খালেদা জিয়ার আইনজীবী অ্যাডভোকেট কাইমুল হক রিংকু বলেন, বাসের আট যাত্রী হত্যা মামলায় গত ৭ জানুয়ারি জেলা ও দায়রা জজ আদালতে চার্জ গঠন এবং বেগম খালেদা জিয়ার জামিন শুনানির আবেদন ছিল। আদালত থেকে ১৬ জানুয়ারি পরবর্তী তারিখ ধার্য করা হয়। ওইদিন রাষ্ট্রপক্ষের সময় আবেদনের প্রেক্ষিতে তার জামিন শুনানি পিছিয়ে ৪ ফেব্রুয়ারি ধার্য করা হয়েছিল।

তিনি বলেন, দীর্ঘদিন পরে খালেদা জিয়ার এ মামলায় আমরা জামিন শুনানি করতে পেরেছি এবং আদালতে খালেদা জিয়ার পক্ষে বিস্তারিত যুক্তি উপস্থাপন করেছি। বিজ্ঞ আদালত উভয়পক্ষের শুনানি শেষে খালেদা জিয়ার জামিন আবেদন নামঞ্জুর করেছেন এবং চার্জ গঠনের জন্য ২৫ ফেব্রুয়ারি পরবর্তী তারিখ ধার্য করেছেন। আমরা এ মামলায় ন্যায় বিচার পাইনি, আমরা উচ্চ আদালতে যাব। আশা করি সেখানে ন্যায় বিচার পাব।

মামলার বিবরণে জানা যায়, বিএনপি-জামায়াতসহ ২০ দলীয় জোটের ডাকা হরতাল-অবরোধ চলাকালে ২০১৫ সালের ৩ ফেব্রুয়ারি ভোর রাতে কক্সবাজার থেকে ছেড়ে আসা ঢাকাগামী আইকন পরিবহনের একটি নৈশ কোচ চৌদ্দগ্রামের জগমোহনপুর নামক স্থানে পৌঁছালে দুর্বৃত্তরা বাসটি লক্ষ্য করে পেট্রোল বোমা নিক্ষেপ করে। এতে আগুনে পুড়ে ঘটনাস্থলে ৭ জন ও হাসপাতালে নেয়ার পর ১ জনসহ মোট ৮ যাত্রী মারা যায়। ওই ঘটনায় চৌদ্দগ্রাম থানার এসআই নুরুজ্জামান হাওলাদার বাদী হয়ে পরদিন ৩ ফেব্রুয়ারি রাতে হত্যা ও বিস্ফোরক আইনে পৃথক ২টি মামলা দায়ের করেন।

মামলায় খালেদা জিয়াসহ বিএনপির শীর্ষস্থানীয় ছয়জন নেতাকে হুকুমের আসামি করা হয়। ৭৭ জন আসামির মধ্যে তিনজন মারা যান, পাঁচজনকে চার্জশিটকে থেকে বাদ দেয়া হয়। পরে ডিবির পরিদর্শক ফিরোজ হোসেন অধিকতর তদন্ত শেষে খালেদা জিয়াসহ অপর ৬৯ জনের বিরুদ্ধে কুমিল্লার আদালতে চার্জশিট দাখিল করেন।